ইস্ট বেঙ্গলের ‘মনে মুন্না’ থাকলেও বাফুফের নেই!

Daily Inqilab জাহেদ খোকন

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৪ এএম | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৪ এএম

বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল, ঢাকা আবাহনী ও ভারতের ঐতিহ্যবাহী ইস্ট বেঙ্গল ক্লাবের সাবেক তারকা ফুটবলার কিং ব্যাক খ্যাত মোনেম মুন্নার ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী ছিল গতকাল। এই দিনে মুন্নাকে বিশেষভাবে স্মরণ করেছে তার ভারতীয় ক্লাব ইস্ট বেঙ্গল। দেশে কিংব্যাকের প্রিয় ক্লাব ঢাকা আবাহনী লিমিটেডও মনে করেছে তাকে। শুধু তাই নয়, ইস্ট বেঙ্গল ক্লাবের হয়ে চলমান ভারতীয় নারী লিগে খেলা বাংলাদেশ জাতীয় দলের রাইট উইঙ্গার সানজিদা আক্তার কিং ব্যাকের মৃত্যুবার্ষিকীতে নিজের ফেসবুকে দিয়েছেন আবেগঘন এক স্ট্যাটাস। তবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) স্মরণে নেই মোনেম মুন্না!
মুন্নার মৃত্যুবার্ষিকীর দিন কাল দুপুরের পর ইস্ট বেঙ্গল তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে স্মরণ করেছে কিং ব্যাককে। ইস্ট বেঙ্গলের জার্সিতে মুন্নার প্রতিকৃতি ছবির মধ্যে লেখা ‘মনে মুন্না‘। এর মাধ্যমে ইস্ট বেঙ্গল বোঝাতে চেয়েছে মুন্নাকে তারা এখনো স্মরণে রেখেছে। ছবির ক্যাপশনে মুন্নার ইস্ট বেঙ্গলের কীর্তি তুলে ধরেছে ক্লাবটি। ইস্ট বেঙ্গলে তিন মৌসুমের (১৯৯১-৯৪) ট্রফি জয়ের অন্যতম নায়ক বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক যে ভক্তদের অত্যন্ত প্রিয় এবং কিং ব্যাক হিসেবে খ্যাত সেটাও উল্লেখ করেছে তারা। ইস্ট বেঙ্গলকে এই স্মরণের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছে মুন্নার প্রিয় ক্লাব ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। দলের প্রাণভ্রমরা মুন্নার ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী বিশেষভাবে স্মরণ করেছে আবাহনীও। ঢাকা আবাহনী লিমিটেড নিজেদের অফিসিয়াল এক্স-এ (সাবেক টুইটার) মুন্নাকে স্মরণ করে বিন¤্র শ্রদ্ধা জানিয়েছে।
এদিকে ইস্ট বেঙ্গলে খেলতে ভারতে অবস্থানরত জাতীয় নারী দলের তারকা ফুটবলার সানজিদা আক্তার নিজের ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘ঐব ধিং সরংঃধশবহষু নড়ৎহ রহ ইধহমষধফবংয.’ কথাটি বলেছিলেন জার্মান কোচ অটো ফিস্টার। যাকে ঘিরে এই ভারি কথাটি বলেছিলেন তিনি মুনেম মুন্না। বাংলাদেশের মানুষ যাকে ‘কিং ব্যাক’ নামে চেনে। আজ উনার মৃত্যুবার্ষিকী। মাত্র ২০ বছর বয়সে জাতীয় দলে অভিষেক হয়ে সাফ রানার্সআপ সহ দেশের হয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা অর্জন করেছিলেন। রেকর্ড ব্রেকিং ট্রান্সফার, ফুটবল মাঠ থেকে