ঢাকা   বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৫ বৈশাখ ১৪৩১
সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায় ৩৮.৭ ডিগ্রি স্বরূপে ফিরেছে কাঠফাটা রোদের চৈত্র! তাপদাহের সাথে সর্বত্র ঘন ঘন লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাটে জনদুর্ভোগ অসহনীয়

গরমে-ঘামে হাঁসফাঁস

Daily Inqilab শফিউল আলম

০৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০৭ এএম | আপডেট: ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০৭ এএম


তৃতীয় সপ্তাহে এসেই স্বরূপে ফিরেছে কাঠফাটা রোদের মাস চৈত্র। ঢাকা, রাজশাহী, খুলনা বিভাগসহ দেশের অনেক এলাকায় তীব্র গরমে জনজীবনে হাঁসফাঁস অবস্থা বিরাজ করছে। বাতাসে আর্দ্রতার হার অর্থাৎ জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকায় তাপদাহের সাথে শরীর থেকে অতিরিক্ত ঘাম বের হওয়ায় নাকাল অবস্থা। কাহিল হয়ে পড়ছে কর্মজীবী মানুষ। চৈত্রের তাপপ্রবাহের সাথে পাল্লা দিয়ে শহর-বন্দর-গঞ্জ, গ্রাম-জনপদে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঘন ঘন ও দীর্ঘ সময় ধরে লোডশেডিং এবং বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে জনদুর্ভোগের শেষ নেই। রোজাদারদের কষ্ট বেড়েই চলেছে।

গতকাল মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে চুয়াডাঙ্গায় ৩৮.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানী ঢাকায় তাপমাত্রা ছিল সর্বোচ্চ ৩৬.৫ এবং সর্বনিম্ন ২৬.৫ ডিগ্রি সে.। চট্টগ্রামে যথাক্রমে ৩২ এবং ২৬.৪ তাছাড়া রাজশাহীতে ৩৮, পাবনায় ৩৮.৩, যশোরে ৩৭.৬ ডিগ্রি সে. ছিল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। দেশের অনেক জেলা-উপজেলায় দিনের তাপমাত্রার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রাতের ‘সর্বনিম্ন’ তাপমাত্রাও ২৬ থেকে ২৭ ডিগ্রিরও ঊর্ধ্বে উঠে গেছে। দিন ও রাত উভয় তাপমাত্রা সমানতালে বৃদ্ধি পেতে থাকায় গরম অসহ্য হয়ে উঠেছে। চৈত্রের ঠা ঠা রোদে খাঁ খাঁ করছে মাঠ-ঘাট বিল-হাওর-বারও-প্রান্তর।

গতকাল রাতে আবহাওয়া বিভাগের পূর্বাভাসে জানা গেছে, রাজশাহী, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত ও বিস্তার লাভ করতে পারে। বাতাসে আর্দ্রতা বা জলীয়বাষ্পের আধিক্যের কারণে গরমে-ঘামের তীব্রতায় জনজীবনে অস্বস্তি আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। গতকাল সকালে ঢাকার বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল ৭৬ শতাংশ, সন্ধ্যায় স্থানভেদে ৫৩ থেকে ৬৬ শতাংশ।

আজ বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত এবং পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক জানান, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি, বজ্রবৃষ্টি এবং সেই সাথে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সারা দেশে তাপমাত্রা ক্রমেই বৃদ্ধি পেতে পারে।
গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে ৮ মিলিমিটার বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে। এছাড়া এ সময়ে দেশের কোথাও ছিটেফোঁটাও বৃষ্টি হয়নি।

 

রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ দশমিক ৮
রাজশাহী ব্যুরো জানায়, শীতের রেশ কাটতে না কাটতে রাজশাহীর ওপর দিয়ে বইছে মৃদু তাপপ্রবাহ। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে তাপ প্রবাহে জনমনে দেখা দিয়েছে অস্বস্তি।
গত কয়েকদিন আগেও রাজশাহীর আবহাওয়া ছিলো এই শীত, এই গরম। তাপমাত্রা উঠানামা করতো ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। গত শনিবার দিবাগত রাতেও ১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হওয়ায় তাপমাত্রা ২২ ডিগ্রিতে নেমে আসে। এরপর থেকেই কার্যত ধীরে ধীরে তাপমাত্রা বাড়তে থাকে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম জানান, সোমবার রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হলেও একদিনের ব্যবধানে কিছুটা কমে আসে। তবে এর আগের দিন রোববার ছিল ৩৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে এ অঞ্চলে তাপমাত্রা দিনে দিনে বাড়তে থাকবে। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ কমে যাওয়ায় তাপমাত্রা বাড়ছে। তিনি বলেন, এ বছর শীতকাল ছিলো দীর্ঘায়ীত। অন্যান্যবার মার্চের শুরুতে গরম পড়লেও এবার একমাস পেরিয়ে এপ্রিলে শুরু হলো। এ বছরও তাপমাত্রা গত বছরের মতো ৪০ ডিগ্রির কোঠায় থাকবে বলে মনে করছে আবহাওয়া অফিস।

