রাজউকের ১১ প্লট বিক্রিতে সরকারের ক্ষতি ১৩৮ কোটি

Daily Inqilab স্টাফ রিপোর্টার

১৪ মার্চ ২০২৩, ০৯:২৭ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১১:৩৩ পিএম

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-রাজউকের কোনো প্লট বা ফ্ল্যাট বিক্রির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর যদি মাত্র একটি দরপত্র জমা পড়ে তাহলে তা তিনবার পর্যন্ত নিলামের ব্যবস্থা গ্রহণ করার বিধান রয়েছে। কিন্তু তা না মেনেই একক দরে অবিশ^াস্য মূল্যে রাজধানীর উত্তরায় ১১টি প্লট বিক্রি করেছে রাজউক। ১০ কাঠা ও ২০ কাঠা আয়তনের এসব প্লট বিক্রিতে সরকারের ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১৩৮ কোটি টাকা। বিষয়টি নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) রাজউকের অ্যাস্টেট ও ভূমি-১ বিভাগের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা পড়েছে।

রাজউকের একাধিক কর্মকর্তা বলেছেন, রাজউকের উত্তরা এলাকার বাণিজ্যিক প্লটের প্রতি কাঠার মূল্য ৪ থেকে ১০ কোটি টাকা। অথচ সেখানে এবার রাজউক প্লট নিলামের ভিত্তিমূল্য ধার্য করেছিল ১ কোটি ২৫ লাখ থেকে ৬ কোটি টাকা, যা বাজারমূল্য থেকে অনেক কম। এরপর আবার ১১টি প্লট রাজউক কর্মকর্তারা প্লট ক্রয়ে আগ্রহীদের সঙ্গে যোগসাজশ করে বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে ভিত্তিমূল্যের কাছাকাছি দরে বিক্রি করেছে। এসব প্লট বিক্রিতে আসলে বড় ধরনের লুটপাট হয়েছে।

জানা যায়, গত বছরের অক্টোবর মাসে নিলামে উত্তরায় রাজউকের ২৩টি প্লট বিক্রি করা হয়। তার মধ্যে ১২টি প্লট প্রতিযোগিতামূলক দরে প্রায় ৫৮৬ কোটি ৬৬ লাখ টাকায় এবং ১১ প্লট একক দরে প্রায় ৪০৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকায় বিক্রি করা হয়। নিলামের পর গত ১৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত রাজউকের ১৩/২০২২তম বোর্ডসভায় উপস্থাপন করা হয়। আলোচনা শেষে একক দরদাতাদের নামে প্লট বরাদ্দ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু হিসাব করলে দেখা যায়, একক দরে ১১ প্লট বিক্রি করায় সরকারের প্রায় ১৩৮ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নিলাম কমিটির সদস্য সচিব ও রাজউকের পরিচালক (অ্যাস্টেট ও ভূমি-১) মো. কামরুল ইসলাম সম্প্রতি সাংবাদিকদের বলেন, ‘রাজউকের প্লট বিক্রির ক্ষেত্রে ওপেন টেন্ডার মেথড (ওটিএম) পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে। প্লটগুলো নিলামে বিক্রির বিষয়ে প্রচার-প্রচারণার কোনো কমতি ছিল না। মানুষ জানার পরও টেন্ডারে অংশগ্রহণ করেনি। নিলামের বিধি-বিধান মেনেই একক দরদাতাকে প্লট বরাদ্দ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।’

তবে রাজউকের একজন সাবেক প্রধান প্রকৌশলী নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘দরপত্র ছাড়া রাজউকের কোনো প্লট বা ফ্ল্যাট বিক্রির সুযোগ নেই। যদি একটি দরপত্র জমা পরলে সেক্ষেত্রে পুনরায় দরপত্র আহ্বান করতে হবে। এভাবে তিনবার দরপত্র আহ্বান করে যদি সংশ্লিষ্ট প্লট বা ফ্ল্যাটের বিপরীতে একটি দরপত্রই জমা পরে তাহলে সেটি একক দরদাতার কাছে বিক্রি করা যাবে। শুধু একবার দরপত্র আহ্বান করে একক দরে প্লট বিক্রির সুযোগ নেই।’

জানা যায়, গত বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর চারটি পত্রিকায় প্লট ক্রয়ের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। দরপত্র জমার শেষ তারিখ ছিল গত বছরের ২৫ অক্টোবর। ওইদিন পর্যন্ত ১৮২টি দরপত্র বিক্রি হলেও জমা পড়ে মাত্র ৫৭টি। দরদাতাদের উপস্থিতি দরপত্র খোলার পর দেখা যায় ১২টি প্লট নিলামে ক্রয়ের জন্য ২ থেকে ৭টি পর্যন্ত দরপত্র জমা হলেও ১১টি প্লটের বিপরীতে মাত্র একটি করে দরপত্র জমা পড়ে। রাজউকের নিলাম কমিটি ওই ১১টি প্লট বিক্রির জন্য পুনরায় নিলাম দরপত্র আহ্বান না করে একক দরদাতার নামে প্লট বরাদ্দ দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

