কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অপকাণ্ড তদন্তে দুদকে চিঠি ওই গাড়িচালক অনেক প্রভাবশালী ছিল : পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক পিএসসি আবেদ গংদের দায় এড়াতে পারে না : সাবেক সচিব আবু আলম শহীদ খান

পিএসসিতে আতঙ্ক

Daily Inqilab পঞ্চায়েত হাবিব

১১ জুলাই ২০২৪, ১২:০১ এএম | আপডেট: ১১ জুলাই ২০২৪, ১২:০১ এএম

পুলিশের সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদ কর কমিশনার মতিউর রহমানের মহাদুর্নীতি নিয়ে হৈচৈ রেশ কাটেনি। এরমধ্যে প্রশ্নফাঁসের জালে ধরা পড়েছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি) সাবেক চেয়ারম্যানের ড্রাইভার, সাবেক ও বর্তমান কয়েকজন কর্মকর্তা। ছোট চাকরি করে তারা টাকার পাহাড়ে বসবাস করছেন। এসব ঘটনায় সারাদেশে চলছে তোলপাড়। গতকাল পিএসসির থেকে দুর্নীতি দমন কমিশনে চিঠি দিয়ে গ্রেফতারকৃত এবং বরখাস্ত কর্মকর্তাদের সম্পর্কে তদন্তের অনুরোধ জানিয়েছে। এতে করে পিএসসির পিয়ন থেকে শুরু করে উচ্চপদস্থ দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে দেখা দিয়েছে আতঙ্কে। গ্রেফতারকৃতরা কার কার নাম বলেন সে ভয়ে ভীত। আবার দুদক কখন কার দুর্নীতি ধরে ফেলে তা নিয়েও উদ্বেগ। সামনে বিপদ আতঙ্কে মূখে কুলুপ এটেছেন বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) কর্মকর্তা-কর্মচারিরা। সাংবাদিক পরিচয়ে কারো ফোন পেলেই অনেকেই আঁতকে উঠছেন। চাকরিতে থাকা কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পাশাপাশি অবসরে যাওয়া অনেকেই আতঙ্কে রয়েছেন। কখন কার নাম দুর্নীতির আমলনামাসহ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ পেয়ে যায়। এসব ঘটনায় সরকারের অনেক অধিদপ্তর সংস্থার মতো পিএসসির পিয়ন থেকে শুরু উচচপদস্থ দুর্নীতিবাজরা রয়েছেন আতঙ্কে। কয়েকজন পরিচালক ও উপ-পরিচালক আগারগাঁওসহ রাজধানীতে একাধিক প্লট-ফ্ল্যাটের মালিক। আবেদ আলীর শীর্ষ অনেকেই গুরুত্বপূর্ণ পদে ঘাঁপটি মেরে বসে আছে পিএসসিতে। রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগ দেয়ার কারণে পিএসসিতে দুর্নীতি বাড়ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।
বিসিএসসহ বিভিন্ন সরকারি চাকরিতে নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা নিয়ে ‘বড় প্রশ্নের’ মুখে পড়েছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। গত ১২ বছরে অন্তত ৩০টি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর চরম আস্থার সংকটে পড়েছে সাংবিধানিক এ প্রতিষ্ঠানটি। জনমনে যে বিরূপ প্রভাব পড়েছে, তা কাটিয়ে আস্থা ফেরাতে এখন মরিয়া পিএসসি। এজন্য প্রশ্নফাঁসে জড়িতদের ধরতে করা হয়েছে তদন্ত কমিটি। পুরোদমে কাজও শুরু করেছেন কমিটির সদস্যরা। স্বাধীনভাবে কাজ করার এখতিয়ার দেওয়ায় সব পক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন তারা। পিএসসির কর্মকর্তা-কর্মচারী থেকে শুরু করে প্রশ্ন প্রণয়নকারী এবং বিশেষজ্ঞ; কাউকেই সন্দেহের বাইরে না রেখে চলছে তদন্তকাজ বলে কমিটির সদস্যরা জানান।
সম্প্রতি বেসরকারি একটি টেলিভিশনের অনুসন্ধানে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস) প্রশ্নফাঁস নিয়ে বেরিয়ে আসে থলের বিড়াল। গত ১২ বছরে ৩০টি নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠে। আর এসব ফাঁস করা প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন অনেকেই। তাদের অনেকে এখন বিভিন্ন ক্যাডারে চাকরিও করছেন। যারা ফাঁস হওয়া প্রশ্নে টাকার বিনিময়ে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বর্তমানে চাকরি করছেন প্রশ্নফাঁস-কাণ্ডে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আসার পর তারাও আতঙ্কে রয়েছেন। ৩৩তম বিসিএস পরীক্ষায় ১০ জন প্রার্থীর কাছে প্রশ্ন ফাঁস করেছেন। এর মধ্যে তিনজন বর্তমানে বিভিন্ন ক্যাডারে চাকরি করছেন। এছাড়াও সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও রেলের বিভিন্ন নিয়োগে তার হাত ছিল এ চক্রের বলে জানা গেছে।
এছাড়া ৩৪তম বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) পরীক্ষা নিয়ে একের পর এক অনিয়ম ও কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠছে। গত ২০১৫ সালে ২৯ আগস্ট ফল প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই চারদিক থেকে অভিযোগ উঠতে থাকে মৌখিক পরীক্ষায় ব্যাপক কারচুপি ও অনৈতিক সুবিধা দেওয়ার বিষয়ে। ৩৪তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী নিজের মুখে স্বীকারও করেছেন, তাঁরা মৌখিক পরীক্ষায় সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) কয়েকজন সদস্যের কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা পেয়েছেন। ৩৪তম বিসিএস পরীক্ষার ফল বাতিলের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ২০১৫ সালে ৫ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া স্মারকলিপিতে এ পরীক্ষায় অনিয়ম-দুর্নীতি ও অসংগতির নানা দিক তুলে ধরেছেন। ওই স্মারকলিপিতে পরীক্ষা বাতিল করার জন্যও অনুরোধ করা হয়েছে।
এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির প্রধান পিএসসির যুগ্মসচিব ড. আব্দুল আলীম খান ইনকিলাবকে বলেন, আমাদের তদন্তকাজ সম্পন্ন করার জন্য ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়েছে। যেসব ইস্যু নিয়ে কাজ করতে বলা হয়েছে, সেগুলো নিয়ে আমরা স্বাধীনভাবে কাজ করছি। গত সোমবার রাতে তদন্ত কমিটি গঠনের পরই অন্য দুজনের সঙ্গে আমার আলাপ হয়েছিল। গতকাল মঙ্গলবার আমরা বসেছিলাম। এটা নিয়েই এখনো কাজ করছি। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শেষে প্রতিবেদন দিতে পারবো আশা করছি।
এবিষয়ে ৮২ ব্যাচের সাবেক আবু আলম শহীদ খান ইনকিলাবকে বলেন,বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) এর দায় এড়াতে পারে না। গত ১২ বছরে ৩০টি নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠেছে তা তদন্ত করে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। একই সাথে এসব ফাঁস করা প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে তা চাকরি করেছেন তাদের তালিকা করে বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি আরো বলেন, অনেক আগে বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) একটি প্রস্তাব করেছিলো তাদের পরীক্ষা নেয়ার সক্ষমতা রয়েছে কিন্তু ২য় শ্রেনীর কর্মকর্তাদের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়ার জন্য আলাদা পিএসসি করতে হবে। এ বিষয়টি কি হলো তা জানা নাই। তবে পিএসসি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো করতে পারে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, এই দুর্নীতি চক্রের বড় একটি অংশ প্রমোটি থেকে লোভনীয় ও বড় পদ দখল করে প্রধান কার্যায়ে বসে থাকা কর্মকর্তা আছেন।এদের মধ্যে পিএসসির পরীক্ষার (নন-ক্যাডার) পরিচালক মো. শাহআলম মিঞা, মন্ত্রণালয় িিত্ত শাখা বণ্টন ইউনিট-০১ এর উপ-পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম, পিএসসির ইউনিট-০৩ এর উপ-পরিচালক এস এস এম গিয়াসউদ্দীন এর নাম সমস্বরে উচ্চারিত হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে বিভিন্ন সময়ের নানা অনিয়ম ও দুনীতির অভিযোগ। