করতোয়া নদী ভরাট করে সড়ক নির্মাণে টিএমএসএসকে দণ্ড ১০ লাখ টাকা

Daily Inqilab বগুড়া ব্যুরো

২০ মার্চ ২০২৩, ০৬:০৪ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ০১:১২ পিএম

করতোয়া দখল মুক্ত করতে বগুড়া সদরের উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সরেজমিন তদারকি। -ইনকিলাব।

বগুড়ার সদরে করতোয়া নদী ভরাট করে সড়ক নির্মাণের দায়ে বেসরকারি সংস্থা ঠেঙ্গামারা মহিলা সবুজ সংঘকে (টিএমএসএস) ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার দুপুরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফিরোজা পারভীন এই দণ্ডাদেশ দেন।
এর আগে গত শনিবার টিএমএসএস নদী ভরাট করছে এমন অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করে উপজেলা প্রশাসন। ওই সময় নদীর সীমানা দখল করলে সরকারি নিয়ম অনুযায়ী জরিমানা দিতে রাজি থাকার মর্মে মুচলেকা দেন টিএমএসএসের নির্বাহী পরিচালক হোসনে আরা।
এ ছাড়াও মুচলেকা অনুযায়ী নদী এলাকায় টিএমএসএসের যাবতীয় কাজ বন্ধ থাকার কথা ছিল।
ওই দিনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সোমবার নদীর সীমানা পরিমাপ করেন ইউএনও ফিরোজা পারভীন। এ সময় করতোয়া নদীর সীমানার মধ্যে ভরাট করে রাস্তা নির্মাণের সত্যতা পান তিনি। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেন তিনি । অনাদায়ে টিএমএসএসের সিনিয়র সহকারী পরিচালক নজিবর রহমানকে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।
কিন্তু জরিমানার পরপরই টিএমএসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গণ্ডগোল সৃষ্টি করেন। তারা আদালতের রায় পরিবর্তণের জন্য ইউএনও ফিরোজা পারভীনকে চাপ দিতে থাকেন।
এ সময় রায় অস্বীকার করে টিএমএসএসের নির্বাহী পরিচালক হোসনে আরা বলেন, এখানে একটি রাস্তা করা হয়েছে, এটি সাময়িক। এ রাস্তায় স্থানীয় লোকেরা চলাচল করে। এখানে পরিবেশের কোনো আইন লঙ্ঘন হয়নি। কারা অভিযোগ করেছে, কারা বলেছে এটা আপনার অফিসে বসে দেখা উচিত। আজকে আপনি নদী পরিমাপ করতে আসছেন। যথাযথভাবে পরিমাপ করে দেখেন কোথায় টিএমএসএস নদী দখল করেছে ।
আদালতের জরিমানার বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইউএনও ও নির্বাহী হাকিম ফিরোজা পারভীন। তিনি বলেন, শনিবার করতোয়া নদী ভরাটের অভিযোগে ঘটনাস্থলে এসেছিলাম। তখন আমি নারী শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেছি। শ্রমিকরা জানিয়েছেন, তারা টিএমএসএসের জন্য কাজ করছেন। আমার কাছে তাদের বক্তব্য রেকর্ড করা আছে।
ইউএনও আরও বলেন, সোমবার করতোয়া নদী পরিমাপের সীমানা নির্ধারণের দিন ছিল। পরিমাপে দেখা যায় করতোয়ার মাঝ দিয়ে বালু দিয়ে একটি রাস্তা নির্মাণ হচ্ছে। এ ছাড়াও আমি টিএমএসএসের অংশে ময়লা ও বালু ফেলা হচ্ছিল, সেই কাজ বন্ধ রাখতে বলেছিলাম। কিন্তু এখন দেখছি, সেই কাজ চলমান ছিল। এ জন্য পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ সালের ১৫ ধারায় টিএমএসএসকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছি। অনাদায়ে একজনকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নদীর দখল-দূষণ দিয়ে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের তৎকালীন চেয়ারম্যান ও সার্বক্ষণিক সদস্য ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার ২০১৯ সালে বগুড়ার করতোয়া, যমুনা ও বাঙ্গালী নদী সরেজমিন পরিদর্শন করেন। তাদের দেওয়া প্রতিবেদনে করতোয়া দখলকারীদের বিরুদ্ধে বগুড়া জেলা প্রশাসককে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।
জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন বগুড়া জেলা প্রশাসকের (পদাধিকার বলে জেলা নদী রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক) কাছে পাঠানো এই চিঠিতে উল্লেখ করে, নদীর জায়গায় অবৈধভাবে দখলে নিয়ে টিএমএসএস ভবন বা স্থাপনা তৈরি অব্যাহত রেখেছে। নদীর জায়গায় এভাবে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে বিরুদ্ধে হাইকোর্টের রিট পিটিশনের সংশ্লিষ্ট রায়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে অবৈধ দখল থেকে নদীকে রক্ষা করতে সিআরপিসি আইনের ১৩৩ ধারা প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। রাষ্ট্রের জমি অবৈধভাবে দখলের দায়ে টিএমএসএসসহ অন্যান্য সব অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় ফৌজদারী মামলাও রুজু করতে হবে।
চিঠিতে আরও বলা হয় (পরামর্শ ২১), সদরের নওদাপাড়া মৌজায় মম ইন (ইকো পার্ক) পার্কের ময়লা-আবর্জনা করতোয়া নদীতে ড্যাম্পিং করা হচ্ছে। এবং অবৈধভাবে নদী থেকে বালু তোলা হচ্ছে। এতে নদীর ভূগর্ভ ভেঙে তীর বসে যাচ্ছে। অবিলম্বে নদীতে ময়লা-আবর্জনা ড্যাম্পিং বন্ধ করতে হবে।
চিঠির আরেকটি অংশে উল্লেখ রয়েছে, মম-ইন এক্সটেনশন বিনোদন পার্ক করতোয়ায় বাঁধ দিয়ে কৃত্রিম আইল্যান্ড তৈরি করেছে। নদীর গর্ভস্থলে এ ধরনের কৃত্রিম আইল্যান্ড তৈরি করে নদীকে দ্বিখন্ডিত করে নদীর দুপাশকে নদীর প্রবাহকে স্তিমিত ও গতিপথ পরিবর্তন করে করতোয়ার সর্বনাশ করছে। এটি সম্পূর্ণ বেআইনি। জরুরি ভিত্তিতে এটি উচ্ছেদ করতে হবে। টিএমএসএস রাষ্ট্রের বা নদীর জায়গা অবৈধ দখলে জড়িত থাকার ফলে জাতীয় স্বার্থ পরিপন্থি কাজের জন্য ফৌজদারী আইনে মামলা রুজু করতে হবে।