তাপমাত্রা বাড়ায় সূর্যের উত্তাপ আগুন ঝরাচ্ছে প্রকৃতিতে। বাইরে বের হওয়ার সময় অনেকেই ছাতা নিয়ে বের হচ্ছেন। শ্রমিকদের তীব্র রোদে গামছা মাথায় দিয়ে কাজ করতে দেখা গেছে। অনেকে সূর্যের তীব্রতা থেকে বাঁচতে গাছগাছালির নিচে আশ্রয় নিচ্ছেন। তবে তাপপ্রবাহে সব থেকে বেশি কষ্টে আছেন রোজাদাররা।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

মালিকদের লুটপাটে বেসরকারি অনেকগুলো ব্যাংক ধ্বংসের মুখে

মালিকদের লুটপাটে বেসরকারি অনেকগুলো ব্যাংক ধ্বংসের মুখে

শরিফুল-তাসকিন তোপে উড়ে গেল শেখ জামালও

শরিফুল-তাসকিন তোপে উড়ে গেল শেখ জামালও

বাসের ধাক্কায় কিশোরগঞ্জে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

বাসের ধাক্কায় কিশোরগঞ্জে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ফারাক্কার প্রভাবে পদ্মা নদী এখন বিলে পরিনত হয়েছে

ফারাক্কার প্রভাবে পদ্মা নদী এখন বিলে পরিনত হয়েছে

আমার স্ত্রীর কোনো ক্ষতি হলে সেনাপ্রধানকে দায়ী করব : ইমরান খান

আমার স্ত্রীর কোনো ক্ষতি হলে সেনাপ্রধানকে দায়ী করব : ইমরান খান

পশ্চিমাদের চাপ বাড়লেও ইরানের তেল রপ্তানিতে বাধা নেই

পশ্চিমাদের চাপ বাড়লেও ইরানের তেল রপ্তানিতে বাধা নেই

কারাবন্দি থেকে ফের গৃহবন্দি সু চি

কারাবন্দি থেকে ফের গৃহবন্দি সু চি

প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

ক্রিমিয়া ও ডনবাস চিরকাল রাশিয়ার মধ্যে থাকবে: স্লোভাক প্রধানমন্ত্রী

ক্রিমিয়া ও ডনবাস চিরকাল রাশিয়ার মধ্যে থাকবে: স্লোভাক প্রধানমন্ত্রী

রুশ সেনাদের অগ্রগতির কথা স্বীকার করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট

রুশ সেনাদের অগ্রগতির কথা স্বীকার করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট

সিঙ্গাপুরের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে যে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে

সিঙ্গাপুরের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে যে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে

বনশ্রীতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে

বনশ্রীতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে

ছাতকে সড়ক দুর্ঘটনায় কণ্ঠশিল্পী পাগল হাসানসহ প্রাণ গেল দুইজনের

ছাতকে সড়ক দুর্ঘটনায় কণ্ঠশিল্পী পাগল হাসানসহ প্রাণ গেল দুইজনের

ইসরাইল প্রতিশোধ নিলে আঞ্চলিক যুদ্ধের ঝুঁকি বাড়বে: জর্ডান

ইসরাইল প্রতিশোধ নিলে আঞ্চলিক যুদ্ধের ঝুঁকি বাড়বে: জর্ডান

ব্রেন্ডন লিঞ্চের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল ঢাকায় আসছেন ২১ এপ্রিল

ব্রেন্ডন লিঞ্চের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল ঢাকায় আসছেন ২১ এপ্রিল

মুজিবনগর সরকার এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা একই সূত্রে গাঁথা: রাষ্ট্রদূত মো.ইমরান

মুজিবনগর সরকার এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা একই সূত্রে গাঁথা: রাষ্ট্রদূত মো.ইমরান

সেরেল্যাকে অতিরিক্ত চিনি মেশানোর অভিযোগ নেসলের বিরুদ্ধে

সেরেল্যাকে অতিরিক্ত চিনি মেশানোর অভিযোগ নেসলের বিরুদ্ধে

গেরুয়া পোশাক পরা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তেলঙ্গানায় স্কুলে হামলা

গেরুয়া পোশাক পরা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তেলঙ্গানায় স্কুলে হামলা

দীর্ঘক্ষণ রোদে রেখে ১ মাসের সন্তানকে হত্যা, ৮ বছর জেল রাশিয়ান ইনফ্লুয়েন্সারের

দীর্ঘক্ষণ রোদে রেখে ১ মাসের সন্তানকে হত্যা, ৮ বছর জেল রাশিয়ান ইনফ্লুয়েন্সারের

কেউ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি: প্রধানমন্ত্রী

কেউ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি: প্রধানমন্ত্রী