আইএমএফের ঋণ বিলম্বের পেছনে ইমরান খান: শেহবাজ শরীফ

Daily Inqilab অনলাইন ডেস্ক

১৬ মার্চ ২০২৩, ০১:১৭ এএম | আপডেট: ২২ মার্চ ২০২৩, ০৮:১৩ এএম

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার মেয়াদে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের ঋণ কর্মসূচি সচলের পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ। রাজপথে বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্য ইমরানের এজেন্ডার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল বলে দাবি করেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে শেহবাজ শরীফ বলেন, নিজে দোষী হওয়ায় পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ (পিটিআই) নেতা ভীরু ইমরান আদালতকে তদন্তের সুযোগ দেয়নি। মূল্যস্ফীতি ও অর্থনৈতিক চাপের ইস্যুগুলো থেকে জনগণকে সরাতে চায়নি অথবা জাতীয় সম্পদগুলোরও হাল ধরেনি। তার আদালত ফাঁকি দেওয়া কাপুরুষতার সমান।
প্রধানমন্ত্রীর উদ্ধৃতিতে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, প্রথমত ইমরান খান আইএমএফ কর্মসূচি ছেড়ে দিয়েছেন। এখন আদালতকে প্রতিরোধ করছেন। নিজের প্রতিশ্রুতি ও আদর্শ থেকেও বিচ্যুত হয়েছেন তিনি।
আগের সরকারের মেয়াদে নিজ দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ- নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর নেতাদের ওপর জুলুম নিপীড়নের অভিযোগ করে শেহবাজ বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের ওপর সবথেকে জঘন্য রকমের ওপর প্রতিশোধ নেওয়া হয়েছে। আমাদের ছেলে-মেয়েসহ পরিবার পরিজনদের আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে। পিএমএল-এন নেতৃত্ব ‘ডেথ সেলের’ অকথ্য নির্যাতন সহ্য করেছে।
বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ কমে ব্যাপক অর্থ সংকটে ভুগছে পাকিস্তান। দেশটির হাতে যে রিজার্ভ রয়েছে তা দিয়ে কয়েক সপ্তাহের আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব। এ অবস্থায় আইএমএফ থেকে প্রায় ৭ বিলিয়ন ডলার ঋণ চইছে দেশটির সরকার। তবে আইএমএফ প্রতিনিধি দলের সঙ্গে কয়েক দফা বৈঠকের পরও স্টাফ লেভেল কোনো চুক্তিতে পৌঁছাতে পারেনি সরকার।
ঋণ পেতে আগামী কয়েকমাসের মধ্যে রিজার্ভ পুনর্গঠনসহ পাকিস্তানকে বেশকিছু শর্ত জুড়ে দিয়েছে আইএমফ। ওই শর্তগুলো বাস্তবায়নের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান।


বিভাগ : আন্তর্জাতিক


আরও পড়ুন