ব্রেন ইমপ্লান্ট এক প্যারালাইজড মানুষকে আবার হাঁটতে সাহায্য করছে

Daily Inqilab অনলাইন ডেস্ক

২৪ মে ২০২৩, ০৯:৫৫ পিএম | আপডেট: ২৫ মে ২০২৩, ১২:০৩ এএম

একজন পক্ষাঘাতগ্রস্ত ব্যক্তি ইলেকট্রনিক ব্রেন ইমপ্লান্টের মাধ্যমে এটি সম্পর্কে চিন্তা করে সহজভাবে হাঁটতে সক্ষম হয়েছেন। প্রথম মেডিকেল ইলেকট্রনিক ব্রেন ইমপ্লান্টের পর ব্যক্তিটি বলেছেন যে, তার জীবন বদলে গেছে।-বিবিসি

৪০ বছর বয়সী ডাচ ব্যক্তি গের্ট-জান ওস্কাম ১২ বছর আগে একটি সাইকেল দুর্ঘটনায় পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়েছিলেন। তার মেরুদণ্ডে দ্বিতীয় ইমপ্লান্টের মাধ্যমে তার চিন্তাভাবনা ও অনুভূতির সংযোগ তার পায়ে প্রেরণ করে। সিস্টেমটি এখনও একটি পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে কিন্তু যুক্তরাজ্যের একটি নেতৃস্থানীয় মেরুদণ্ডী দাতব্য সংস্থা এটিকে "খুব উত্সাহজনক" বলে অভিহিত করেছে।

ওসকাম বিবিসিকে বলেন, আমি একটি ছোট বাচ্চার মতো অনুভব করছি, আবার হাঁটতে শিখছি। সে এখন দাঁড়াতে ও সিঁড়ি বেয়ে উঠতে পারে। তিনি বলেন, এটি একটি দীর্ঘ যাত্রা হয়েছে, কিন্তু এখন আমি দাঁড়াতে পারি এবং আমার বন্ধুর সাথে বিয়ার খেতে পারি। এটি একটি আনন্দের বিষয় যে, অনেকেই বুঝতে পারেন না।

নেচার জার্নালে প্রকাশিত এই ইলেকট্রনিক ব্রেন ইমপ্লান্টের নেতৃত্বে ছিলেন সুইস গবেষকরা। লুসান ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক জোসেলিন ব্লোচ, যিনি নিউরোসার্জন যিনি ইমপ্লান্ট ঢোকানোর জন্য সূক্ষ্ম অস্ত্রোপচার করেছিলেন। তিনি জোর দিয়েছিলেন যে, সিস্টেমটি এখনও একটি মৌলিক গবেষণা পর্যায়ে ছিল এবং পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগীদের জন্য উপলব্ধ হতে অনেক বছর দূরে ছিল।

কিন্তু তিনি বিবিসি নিউজকে বলেছিলেন যে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটিকে ল্যাব থেকে বের করে ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়াই ছিল মেডিকেল টিমটির লক্ষ্য। তিনি বলেন, আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটি শুধুমাত্র একটি বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা করা নয়। শেষ পর্যন্ত মেরুদণ্ডে আঘাতে আক্রান্ত আরও বেশি লোককে আরও অ্যাক্সেস দেওয়া, যারা ডাক্তারদের কাছ থেকে শুনতে অভ্যস্ত যে, তাদের এই সত্যে অভ্যস্ত হতে হবে যে তারা আর কখনও নড়াচড়া করবে না।


বিভাগ : আন্তর্জাতিক


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

অতীত তিক্ততা ভুলে মুইজ্জুকে মোদির ঈদ অভিনন্দন

অতীত তিক্ততা ভুলে মুইজ্জুকে মোদির ঈদ অভিনন্দন

বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও কোস্টগাডের টহল জোরদার -ভীতি ও আতঙ্ক কেটেছে দ্বীপবাসীর

বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও কোস্টগাডের টহল জোরদার -ভীতি ও আতঙ্ক কেটেছে দ্বীপবাসীর

ভারতে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা, নিহত বেড়ে ১৫

ভারতে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা, নিহত বেড়ে ১৫

ইজরায়েলের যুদ্ধকালীন বিশেষ মন্ত্রিসভা বাতিল করলেন নেতানিয়াহু

ইজরায়েলের যুদ্ধকালীন বিশেষ মন্ত্রিসভা বাতিল করলেন নেতানিয়াহু

ঈশ্বরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই কিশোরের মৃত্যু

ঈশ্বরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই কিশোরের মৃত্যু

সিলেট-সুনামগঞ্জে বন্যার অবনতি, উত্তরাঞ্চলে নদ-নদীর পানি বাড়ছেই

সিলেট-সুনামগঞ্জে বন্যার অবনতি, উত্তরাঞ্চলে নদ-নদীর পানি বাড়ছেই

কেউ মাংস দিতে চায় না, তাড়িয়ে দেয়

কেউ মাংস দিতে চায় না, তাড়িয়ে দেয়

পশু কোরবানি দিতে গিয়ে আহত ৯৪

পশু কোরবানি দিতে গিয়ে আহত ৯৪

হরিরামপুরে সাপের কামড়ে দেড় বছরের শিশুর মৃত্যু

হরিরামপুরে সাপের কামড়ে দেড় বছরের শিশুর মৃত্যু

ফৌজদারহাাটে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত

ফৌজদারহাাটে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত

৭ দিনে পদ্মা সেতুতে ২৫ কোটি ৭৩ লাখ টাকা টোল আদায়

৭ দিনে পদ্মা সেতুতে ২৫ কোটি ৭৩ লাখ টাকা টোল আদায়

যুদ্ধ মন্ত্রিসভা ভেঙে দিয়েছেন নেতানিয়াহু

যুদ্ধ মন্ত্রিসভা ভেঙে দিয়েছেন নেতানিয়াহু

কাদেরের বক্তব্যের জবাব দিতে ‘রুচিতে বাধে’ ফখরুলের

কাদেরের বক্তব্যের জবাব দিতে ‘রুচিতে বাধে’ ফখরুলের

ইউরোয় ‘বড় কিছুর’ লক্ষ্য রোনালদোর

ইউরোয় ‘বড় কিছুর’ লক্ষ্য রোনালদোর

ছোট পুঁজি নিয়েও আত্মবিশ্বাসী ছিলাম: শান্ত

ছোট পুঁজি নিয়েও আত্মবিশ্বাসী ছিলাম: শান্ত

কেন্দ্রীয় কৃষকলীগ নেতা সোহাগ তালুকদার আর নেই

কেন্দ্রীয় কৃষকলীগ নেতা সোহাগ তালুকদার আর নেই

জনগণের মধ্যে ‘ঈদের আনন্দ নেই: মির্জা

জনগণের মধ্যে ‘ঈদের আনন্দ নেই: মির্জা

ঈদ জামাতে মাথা ঘুরে পড়ে গেলেন আ জ ম নাছির

ঈদ জামাতে মাথা ঘুরে পড়ে গেলেন আ জ ম নাছির

সাড়ে ৩টার মধ্যে ৮০ শতাংশ বর্জ্য পরিষ্কার করেছে চসিক

সাড়ে ৩টার মধ্যে ৮০ শতাংশ বর্জ্য পরিষ্কার করেছে চসিক

মুসল্লীদের সাথে ভিজে ঈদ জামাতে শরীক হলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান

মুসল্লীদের সাথে ভিজে ঈদ জামাতে শরীক হলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান