পাপ বদআমলের কারণে ভূমিকম্প দেন আল্লাহ জুমার খুৎবা পূর্ব বয়ান

Daily Inqilab স্টাফ রিপোর্টার

০৫ মে ২০২৩, ০৬:২৪ পিএম | আপডেট: ০৬ মে ২০২৩, ১২:০১ এএম

আল্লাহ আমাদের পাপ বদআমলের কারণে ভূমিকম্প দেন। আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য আমাদেরকে তওবাহ করে গুনার কাজ পরিহার করে আল্লাহর দিকে ফিরে আসতে হবে। আজ জুমার খুৎবা পূর্ব বয়ানে খতিব এসব কথা বলেন।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব মুফতি মো. রুহুল আমিন আজ জুমার খুৎবাপূর্ব বয়ানে বলেন, মহান আল্লাহ ছোট ছোট আজাব গজব দিয়ে বান্দাদের তার পথে ফিরিয়ে আনতে সর্তক করেন। আখেরি জমানায় মানুষ নাফরমানিতে ডুবে থাকে। আল্লাহ ইচ্ছা করলে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে সব ধ্বংস করে দিতে পারেন। আল্লাহ কোনো জাতিকে ঢিল দিলে তারা আমোদ ফ‚র্তিতে ডুবে থাকেন। খতিব বলেন, গতকাল ঢাকায় ভ‚মিকম্প হয়ে গেলো। আল্লাহ আমাদের পাপ বদআমলের কারণে ভ‚মিকম্প দেন। আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য আমাদেরকে তওবাহ করে গুনার কাজ পরিহার করে আল্লাহর দিকে ফিরে আসতে হবে। আল্লাহর ক্ষমা ও নৈকট্য লাভের জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে হবে। মহাখালীস্থ মসজিদে গাউছুল আজমের খতিব প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক আজ জুমার খুৎবার বয়ানে বলেন, ইতিহাসে শান্তির ধর্ম ইসলামই প্রথম শ্রমিকের প্রতি সদয় হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। দিয়েছে সম্মান, মর্যাদা ও স্বীকৃতি। অপরদিকে অন্যান্য ধর্মে শ্রমিক বলতে দাসত্ব ও বশ্যতাকে বুঝানো হতো। শ্রমিকরা লাঞ্চিত ও অপমানিত, নিগৃহীত হতো ইসলাম ব্যতিত অন্যান্য ধর্মসমূহে। ইসলাম সমাজের আর দশজন সদস্যের মতো নাগরিক হিসেবে শ্রমিকদের অধিকারগুলোর স্বীকৃতি দিয়েছে। শ্রমিক হিসেবে তাদের অধিকার নিশ্চিত করতে সমাজে অনেক নিয়ম নীতি প্রবর্তন করেছে। যাতে সামাজিক সাম্য প্রতিষ্ঠা হয়। ইহ ও পরকালীন জীবনে তাদের ও তাদের পরিবারের সম্মানিত জীবন লাভ হয়। একইভাবে ইসলাম মনিব বা মালিকের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে শ্রমিকের সঙ্গে মানবিক ও সম্মানজনক আচরণ করতে। তার প্রতি মমতা ও মানবতা দেখাতে। তার সঙ্গে সদ্ব্যবহার করতে। শ্রমিকের সাধ্যাতীত কাজের নির্দেশ প্রদান থেকে মনিবকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। ন্যায্য পাওনা মিটিয়ে দেয়ার ব্যাপারেও সুস্পষ্ট নির্দেশনা ইসলাম দিয়েছে। রাসূল (সা.) বলেছেন শ্রমিকের শরীরের ঘাম শুকানোর পূর্বেই তাঁর ন্যায্য পাওনা মিটিয়ে দাও।

মনিব ও শ্রমিকের বিষয়ে পবিত্র কোরআনেও অসংখ্য আয়াত উল্লেখ রয়েছে। যেখানে মনিবের প্রতি শ্রমিকের কর্তব্য ও শ্রমিকের প্রতি মনিবে দায়িত্ব সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। আজ সমাজের কোন স্তরেই মালিক ও শ্রমিকের মাঝে ইসলাম যে সম্পর্ক স্থাপনের কথা বলেছে, তা দেখা যায় না। ফলে সমাজে সাম্য প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে না। গরিবরা ক্রমশ আরো গরিব হচ্ছে, ধনীরা ফুলেফেঁপে আরো সম্পদের পাহাড় গড়ছে। এর দরুণ ক্রমশই সমাজে বিশৃঙ্খলা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আসুন আমরা শ্রমিকরা মনিবের প্রতি আরো বিনয়ী ও সম্মান প্রদান করি। মনিবেরা শ্রমিকদের প্রতি সহানুভুতির দৃষ্টি দিয়ে নিজ সহদরের মত সম্পর্ক স্থাপন করি। তাহলেই সুন্দর ও সুশৃঙ্খল একটি সমাজ বাস্তবায়ন হবে ইনশাআল্লাহ।

