কেউ দোষী হলে বিভাগীয় ব্যবস্থা

সুলতানার মৃত্যুতে তদন্ত কমিটি করেছে র‌্যাব

Daily Inqilab ইনকিলাব

২৮ মার্চ ২০২৩, ১১:৫১ পিএম | আপডেট: ২৯ এপ্রিল ২০২৩, ০৫:২৮ পিএম

নওগাঁয় র‌্যাব হেফাজতে সুলতানা জেসমিনের (৪৫) মৃত্যুর অভিযোগটি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় এরই মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে যদি কেউ দোষী সাব্যস্ত হয় তবে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

র‌্যাব হেফাজতে সুলতানার মৃত্যু ও র‌্যাব সদস্যদের কারো দায়িত্বে অবহেলা ছিল কি না, জানতে চাইলে কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে কর্মরত যুগ্ম সচিব এনামুল হকের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে ফেক আইডি ব্যবহারে তার নামে চাকরি দেয়া ও বিভিন্ন কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে বিপুল পরিমাণ অর্থ প্রতারণা করে আসছিল একটি চক্র। তিনি ২০২২ সালের মার্চে এ নিয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। সেখানে তিনি এ ব্যাপারে অভিযোগ করেন। একজন নারী তার নামে ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে প্রতারণা করেন। এ অভিযোগে আদালতে মামলাও করেন। গত ১৯ ও ২০ মার্চ নিজ কার্যালয়ের সামনেই তার নাম ব্যবহার করে প্রতারকচক্র অর্থ প্রতারণা করে। এ খবর পেয়ে খোঁজ নেন যে প্রতারণায় আল-আমিন নামে একজনের যোগসাজশ রয়েছে।

এরপর তিনি জানতে পারেন জেসমিন নামে এক নারীর নাম। তিনি অফিসে যাওয়ার পথে র‌্যাবের টহল টিমে অভিযোগ করেন। তার সামনেই অভিযুক্ত নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদকালে নারী সদস্যরা ছিলেন। সাক্ষী ছিলেন, অভিযোগকারী এনামুল হকও ছিলেন।

র‌্যাবের এ কর্মকর্তা বলেন, সাক্ষীদের উপস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদকালে আটক জেসমিন সব অভিযোগ স্বীকার করেন। তার মোবাইলে চলমান অবস্থায় এনামুল হকের নামে খোলা ফেক ফেসবুক আইডি দেখা যায়। তার মোবাইলে সোনালী ব্যাংকের অ্যাকাউন্টের তথ্য পাই। যেখানে লাখ লাখ টাকা জমা রসিদের তথ্য পাওয়া যায়। পরবর্তীসময়ে সাক্ষীদের সামনে তাকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আটক করা হয়। এরপর জব্দ আলামত নিয়ে একটি কম্পিউটারের দোকানে প্রিন্ট করা হয়। এরপর সেখান থেকে থানায় মামলার উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে ওই নারী অসুস্থবোধ করেন। তখন র‌্যাব মামলার চেয়ে তাকে হাসপাতালে নেওয়াকেই অধিক গুরুত্ব দেয়।

কমান্ডার মঈন বলেন, র‌্যাব শুধু না, প্রত্যেকটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নারী ও শিশু অধিকার রক্ষার ক্ষেত্রে অনেক বেশি সিরিয়াস। আমরা ওই নারীকে নওগাঁ হাসপাতালে নিয়ে যাই। তিনি গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে হাসপাতালে ঢোকেন। তার আত্মীয়-স্বজন ও এসিল্যান্ডসহ ভূমি অফিসের তার সহকর্মীদের খবর দেয়া হয়। সন্ধ্যার দিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্ট্রোক সন্দেহে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে সিটি স্ক্যানে স্ট্রোকের আলামত আসে। তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ওই নারী কী কারণে মারা গেছেন তা কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেছেন। ডেথ সার্টিফিকেটে উঠে এসেছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করতে পারমিশন লাগে। ভুক্তভোগী যুগ্ম সচিব এনামুল হক অনুমতি সাপেক্ষে পরবর্তী সময়ে থানায় বাদী হয়ে মামলা করেন। যেহেতু অভিযোগ উঠেছে, জেসমিন নামে ওই নারী র‌্যাব হেফাজতে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। পরবর্তী সময়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। এখানে র‌্যাব সদর দফতরের পক্ষ থেকে আমাদের ইনকোয়ারি সেল রয়েছে। এরই মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি হয়েছে। তদন্ত কমিটি কাজ করছে। তদন্তে দেখা হচ্ছে কারো কোনো ধরনের অবহেলা, গাফিলতি বা যোগসাজশ কিংবা অনৈতিক কিছু ছিল কি না। তদন্তে যদি কেউ দোষী সাব্যস্ত হয়, তাহলে অতীতের ন্যায় চাকরিচ্যুতিসহ কঠোর বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কারো অবহেলা বা গাফিলতি র‌্যাব পেয়েছে কি না, জানতে চাইলে কমান্ডার মঈন বলেন, এটা এখনই বলার মতো সময় আসেনি। মেডিকেল রিপোর্টে সব ক্লিয়ার। তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত কমিটি তদন্তে যদি কারও গাফিলতি পায়, অবশ্যই আমরা আইনানুগ পদক্ষেপ নেবো।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

