রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব

সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জের মুখে জার্মানি

Daily Inqilab ইনকিলাব ডেস্ক :

২৫ জুলাই ২০২৩, ১১:২৭ পিএম | আপডেট: ২৬ জুলাই ২০২৩, ১২:০৩ এএম

১৯৯৯ সালে দ্য ইকোনমিস্ট জার্মানির অর্থনীতিকে ‘ইউরোপের অসুস্থ ব্যক্তি’ হিসাবে বর্ণনা করেছিল। তারপর, কয়েক বছরের সংস্কার সাধনের পর দেশটির অর্থনীতি পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়েছিল এবং রেকর্ড পরিমাণ কর্মসংস্থান এবং প্রবৃদ্ধির সাথে এটি ১৫টি সোনালী বছর অতিক্রম করেছে। কিন্তু এখন জার্মানি তার দুই অংশের পুনর্মিলনের পর থেকে এযাবৎকালের সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জে পতিত হয়েছে। যদিও মার্চে দেশটির চ্যান্সেলর ওলাফ শোল্জ দেশটির অর্থনীতির জন্য উচ্চ প্রবৃদ্ধির একটি পর্যায়ে বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, কিন্তু আইএফও’র মঙ্গলবার সূচক বলছে, জার্মানির ব্যবসায়িক আস্থা টানা তৃতীয় মাস পর্যন্ত হ্রাস পেয়েছে। এটি জুনের ৮৮.৬ শতাংশ থেকে জুলাইতে ৮৭.৩ শতাংশে পতিত হয়েছে।
করোনা মহামারি চলাকালে জার্মানি বিশ্বব্যাপী সরবরাহ ব্যবস্থা বাধাপ্রাপ্ত হয় এবং এর উৎপাদন খাত পুরোপুরি পুনরুদ্ধার হওয়ার আগেই, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হয়। ৬৩ শতাংশ জ¦ালানি নির্ভরতা অনুপাত (বনাম ইউ’র গড় ৫৭.৫শতাংশ)সহ, দেশটির প্রবৃদ্ধি আবার অসমভাবে প্রভাবিত হয়। জার্মানির জ¦ালানী-নিবিড় উৎপাদন খাতে পরিচালিত সংস্থাগুলির আর রাশিয়া থেকে সস্তা গ্যাসের স্থির প্রবাহের উপর নির্ভর করার সুযোগ নেই এবং তাদের অস্থির বৈশ্বিক জ¦ালানীল বাজারে যেতে হচ্ছে। এদিকে, দীর্ঘায়িত মহামারী লকডাউনের পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে বৈশ্বিক বাণিজ্য পরিস্থিতিরও অবনতি ঘটেছে।
একদিকে, চীনের তার অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের সংগ্রাম করছে এবং অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্র তার মুদ্রাস্ফীতি মোকাবেলায় ঋণের হারে চরম বৃদ্ধির কারণে শ্লথ হয়ে যাচ্ছে। এর আগে, যুক্তরাষ্ট্র ইউরোপীয় ইস্পাত এবং অ্যালুমিনিয়ামের উপর শুল্ক আরোপ করেছে, আরও সম্প্রতি ৩৬হাজার ৯শ’ কোটি ডলারের ‘মুদ্রাস্ফীতি হ্রাস আইন’র মাধ্যমে ‘মার্কিন কিনুন’ এর উপর জোর দিয়ে শুধুমাত্র যুক্তরাষ্ট্রে উৎপাদন করতে ইচ্ছুক প্রতিষ্ঠানগুলিকে ভর্তুকি প্রদান করেছে। প্রাচ্যে চীন নির্দিষ্ট কিছু খাতে জার্মানির আধিপত্য হ্রাস করে দিচ্ছে। কারণ বেইজিং দুষণমুক্ত জ¦ালানী এবং পরিবহনের মতো কৌশলগত খাতকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে।
২০২৩ সালের প্রথম ত্রৈমাসিকে চীন থেকে জার্মানিতে রপ্তানি করা বৈদ্যুতিক গাড়ির অংশ ছিল তিনগুণেরও বেশি। এটি একটি উদ্বেগজনক লক্ষণ যে, জার্মানির মূল্যবান গাড়ি শিল্পের তেল দহন করা ইঞ্জিনগুলির চাহিদা কমে যাওয়ায় দেশটির পরিবর্তনের গতি বজায় রাখতে লড়াই করছে। রাজনৈতিক ক্ষেত্রে জার্মানির জন্য চীনের উপর তার একতরফা নির্ভরতা কমানোর আহ্বান বাড়ছে। বৈদেশিক বাণিজ্য মডেলের বিপর্যয় নিয়ে জার্মানি প্রবৃদ্ধির জন্য শুধুমাত্র অভ্যন্তরীণ চাহিদার উপর নির্ভর করতে পারছে না।
উচ্চ মূল্যস্ফীতি, ক্রমবর্ধমান সুদের হার এবং প্রকৃত মজুরির হ্রাস অভ্যন্তরীণ ভোক্তাদের অনুৎসাহিত করছে, যা চলতি বছরের প্রথম তিস মাসে ১.২ শতাংশ কমেছে। তারওপর, জার্মানির জনসংখ্যায় বার্ধক্য পাচ্ছে। এটি মোকবেলা করতে বছরে ৪ লাখ দক্ষ বিদেশী কর্মী আনার প্রয়োজন। ডিজিটালাইজেশনের দিক থেকেও পিছিয়ে রয়েছে জার্মানি। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের এই সময়ে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য এর নিজস্ব কোনও প্রযুক্তি নেই। দেশটির লেনদেন চক্রটির ইউরোজোনের বাকি অংশের সাথে সমন্বয় সাধন করা হয়নি, যা এর নীতিগত ভুলের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলেছে। এর অর্থ হল যে, জার্মানির দীর্ঘায়িত মন্দা তার সীমানা ছাড়িয়ে অনুভূত হবে।
২৪ কোটি জনসংখ্যা সহ দেশটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের বৃহত্তম ভোক্তা বাজার। ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলি যারা জার্মানিকে তাদের এক নম্বর বাণিজ্য অংশীদার হিসাবে গণ্য করে, তাদের মধ্যে রয়েছে ফ্রান্স, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, পোল্যান্ড, সেøাভাকিয়া এবং লুক্সেমবার্গ। তাই জার্মানি যদি আরও একবার ‘ইউরোপের অসুস্থ ব্যাক্তি’ হয়ে ওঠে, তাহলে এর বানিজ্যিক অংশীদাগুলিও সম্ভবত অসুখে আক্রান্ত হবে। সূত্র:অর্থনীতিবিদ, বিআইএল।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