মিরপুরের ঐতিহ্যবাহী বাইতুল মামুর জামে মসজিদের খতিব মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী আজ জুমার খুৎবা পূর্ব বয়ানে বলেন, ইসলামে মুমিনের জন্য ধৈর্য্য একটি মহৎ গুণ । ধৈর্য্যশীলতার মাঝেই মানুষের উন্নতি অগ্রগতি ও পারলৌকিক মুক্তি । ধৈর্য্য দুনিয়ার ফিতনা ফাসাদ , ঝগড়া বিবাদ ও কলহ দ্ব›দ্ব থেকে পরিত্রাণের অন্যতম উপায়। পরকালে জান্নাত লাভের পথ। রাসূল সাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, যে ধৈর্য্য ধারণ করলো সে জান্নাতে প্রবেশ করলো। (আল হাদিস )। ইসলামী স্কলারগণ বলেছেন ধৈর্য্যশীলতা দুনিয়া ও আখিরাতে কল্যাণের সোপান । এ জন্যই সকল নবী রাসূলগণকে আল্লাহ তায়ালা ধৈর্য্যর পরীক্ষায় শতভাগ উত্তীর্ণতায় সম্মানিত করেছেন । যারা ধৈর্য্যশীলতা অবলম্বন করে তারাই পুরস্কৃত হয়। আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেন, যারা এই পৃথিবীতে নেক আমল করে তাদের জন্য অফুরন্ত কল্যাণ । আল্লাহর পৃথিবী প্রশস্ত । আর ধৈর্য্যশীলদের জন্য রয়েছে আল্লাহর পক্ষ থেকে অপরিমিত পুরস্কার । (সূরা যুমার , আয়াত নং ১০)। অন্য আয়াতে আল্লাহ বলেন, নিশ্চয়ই আল্লাহ তায়ালা সবরকারী ধৈর্য্যশীলদের সাথে আছন। রাসূল সাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি ধৈর্য্যশীলতা অবলম্বনের চেষ্টা করবে আল্লাহ তায়ালা তাকে ধৈর্য্য ধারণের শক্তি দান করবেন । আর ধৈর্য্য অপেক্ষা অধিক উত্তম ও কল্যাণকর বস্তু আর কিছুই কাউকে দেয়া হয়নি । (বুখারী শরীফ, হাদীস নং১৪৬৯)। অতএব দুনিয়া ও আখিরাতে কল্যাণের জন্য ধৈর্য্যের বিকল্প নেই । আল্লাহ আমাদের সবাইকে বিপদ আপদ, বালামুসিবতে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভে ধৈর্য্যধারন করার তাওফিক দান করেন । আমিন।
মিরপুরের বাইতুল আমান কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মুফতি আবদুল্লাহ ফিরোজী আজ জুমার খুৎবা পূর্ব বয়ানে বলেন, ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান হিসেবে শ্রমজীবীদের সব সমস্যার সঠিক ও ন্যায়ানুগ সমাধান দিয়েছে। আল্লাহ তায়ালা শ্রম ও উপার্জনের প্রতি উৎসাহ দিয়ে পবিত্র কোরআন ইরশাদ করেন, “অতঃপর যখন নামায শেষ হবে, তখন তোমরা জমিনের বুকে ছড়িয়ে পড় এবং আল্লাহর অনুগ্রহ (রিযিক) তালাশ কর।” (সূরা জুমুআহ, আয়াত-১০)। মহানবী (সা.) ছিলেন শ্রমিকবান্ধব অতুলনীয় ব্যক্তিত্ব। তিনি এমন একটি সমাজব্যবস্থা কায়েমের ধারণা দিয়েছেন, যেখানে থাকবে না জুলুম-শোষণ, থাকবে না দুর্বলকে নিষ্পেষিত করার মতো ঘৃণ্য প্রবণতা। তিনি শিখিয়েছেন শ্রমিকও মানুষ, এদের সম্মানের সাথে বাঁচার অধিকার আছে। মানবতার মুক্তির সনদ নামে খ্যাত বিদায় হজের ভাষণে তিনি বলেছেন "তোমাদের অধীনস্থদের প্রতি খেয়াল রাখবে । তোমরা যা খাবে, তাদের তা খাওয়াবে, তোমরা যা পরিধান করবে, তাদেরও তা পরাবে"। শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় তিনি সোচ্চার ছিলেন। হযরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, তোমরা শ্রমিকের ঘাম শুকানোর পূর্বে তার পারিশ্রমিক দিয়ে দাও। ইবনে মাজাহ, হাদিস নং- ২৪৪৩। আবু হোরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত আরেকটি হাদিসে বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, আল্লাহ তায়ালা ঘোষণা করেছেন যে, কিয়ামতের দিবসে আমি নিজে তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে বাদী হবো। এক ব্যক্তি, যে আমার নামে ওয়াদা করে তা ভঙ্গ করলো। আরেক ব্যক্তি, যে কোন স্বাধীন মানুষকে বিক্রি করে তার মূল্য ভোগ করলো। আরেক ব্যক্তি, যে কোন শ্রমিক নিয়োগ করে তার থেকে পুরো কাজ আদায় করে এবং তার পারিশ্রমিক দেয় না। বুখারী, হাদিস নং ২২২৭।