বিজ্ঞাপন, দেশের বাইরের ক্লাবে এসে সুখ্যাতি অর্জন সবই করেছেন তিনি। অল্পদিনের মধ্যেই এতকিছু অর্জন করে অসুস্থতাজনিত কারণে মাত্র ৩১ বছর বয়সে ফুটবল কে বিদায় জানান এবং ৩৮ বছর বয়সে দুনিয়াকে বিদায় জানান। খুব দ্রæত চলে যাবেন বলেই হয়তো সুখ্যাতি, জনপ্রিয়তা, ট্রফিসহ সবকিছু অর্জন করতে বড্ড তাড়াহুড়ো ছিল উনার। ইষ্ট বেঙ্গল ক্লাবে এসে যখন উনার ছবি দেখেছিলাম, তখন খুব গর্বিত হয়েছি। আমার অগ্রজ, আমাদের হিরো, তিনি একান্তই আমাদের। দেশের এরকম সূর্যসন্তানদের স্মৃতি যথাযথভাবে ধরে রাখা এবং অক্ষুণ্ণ রাখার ব্যবস্থা থাকা উচিত বলে মনে করি। পাইওনিয়ারে শান্তিনগর ক্লাবের হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করা এই কিংবদন্তি হয়তো কিছুটা হলেও এতে শান্তি পাবেন। অগ্রজদেরকে সম্মানিত করা এবং স্মরণ করার রীতি থেকে আমরা সরে গেলে, অদূর ভবিষ্যতে আমরাও পরবর্তী প্রজন্মের নিকট কিছু আশা করতে পারি না। আল্লাহ তায়ালা, উনাকে জান্নাতবাসী করুন। আমিন।’
ইস্ট বেঙ্গল, আবাহনী, সানজিদা ও মুন্নার পরিবার তাকে বিশেষভাবে স্মরণ করলেও বরাবরের মতোই নিশ্চুপ ছিল বাফুফে। যদিও দেশের ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থার ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজে কিংবদন্তীদের স্মরণ করা হয় না সেভাবে। এ নিয়ে অনেক সাবেক তারকা ফুটবলারদের যথেষ্ট ক্ষোভ রয়েছে। অবশ্য এসব বিষয়ে বাফুফের কর্তারা খুব একটা কর্ণপাত করেন না।
২০০৫ সালের ১২ ফেব্রæয়ারি কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন মোনেম মুন্না। ১৯৮৬ সালে আন্তর্জাতিক ফুটবলে অভিষেক হয়েছিল তার। মরহুম মুন্না তিনবার জাতীয় দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ১৯৯৫ সালে তার নেতৃত্বে মিয়ানমারে অনুষ্ঠিত চার জাতির টাইগার ট্রফি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ দল। এটাই ছিল বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের প্রথম কোন আন্তর্জাতিক শিরোপা জয়। তার অধিনায়কত্বেই ১৯৯৫ সাফ গেমসে রানার্সআপ হয়েছিল বাংলাদেশ। ১৯৯৭ সালের ৩১ মার্চ মুন্না ৩০ বছর বয়সে দেশের পক্ষে নিজের শেষ ম্যাচটি খেলে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নেন। সউদী আরবের জেদ্দায় প্রিন্স আবদুল্লাহ আল ফয়সাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত মালয়েশিয়ার বিপক্ষে ছিল ওই ম্যাচটি। তিনি আমৃত্যু ঢাকা আবাহনীর হয়ে খেলে গেছেন। ২০০৮ সালে অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন মুন্নার স্মরণে ধানমন্ডির ৮ নম্বর সেতুটির নাম ‘মোনেম মুন্না সেতু’ নামকরণ করে। ব্যস এটুকুই, মুন্নাকে স্মরণের জন্য দেশের ক্রীড়া প্রশাসন আর কোনো উদ্যোগ নেয়নি।