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ, ভূয়া নিয়োগপত্র দিয়ে অনেক পর্গীার্থীর সর্বস্ব লুটে নেওয়া ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পরও পিএসসির উদ্ধর্তনদের নিরব ভূমিকা পালন করা নিয়ে নানা প্রশ্ন, কারো বিরুদ্ধে প্রশ্নফাঁস ও চাকরি দেয়ার নামে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ, আবার কারো বিরুদ্ধে পাশাপাশি আসন বণ্টন করে দিয়ে বড় অংকের উৎকোচ নেয়ার অভিযোগ। অদৃশ্য কারো কিংবা প্রভাবশালী এলাকার নাগরিক হওয়ার সুবাধে তাদের অনিয়ম নিয়মে পরিণত হয়েছে। এই চক্রের রাজধানীর পশ্চিম আগারগাঁও পানির ট্যাংকি এলাকায় রয়েছে একাধিক ফ্ল্যাট-প্লট। দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বিভিন্ন উৎস থেকে অবৈধ পন্থায় উপার্জিত অর্থ দিয়ে অট্টালিকা গড়ে তোলায় আগারগাঁও এলাকাটি কতিপয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তার বিলাসী জীবন-যাপনের কারণে পিএসসি পল্লী নামে পরিচিত পেয়েছে। এর বাইরে রাজধানীর কয়েকটি এলাকায় রয়েছে ফ্ল্যাট ও প্লট। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিষয়ে পারিবারিক আমলনামা চেয়ে নোর্টিশ করলেই দুর্নীতির ফাঁদে আটকে যাবেন বেনজীন ও মতিউর এর মতো ওই সব কর্মকর্তারা বলে নাম প্রকাশ না কররা শর্তে কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এই চক্রের বাইরে অবসরে যাওয়া কয়েকজন কর্মকর্তার নামও উঠে এসেছে। সাবেক ড্রাইভার আবেদ আলীর পাশাপাশি সাবেক উপ-পরিচালক মোছাদ্দেকসহ কয়েকজনের নাম জোরেশেেোর উচ্চারিত হচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক কর্মকর্তারা ইনকিলাবকে বলেন, আবেদ আলীকে ঢাল হিসেবে ব্যবহা করা হচ্ছে। জাফর গং চক্রের সঙ্গে বড় শক্তিশালী গ্রুপ রয়েছে।গণমাধ্যমে লেখালেখি বন্ধ হলে কয়েকদিন আলোচনার পরই ্এই চক্রই ফের সক্রিয় হয়ে উঠবে। তাদের শাস্তি নামমাত্র। এর আগেও পিএসসিতে এমন নজির রয়েছে।
রেলওয়ের নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় বর্তমানে চাকরি থেকে বরখাস্ত ও পুলিশের হেফাজতে থাকা পিএসসির উপ-পরিচালক মো. আবু জাফর ও মো. জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী পরিচালক মো. আলমগীর কবির, সাবেক সেনা সদস্য নোমান সিদ্দিকী, অডিটর প্রিয়নাথ রায়, ব্যবসায়ী মো. জাহিদুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসের নিরাপত্তা প্রহরী শাহাদাত হোসেন, ঢাকার ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অফিসে কর্মরত মো. মামুনুর রশীদ ও শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মেডিকেল টেকনিশিয়ান মো. নিয়ামুন হাসান। দুর্নীতির হোতা পিএসসির সাবেক তিনজন চেয়ারম্যানের ড্রাইভার আবেদ আলী চক্রের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানে ঘাঁপটি মেরে থাকা রফিক, গিয়াস ও শাহআলম চক্রটি বলেও সূত্র নিশ্চিত করেছে। এর বাইরে সাবেক আলোচিত দুর্নীতিবাজ সেচ্ছায় অবসরে পাঠানো কর্মকর্তা মোছাদ্দেক এর নাম-ও রয়েছে।
জানা গেছে, প্রমোটি থেকে অফিসার হওয়া সাবেক উপ-পরিচালক মোছাদ্দেকের বিরুদ্ধে ছিলো নানা অনিয়মের অভিযোগ। তার গ্রামের বাড়ি বাগেরহাটে। পিএসসির পরীক্ষা শাখার (নন-ক্যাডার) দায়িত্ব পালনের সময়ে মূলত তার বিরুদ্ধে অনিয়মে অভিযোগ উঠে। সেই সময়ে তিনি বিসিএসসহ প্রথম শ্রেণির নানা পরীক্ষায় বাড়তি সুবিধা পাইয়ে দেয়ার নাম করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেন বলে অভিযোগ উঠে। অনিয়মের কারণে তাকে শাস্তির আওতায় আনার প্রক্রিয়া শুরু করলে সাবেক পিএসসি সদস্য আবুল কালাম আজাদের সুপারিশে শাস্তির বদলি সেচ্ছায় অবসরে যাওয়ার পথ তৈরি করে দুর্নীতির অভিযোগ থেকে দায়মুক্তি দেয়া হয় মোছাদ্দেককে। আর পিএসসির পরীক্ষা শাখার (নন-ক্যাডার) বর্তমান পরিচালক শাহআলম মিঞার বিরুদ্ধে রয়েছে বিভিন্ন অভিযোগ। তার নিজ জেলা টাংগাইল। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এর মধ্যে শিক্ষার্থীদের খাঁতা পরিবর্তন করে নম্বর বাড়িয়ে দেয়া, প্রশ্নফাঁস করে বাড়তি সুবিধা পাওয়ার জন্য দেশজুড়ে সিন্ডিকেট গড়ে তোলা এবং পরীক্ষায় পাশাপাশি আসন বণ্টন করে দেয়া। এই কর্মকর্তা রাজধানীতেই ২৭টি ফ্ল্যাটের মালিক। এটি পিয়ন থেকে শুরু করে পিএসসির কর্মকর্তা সবাই জানেন বলে জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কর্মকর্তা। আর পিএসসির প্রশাসন শাখা-০১ এর দায়িত্ব পালনের সময়ে বর্তমান সহকারী পরিচালক এস এস এম গিয়াসউদ্দীন অনিয়মে জড়িয়ে পড়েন। বর্তমানে তিনি মন্ত্রণালয় ভিত্তিক ইউনিট-০৩ শাখা উপ-পরিচালক। জন-প্রশাসন মন্ত্রীর এলাকার নাগরিক দাবী করা এই প্রমোটি থেকে অফিসার হওয়া গিয়াসউদ্দীন সাধারণ শিক্ষার্থীদের চাকরির নামে ভূয়া নিয়োগপত্র দিয়ে আলোচনায় উঠে আসেন। এখান থেকে হাতিয়ে নেন মোটা অংকের টাকা। ভূয়া তৈরি করা নিয়োগপত্রে চাকরি না হওয়া ভুর্ক্তভোগী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার অভিযোগ জানিয়ে আবেদন করেন। রহস্যজনক কারণে চাকরিচ্যুত কিংবা শাস্তি বদলে পিএসসিতে বীরদর্পে চাকরি করে যাচ্ছেন।
পিএসসির খুলনা আঞ্চলিক অফিসের উপ-পরিচালক রফিকুল ইসলাম সেখানে দায়িত্ব পালনকালে কিছু শিক্ষার্থীকে পাশাপাশি আসন বণ্টন করে দিয়ে হাতিয়ে নেন বিপুল পরিমাণ টাকা। এ খবরটি চাওর হলে তদন্ত করার উদ্যোগ নেয় পিএসসি বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেন। গোপালগঞ্জের বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম বর্তমানে পিএসসির ইউনিট-০১ শাখার উপ-পরিচালক। রহস্যজনক কারণে তার বিরুদ্ধে উঠা এই অভিযোগ ধামাচাপা পড়ে আছে। তার কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে খুলনায় চাকরি করার কথা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, আসন বণ্টনের বিষয়ে তার কিছু জানা নেই। তদন্ত করার বিষয়টি তার অজানা।
এছাড়া শাহআলম ও গিয়াসউদ্দীনের ব্যক্তিগত সেলফোন নং ফোন করা হয়। রিং হলেও রিসিভ না করায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। তবে পিএসসির সদস্য কে এমে আলী আজমের কাছে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে জানতে তিনি বলেন, আপাতত আমরা কোনো মন্তব্য করব না। পিএসসির যাবতীয় ইস্যুতে কথা বলবেন চেয়ারম্যান নিজেই।
পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ড. মোহাম্মদ সাদিক বলেছেন, সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) সাবেক গাড়িচালক আবেদ আলী পিএসসিতে অনেক প্রভাবশালী ছিল। তার প্রভাব এতোটাই ছিল তাকে বরখাস্ত করার পর চাকরিচ্যুত করতে অনেক বেগ পেতে হয়েছে পিএসসির তৎকালীন দায়িত্বশীলদের। গনমাধ্যমকে বলেন, পিএসসিতে ২০১৪ সালের তিন নভেম্বর যখন যোগদান করি, তখনই গিয়ে ‘আবেদ আলী-আবেদ আলী’ নাম শুনেছি, কিন্তু তার সঙ্গে দেখা হয়নি কখনও। এবার গণমাধ্যমে তার ছবি বা ভিডিও ফুটেজ দেখেছি।তিনি জানান, ‘আবেদ আলীকে নানা কুকর্মের জন্য বরখাস্ত করার পর তার অনিয়ম দুর্নীতির বিষয়টি তদন্ত করার জন্য যে তদন্ত কমিটি হয়েছিল, তাদেরকেও শুনেছি অনেক কঠোর হতে হয়েছিল। পিএসসির এই সাবেক চেয়ারম্যান জানান, ড. জিনাতুন নেসা তাহমিদা বেগম ও এটিএম আহমেদুল হক চৌধুরী যখন পিএসসি চেয়ারম্যান ছিলেন, তখন আবেদ পিএসসির চেয়ারম্যানের গাড়ি চালক ছিল। ইকরাম আহমদ যখন চেয়ারম্যান ছিলেন,তখন সে বরখাস্ত হয়। পরে তাকে চাকরিচ্যুতও করা হয়। ৩৪তম বিসিএস থেকে ৪০তম ব্যাচের প্রিলি পর্যন্ত সময়কালে আমি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছি।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