খতিব আরও বলেন, শ্রমিক, কর্মচারীদের সাথে খারাপ আচরণ ও তাদেরকে নির্যাতনের ব্যাপারে নবীজী (সা.) কঠোর ধমকি দিয়েছেন। ইবনে মাজায় বর্ণিত একটি হাদিসে হযরত আবু বকর রা. বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ক্ষমতার বলে অধীনস্থ চাকর-চাকরানী বা দাস-দাসীর প্রতি মন্দ আচরণকারী বেহেশতে প্রবেশ করতে পারবে না। তিনি আরো বলেন, কেউ তার অধীন ব্যক্তিকে অন্যায়ভাবে এক দোররা মারলেও কেয়ামতের দিন তার থেকে এর বদলা নেয়া হবে। মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম শ্রমিককে ভীষণ ভালোবাসতেন। মক্কা বিজয়ের সময় কাবা ঘরে প্রথম প্রবেশের সময় তিনি শ্রমজীবী বেলাল (রা.) ও খাব্বাব (রা.) কে সাথে রেখেছিলেন। শুধু তাই নয়, হযরত বেলাল (রা.) কে ইসলামের প্রথম মুয়াযযিন বানিয়েছিলেন। হযরত আনাস (রা.) নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দশ বছর খেদমত করেছেন। দীর্ঘ এ সময়ে তিনি কখনো তাকে ধমক দেননি। তিনি খেতে বসলে তাকে সঙ্গে নিয়েই খেতেন। কোদাল চালাতে চালাতে একজন সাহাবীর হাতে কালো দাগ পড়লে নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার হাতে আলতো করে গভীর মমতা ও মর্যাদার সাথে চুমু খেলেন। শ্রমিককে ভালোবাসার এমন অসংখ্য দৃষ্টান্ত বিশ্বনবীর জীবনে রয়েছে। মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে আমল করার তৌফিক দান করুন। আমীন।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

তলিয়ে গেছে সুন্দরবনের করমজল পর্যটনকেন্দ্র

তলিয়ে গেছে সুন্দরবনের করমজল পর্যটনকেন্দ্র

বৈরী সম্পর্কের বরফ গলিয়ে সমঝোতা চাইছেন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

বৈরী সম্পর্কের বরফ গলিয়ে সমঝোতা চাইছেন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

সেন্টমার্টিনে ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে বেড়েছে বৃষ্টি-বাতাস ও পানির উচ্চতা

সেন্টমার্টিনে ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে বেড়েছে বৃষ্টি-বাতাস ও পানির উচ্চতা

এমপি আনার হত্যা: শিলাস্তির সর্বোচ্চ শাস্তি চান পরিবার

এমপি আনার হত্যা: শিলাস্তির সর্বোচ্চ শাস্তি চান পরিবার

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : সব মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : সব মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

ফের পুতিনের বিরুদ্ধে আপত্তিকর বক্তব্য বাইডেনের

ফের পুতিনের বিরুদ্ধে আপত্তিকর বক্তব্য বাইডেনের

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ : বন্ধ হলো বরিশাল বিমানবন্দরের সব কার্যক্রম

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ : বন্ধ হলো বরিশাল বিমানবন্দরের সব কার্যক্রম

হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ

হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ

রয়েল এয়ার ফোর্সের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

রয়েল এয়ার ফোর্সের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলগুলোকে আশ্রয়স্থল হিসাবে খুলে দেয়া হয়েছে

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলগুলোকে আশ্রয়স্থল হিসাবে খুলে দেয়া হয়েছে

রাজকোটে গেমিং জোন অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৩২

রাজকোটে গেমিং জোন অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৩২

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে রেড অ্যালার্ট জারি

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে রেড অ্যালার্ট জারি

উপকূলে রেমালের প্রভাব, আতঙ্ক জনমনে

উপকূলে রেমালের প্রভাব, আতঙ্ক জনমনে

যশোরে 'রেমাল' মোকাবিলায় ২২৪৫ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

যশোরে 'রেমাল' মোকাবিলায় ২২৪৫ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

উখিয়ায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথসহ ১ রোহিঙ্গা যুবক আটক

উখিয়ায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথসহ ১ রোহিঙ্গা যুবক আটক

নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

গরমে সিদ্ধ হচ্ছে উত্তর ভারত, তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই

গরমে সিদ্ধ হচ্ছে উত্তর ভারত, তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই

সিদ্ধিরগঞ্জে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতী নারী নিহত

সিদ্ধিরগঞ্জে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতী নারী নিহত