 

 


বিভাগ : খেলাধুলা


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

এই বিভাগের আরও

ফিল্ডিংয়ে নেমেই বাংলাদেশের উইকেট
হায়দরাবাদের নেতৃত্বে কামিন্স
শিরোপা দৌড়ে ১০ পয়েন্ট এগিয়ে লেভারকুসেন
ইউরোয় খেলা নিয়ে শঙ্কায় বেরারডি
কেবল সিরিজে মনোযোগ শ্রীলঙ্কা কোচের
আরও

আরও পড়ুন

ওয়ারীর ১৪ রেস্টুরেন্টে অভিযান, আটক ১৬

ওয়ারীর ১৪ রেস্টুরেন্টে অভিযান, আটক ১৬

শিক্ষার্থীদের সঠিক মূল্যায়নের জন্য প্রয়োজন দক্ষ শিক্ষকঃ গবেষণা

শিক্ষার্থীদের সঠিক মূল্যায়নের জন্য প্রয়োজন দক্ষ শিক্ষকঃ গবেষণা

দূষণজনিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী

দূষণজনিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী

কুমিল্লায় দুগ্ধপোষ্য শিশু চুরির অপরাধে এক নারীর দশ বছরের কারাদণ্ড

কুমিল্লায় দুগ্ধপোষ্য শিশু চুরির অপরাধে এক নারীর দশ বছরের কারাদণ্ড

ভি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন এনেছে ভিভো

ভি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন এনেছে ভিভো

অ্যাপলকে ১৮০ কোটি ইউরো জরিমানা করেছে ইইউ

অ্যাপলকে ১৮০ কোটি ইউরো জরিমানা করেছে ইইউ

গ্রুমিং সচেতনতার জন্য বিয়ার্ডো ও লিভনের স্পেশাল এডিশন ‘স্টাইলিং সল্যুশন’

গ্রুমিং সচেতনতার জন্য বিয়ার্ডো ও লিভনের স্পেশাল এডিশন ‘স্টাইলিং সল্যুশন’

মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং দেশের শান্তি- শৃঙ্খলা রক্ষায় আল্লাহর রহমত কামনা করে মোকামিয়ার দুই দিনব্যাপী মাহফিল সম্পন্ন

মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং দেশের শান্তি- শৃঙ্খলা রক্ষায় আল্লাহর রহমত কামনা করে মোকামিয়ার দুই দিনব্যাপী মাহফিল সম্পন্ন

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭, সাধারণ কেন্দ্রে থাকবে ১৬ জনের ফোর্স

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭, সাধারণ কেন্দ্রে থাকবে ১৬ জনের ফোর্স

হিলি সীমান্ত পরিদর্শনে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর প্রতিনিধি দল

হিলি সীমান্ত পরিদর্শনে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর প্রতিনিধি দল

আড়াই ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আসেনি চিনি মিলের আগুন

আড়াই ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আসেনি চিনি মিলের আগুন

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভূমিকা রাখবেন স্মার্ট ইমামরা-সিকৃবি ভিসি

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভূমিকা রাখবেন স্মার্ট ইমামরা-সিকৃবি ভিসি

প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর বাড়িতে পুলিশের অভিযান, সমালোচনার মুখে পাকিস্তানের সরকার

প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর বাড়িতে পুলিশের অভিযান, সমালোচনার মুখে পাকিস্তানের সরকার

সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ২১৪ জনকে সহায়তা দেয়া হয়েছে : ওবায়দুল কাদের

সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ২১৪ জনকে সহায়তা দেয়া হয়েছে : ওবায়দুল কাদের

ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ

ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ

শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় চিরবিদায় নিলেন শেরপুরের প্রবীণ সাংবাদিক তালাত মাহমুদ

শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় চিরবিদায় নিলেন শেরপুরের প্রবীণ সাংবাদিক তালাত মাহমুদ

এখানে এলেই মনটা ভারী হয়ে যায় : প্রধানমন্ত্রী

এখানে এলেই মনটা ভারী হয়ে যায় : প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতি মামলায় খালাস পেলেন থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতি মামলায় খালাস পেলেন থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী

পাকিস্তানের ২৪তম প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিলেন শেহবাজ শরিফ

পাকিস্তানের ২৪তম প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিলেন শেহবাজ শরিফ

আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশ, ব্যারিস্টার গোহর পিটিআই চেয়ারম্যান নির্বাচিত

আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশ, ব্যারিস্টার গোহর পিটিআই চেয়ারম্যান নির্বাচিত