প্রেসক্লাব, সেগুনবাগিচায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা কর্মীদের সংঘর্ষ

প্রেসক্লাব, সেগুনবাগিচায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা কর্মীদের সংঘর্ষ

সারা দেশে ট্রেন চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ

সারা দেশে ট্রেন চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ

গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকা টাইমসের সাংবাদিক নিহত

গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকা টাইমসের সাংবাদিক নিহত

রুহুল কবির রিজভী আটকের দাবি

রুহুল কবির রিজভী আটকের দাবি

আন্দোলন নিয়ে বিতর্কিত স্ট্যাটাস দিলেন ঢাকাই সিনেমার চিত্রনায়িকা শিরিন শিলা

আন্দোলন নিয়ে বিতর্কিত স্ট্যাটাস দিলেন ঢাকাই সিনেমার চিত্রনায়িকা শিরিন শিলা

ভৈরবে থানা ঘেরাও করলেন আন্দোলনকারীরা, গুলি, আহত শতাধিক

ভৈরবে থানা ঘেরাও করলেন আন্দোলনকারীরা, গুলি, আহত শতাধিক

রাজধানীতে সব ধরনের সভা-সমাবেশ ও মিছিল নিষিদ্ধ করেছে ডিএমপি

রাজধানীতে সব ধরনের সভা-সমাবেশ ও মিছিল নিষিদ্ধ করেছে ডিএমপি

মেধার ভিত্তিতে ৮০ শতাংশ কোটার প্রস্তাব দেবে সরকার: ওবায়দুল কাদের

মেধার ভিত্তিতে ৮০ শতাংশ কোটার প্রস্তাব দেবে সরকার: ওবায়দুল কাদের

শুক্রবারও ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ চলবে

শুক্রবারও ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ চলবে

ঢাকা–চট্টগ্রাম মহাসড়কের যাত্রাবাড়ী, শনির আখড়া এলাকায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আজ শুক্রবারও পুলিশের সংঘর্ষ চলছে

ঢাকা–চট্টগ্রাম মহাসড়কের যাত্রাবাড়ী, শনির আখড়া এলাকায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আজ শুক্রবারও পুলিশের সংঘর্ষ চলছে

কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার

কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার

দেশজুড়ে বিক্ষোভ, সংঘর্ষ–গুলি, নিহত ২৭

দেশজুড়ে বিক্ষোভ, সংঘর্ষ–গুলি, নিহত ২৭

অস্ত্র জমা দিয়েছি কিন্তু ট্রেনিং জমা দিইনি : মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

অস্ত্র জমা দিয়েছি কিন্তু ট্রেনিং জমা দিইনি : মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

সংঘর্ষের সময় যাত্রাবাড়ীতে গুলিবিদ্ধ হয়ে সাংবাদিক নিহত

সংঘর্ষের সময় যাত্রাবাড়ীতে গুলিবিদ্ধ হয়ে সাংবাদিক নিহত

রক্ত মাড়িয়ে কোনো সংলাপ নয় : বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন

রক্ত মাড়িয়ে কোনো সংলাপ নয় : বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন

বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ

বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ

শিক্ষার্থীদের উপর বর্বরোচিত হামলা ও হত্যাকাণ্ডে ইত্তেফাকুল উলামার উদ্বেগ

শিক্ষার্থীদের উপর বর্বরোচিত হামলা ও হত্যাকাণ্ডে ইত্তেফাকুল উলামার উদ্বেগ

সৈয়দপুর কোটা বিরোধী আন্দোলন পুলিশ বক্সে আগুন

সৈয়দপুর কোটা বিরোধী আন্দোলন পুলিশ বক্সে আগুন

সিলেটে বিএনপি নেতা কয়েছ লোদীকে আটক করেছে পুলিশ

সিলেটে বিএনপি নেতা কয়েছ লোদীকে আটক করেছে পুলিশ

রংপুরে আ.লীগ-ছাত্রলীগের অফিসে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ

রংপুরে আ.লীগ-ছাত্রলীগের অফিসে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