বিভাগ : বাংলাদেশ


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

নগরীতে নারীবান্ধব গণপরিবহণ চালু করা হবে- মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম, শায়খে চরমোনাই

নগরীতে নারীবান্ধব গণপরিবহণ চালু করা হবে- মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম, শায়খে চরমোনাই

৬ বিভাগে তরুণ সমাবেশ করবে বিএনপির তিন সংগঠন

৬ বিভাগে তরুণ সমাবেশ করবে বিএনপির তিন সংগঠন

আচরণ বিধি ভঙ্গের প্রতিযোগীতায় বরিশাল সিটি নির্বাচন

আচরণ বিধি ভঙ্গের প্রতিযোগীতায় বরিশাল সিটি নির্বাচন

প্রস্তাবিত বাজেটে সাধারণ মানুষের কোনো কল্যাণ হবে না : পীরসাহেব চরমোনাই

প্রস্তাবিত বাজেটে সাধারণ মানুষের কোনো কল্যাণ হবে না : পীরসাহেব চরমোনাই

৬ বছরের অপেক্ষা, অবশেষে চাকরি ফিরে পেলেন ইবি শিক্ষক

৬ বছরের অপেক্ষা, অবশেষে চাকরি ফিরে পেলেন ইবি শিক্ষক

চীনে গণহত্যার ৩৪ বছর! তিয়েনআনমেন স্কোয়ারে কঠোর নিরাপত্তা

চীনে গণহত্যার ৩৪ বছর! তিয়েনআনমেন স্কোয়ারে কঠোর নিরাপত্তা

আওয়ামী লীগের সামনে এখন দুটি পথ খোলা : মির্জা আব্বাস

আওয়ামী লীগের সামনে এখন দুটি পথ খোলা : মির্জা আব্বাস

নেই নিজস্ব আবাস, প্রায় ৬ কোটি টাকার ভাড়াবাড়িতে থাকেন আমাজনের মালিক!

নেই নিজস্ব আবাস, প্রায় ৬ কোটি টাকার ভাড়াবাড়িতে থাকেন আমাজনের মালিক!

সাধারণ মানুষ যাতে খুশি হয় সেভাবেই বাজেট তৈরি করা হয়েছে : কৃষিমন্ত্রী

সাধারণ মানুষ যাতে খুশি হয় সেভাবেই বাজেট তৈরি করা হয়েছে : কৃষিমন্ত্রী

‘মুসলিম লিগ ধর্মনিরপেক্ষ দল’, আমেরিকায় দাবি রাহুলের

‘মুসলিম লিগ ধর্মনিরপেক্ষ দল’, আমেরিকায় দাবি রাহুলের

শর্টগান ও দুই রাউন্ড গুলিসহ রূপসায় সন্ত্রাসী আটক

শর্টগান ও দুই রাউন্ড গুলিসহ রূপসায় সন্ত্রাসী আটক

মুদ্রাস্ফীতিতে শ্রীলঙ্কাকেও পিছনে ফেলল পাকিস্তান! বাড়ছে দেউলিয়া হওয়ার আশঙ্কা

মুদ্রাস্ফীতিতে শ্রীলঙ্কাকেও পিছনে ফেলল পাকিস্তান! বাড়ছে দেউলিয়া হওয়ার আশঙ্কা

মৃত্যু ছুঁয়েছে প্রায় ১০০! তবু দুঃসময় পেরিয়ে স্বাভাবিক হওয়ার পথে মণিপুর

মৃত্যু ছুঁয়েছে প্রায় ১০০! তবু দুঃসময় পেরিয়ে স্বাভাবিক হওয়ার পথে মণিপুর

আরও ৮৯ জনের করোনা শনাক্ত, ‍মৃত্যু ২

আরও ৮৯ জনের করোনা শনাক্ত, ‍মৃত্যু ২

একজনও কালো টাকা সাদা করেনি : অর্থমন্ত্রী

একজনও কালো টাকা সাদা করেনি : অর্থমন্ত্রী

সেনেগালে বিরোধী নেতার জেল, বিক্ষোভে নিহত ৯

সেনেগালে বিরোধী নেতার জেল, বিক্ষোভে নিহত ৯

খুবিতে ‘এ’ ইউনিটে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কাল, পরীক্ষার্থী ৮৮০৩

খুবিতে ‘এ’ ইউনিটে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কাল, পরীক্ষার্থী ৮৮০৩

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে স্বামীর বাড়ীতে কিশোরীর অনশন

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে স্বামীর বাড়ীতে কিশোরীর অনশন

রাজশাহীর পুঠিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত

রাজশাহীর পুঠিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে এক সন্তানের জননীর অনশন

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে এক সন্তানের জননীর অনশন