কুষ্টিয়ায় পরকীয়ার জেরে যুবককে পিটিয়ে হত্যা, আটক ৩

কুষ্টিয়ায় পরকীয়ার জেরে যুবককে পিটিয়ে হত্যা, আটক ৩

কুষ্টিয়ায় বালু বোঝাই ট্রলি চাপায় বৃদ্ধা নিহত

কুষ্টিয়ায় বালু বোঝাই ট্রলি চাপায় বৃদ্ধা নিহত

বঙ্গোপসাগরে শক্তিশালী হচ্ছে নিম্নচাপ, আঘাত হানতে পারে যেসব জেলায়

বঙ্গোপসাগরে শক্তিশালী হচ্ছে নিম্নচাপ, আঘাত হানতে পারে যেসব জেলায়

মার্কিন সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার ডিক্রিতে সাক্ষর করলেন পুতিন

মার্কিন সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার ডিক্রিতে সাক্ষর করলেন পুতিন

আজিজের নিষেধাজ্ঞা ও বেনজীরের সম্পদ ক্রোক জাতির জন্য লজ্জার : ডা. শাহাদাত

আজিজের নিষেধাজ্ঞা ও বেনজীরের সম্পদ ক্রোক জাতির জন্য লজ্জার : ডা. শাহাদাত

অবরুদ্ধ গাজায় কোরআন পোড়াচ্ছেন ইসরায়েলি সেনারা

অবরুদ্ধ গাজায় কোরআন পোড়াচ্ছেন ইসরায়েলি সেনারা

কৈলাশটিলা-৮ কূপ থেকে প্রতিদিন মিলবে ২১ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস

কৈলাশটিলা-৮ কূপ থেকে প্রতিদিন মিলবে ২১ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস

একাকী নামাজ পড়ার সময় ইকামত দেওয়া প্রসঙ্গে।

একাকী নামাজ পড়ার সময় ইকামত দেওয়া প্রসঙ্গে।

জলাবদ্ধতার নিরসন চাই

জলাবদ্ধতার নিরসন চাই

রাশিয়া মহাকাশে উপগ্রহ বিধ্বংসী অস্ত্র উৎক্ষেপন করেছে: যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়া মহাকাশে উপগ্রহ বিধ্বংসী অস্ত্র উৎক্ষেপন করেছে: যুক্তরাষ্ট্র

ফরিদপুরে বোমায় উড়ে গেল যুবকের আঙ্গুল চোখ ও কনুই

ফরিদপুরে বোমায় উড়ে গেল যুবকের আঙ্গুল চোখ ও কনুই

ইন্দুরকানীতে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

ইন্দুরকানীতে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

ঘুমের মধ্যেই মৃত্যু ‘বিশ্বের সবচেয়ে সুখী কুকুর’ কাবোসুর

ঘুমের মধ্যেই মৃত্যু ‘বিশ্বের সবচেয়ে সুখী কুকুর’ কাবোসুর

কালিয়াকৈরে ভয়াবহ আগুনে কলোনির শতাধিক ঘর পুড়ে ছাই

কালিয়াকৈরে ভয়াবহ আগুনে কলোনির শতাধিক ঘর পুড়ে ছাই

শেষ পর্যস্ত শাভিকে ছাঁটাই করল বার্সা

শেষ পর্যস্ত শাভিকে ছাঁটাই করল বার্সা

নেত্রকোণার পূর্বধলায় চিরকুট লেখে ট্রেনের নীচে ঝাঁপ দিয়ে নারীর আত্মহত্যা

নেত্রকোণার পূর্বধলায় চিরকুট লেখে ট্রেনের নীচে ঝাঁপ দিয়ে নারীর আত্মহত্যা

বিএনপি-জামায়াত দেশের রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করছে : নাছিম

বিএনপি-জামায়াত দেশের রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করছে : নাছিম

মাঠে নামতে মুখিয়ে আছে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান

মাঠে নামতে মুখিয়ে আছে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান

২১শ’ সাল নাগাদ বিশ্বে শিশু জন্মের হার ১.৭ শতাংশে নামবে

২১শ’ সাল নাগাদ বিশ্বে শিশু জন্মের হার ১.৭ শতাংশে নামবে

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, ২ শতাধিক শেড পুড়ে ছাই

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, ২ শতাধিক শেড পুড়ে ছাই