রাজউক সূত্র জানায়, যেই ১১টি প্লটের বিপরীতে একটি করে দরপত্র জমা পড়েছে, সেগুলো রাজউকের ভিত্তিমূল্যের দরে বিক্রি করা হয়েছে। একক দরে বিক্রি করা ১১টি প্লটের মধ্যে ১৩ নম্বর সেক্টরের জনপথ সড়কের ১০ কাঠা আয়তনের ৪টি প্লট রয়েছে। এর মধ্যে ২৭ নম্বর প্লটটি ৩৬ কোটি ৫৪ লাখ টাকায় মোনালিসা সিরামিক কোম্পানি, ৪৫ নম্বর প্লটটি ৩৫ কোটি ৫০ লাখে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ৪৯ নম্বর প্লটটি ৪০ কোটি ৫ লাখ ১৩ হাজারে ইয়েস্টার জিন্স লিমিটেড এবং ৭৫ নম্বর প্লটটি ৩৫ কোটিতে এমএম অ্যাসোসিয়েটস লিমিটেডকে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ১৬ ও ১৮ নম্বর সেক্টরের ৩ নম্বর অ্যাভিনিউ সড়কের প্রতিকাঠা ভিত্তিমূল্য ধার্য ছিল ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। সেখানকার প্রতিটি প্লট ২০ কাঠা আয়তনের। এর মধ্যে ১ নম্বর প্লটটি একক দরদাতা হিসেবে ৪১ কোটি ৩০ লাখে ডেল্টা ফার্মা লিমিটেড, ১৩ নম্বর প্লটটি ৩৪ কোটি ২০ লাখে হেলথ কেয়ার ফরমুলেশন লিমিটেড । ১৮ নম্বর সেক্টরের ৩ নম্বর অ্যাভিনিউ সড়কের ২ নম্বর প্লটটি ৩৭ কোটিতে টু বিল্ডার্স লিমিটেড, ১০ নম্বর প্লটটি ৩১ কোটিতে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ১৮ নম্বর প্লটটি ৩১ কোটিতে সেলিনা অ্যাপারেল লিমিটেড, ২০ নম্বর প্লটটি ৩১ কোটি ৫০ লাখে ইনডেক্স পোলট্রি (প্রা.) লিমিটেড বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আর উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরের ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের প্রতি কাঠার ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছিল ৬ কোাট টাকা। ওই সড়কের ১০ কাঠা আয়তনের ৯৫ নম্বর প্লটটি ৬২ কোটি ১৭ লাখ ৫৬ হাজার ২১০ টাকায় মো. মজিবুর রহমানের নামে বরাদ্দ দেওয়া হয়।


বিভাগ : বাংলাদেশ


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

১১ সপ্তাহ বন্ধ থাকার পর খুললো হাইতির বিমানবন্দর

১১ সপ্তাহ বন্ধ থাকার পর খুললো হাইতির বিমানবন্দর

শিল্পীদের ভোটকে অসম্মান করবেন না, ডিপজলের উদ্দেশে রত্না

শিল্পীদের ভোটকে অসম্মান করবেন না, ডিপজলের উদ্দেশে রত্না

ঢাকায় পৌঁছেছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকায় পৌঁছেছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাইসির মৃত্যুর পর এখন ইরানের ভবিষ্যৎ কী?

রাইসির মৃত্যুর পর এখন ইরানের ভবিষ্যৎ কী?

শত্রুরাই আমার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে: পরীমণি

শত্রুরাই আমার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে: পরীমণি

ভারতে সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ৮ বাংলাদেশি নারী

ভারতে সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ৮ বাংলাদেশি নারী

কান থেকে ফিরেই হাসপাতালে ঐশ্বরিয়া

কান থেকে ফিরেই হাসপাতালে ঐশ্বরিয়া

অপু বিশ্বাসের জিডি, তিনজনকে সতর্ক করলো পুলিশ

অপু বিশ্বাসের জিডি, তিনজনকে সতর্ক করলো পুলিশ

গণসংহতির বিক্ষোভ ঘিরে বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে নিরাপত্তা জোরদার

গণসংহতির বিক্ষোভ ঘিরে বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে নিরাপত্তা জোরদার

নাইজেরিয়ার মৃৎশিল্পে চিরায়ত ঐতিহ্য

নাইজেরিয়ার মৃৎশিল্পে চিরায়ত ঐতিহ্য

নাগরিকত্ব ফিরে পেয়ে প্রথমবার ভোট দিলেন অক্ষয়

নাগরিকত্ব ফিরে পেয়ে প্রথমবার ভোট দিলেন অক্ষয়

চাটখিলে দুই ঘণ্টায় এক বুথে পড়ল ১ ভোট

চাটখিলে দুই ঘণ্টায় এক বুথে পড়ল ১ ভোট

সকাল থেকেই ফাঁকা বাউফলের ভোটকেন্দ্র

সকাল থেকেই ফাঁকা বাউফলের ভোটকেন্দ্র

রাজশাহীর তিন উপজেলায় ভোটার উপস্থিতি কম

রাজশাহীর তিন উপজেলায় ভোটার উপস্থিতি কম

বোদায় দুই ঘন্টায় ভোট পড়েছে সাড়ে পাঁচ শতাংশ

বোদায় দুই ঘন্টায় ভোট পড়েছে সাড়ে পাঁচ শতাংশ

আর্জেন্টিনার প্রস্তুতি ম্যাচে মেসি-দি মারিয়া, নেই দিবালা

আর্জেন্টিনার প্রস্তুতি ম্যাচে মেসি-দি মারিয়া, নেই দিবালা

কুমিল্লায় ভোটাকেন্দ্রে কোনো ভোটার নেই

কুমিল্লায় ভোটাকেন্দ্রে কোনো ভোটার নেই

আজ তাবরিজে রাইসির দাফন

আজ তাবরিজে রাইসির দাফন

টাঙ্গাইলে তিন উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে

টাঙ্গাইলে তিন উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে

রাজবাড়ীতে ভোটকেন্দ্রে গুলিবর্ষণ, সংঘর্ষে আহত ১

রাজবাড়ীতে ভোটকেন্দ্রে গুলিবর্ষণ, সংঘর্ষে আহত ১