সমতায় শেষ স্কটল্যান্ড-সুইজারল্যান্ড ম্যাচ

সমতায় শেষ স্কটল্যান্ড-সুইজারল্যান্ড ম্যাচ

হাঙ্গেরির বিপক্ষেও জার্মানির সহজ জয়

হাঙ্গেরির বিপক্ষেও জার্মানির সহজ জয়

সউদি আরবে এবার অন্ততঃ ৫৫০ হজযাত্রীর মৃত্যু

সউদি আরবে এবার অন্ততঃ ৫৫০ হজযাত্রীর মৃত্যু

নতুন মৌসুমের শুরুতেই সিটির প্রতিপক্ষ চেলসি

নতুন মৌসুমের শুরুতেই সিটির প্রতিপক্ষ চেলসি

বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে দুধকুমার নদের পানি, ভাঙ্গন আতঙ্কে নদী পাড়ের মানুষ।

বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে দুধকুমার নদের পানি, ভাঙ্গন আতঙ্কে নদী পাড়ের মানুষ।

ডেনমার্কের বিপক্ষে ফোডেনের ভালো খেলার আশা ইংল্যান্ড কোচের

ডেনমার্কের বিপক্ষে ফোডেনের ভালো খেলার আশা ইংল্যান্ড কোচের

বাগেরহাটে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু, আহত ১

বাগেরহাটে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু, আহত ১

চীন-নেপাল সম্পর্ক ক্রমেই গভীর হচ্ছে

চীন-নেপাল সম্পর্ক ক্রমেই গভীর হচ্ছে

বঞ্চিতদের মাঝে কোরবানির গোশত বিতরণ

বঞ্চিতদের মাঝে কোরবানির গোশত বিতরণ

কুষ্টিয়ায় এশিয়ান টিভির সাংবাদিক রিজুর উপর হামলা, গুরুতর আহতাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

কুষ্টিয়ায় এশিয়ান টিভির সাংবাদিক রিজুর উপর হামলা, গুরুতর আহতাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

দু'পক্ষের সংঘর্ষে নরসিংদীতে পুলিশ কর্মকর্তাসহ ৫ জন গুলিবিদ্ধ

দু'পক্ষের সংঘর্ষে নরসিংদীতে পুলিশ কর্মকর্তাসহ ৫ জন গুলিবিদ্ধ

এলডব্লিউজি সনদ না থাকায় চামড়া শিল্পের কাংখিত অগ্রগতি ব্যাহত : বিটিএ

এলডব্লিউজি সনদ না থাকায় চামড়া শিল্পের কাংখিত অগ্রগতি ব্যাহত : বিটিএ

সিলেটসহ উত্তরাঞ্চলের বন্যার্তদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসুন

সিলেটসহ উত্তরাঞ্চলের বন্যার্তদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসুন

ঈদুল আজহায় আনন্দ-বিনোদনে প্রবাসী কর্ণফুলী ক্রীড়া পরিষদের ত্রিদেশীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট

ঈদুল আজহায় আনন্দ-বিনোদনে প্রবাসী কর্ণফুলী ক্রীড়া পরিষদের ত্রিদেশীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট

সরকার দলীয় লোকজন দেশের সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকগুলোকে খালি করে দিয়েছে : প্রিন্সিপাল মোসাদ্দেক বিল্লাহ মাদানি

সরকার দলীয় লোকজন দেশের সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকগুলোকে খালি করে দিয়েছে : প্রিন্সিপাল মোসাদ্দেক বিল্লাহ মাদানি

ভূ-মধ্যসাগরে নিহত ১১ জন মাদারীপুরের ৩জন

ভূ-মধ্যসাগরে নিহত ১১ জন মাদারীপুরের ৩জন

১৪ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৬৪ কোটি ৬৭ লাখ ডলার

১৪ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৬৪ কোটি ৬৭ লাখ ডলার

শরীক কোরবানিতে পশু জবাই করার সময় সবার নাম উল্লেখ করা প্রসঙ্গে।

শরীক কোরবানিতে পশু জবাই করার সময় সবার নাম উল্লেখ করা প্রসঙ্গে।

বৃক্ষরোপণ করুন

বৃক্ষরোপণ করুন

নবায়নযোগ্য শক্তির ব্যবহার বাড়ানোর বিকল্প নেই

নবায়নযোগ্য শক্তির ব্যবহার বাড়ানোর বিকল্প নেই