পাকিস্তানে কয়লা রপ্তানি দ্বিগুণ, আফগানিস্তানে রাজস্ব আদায় বাড়ছে

Daily Inqilab ইনকিলাব ডেস্ক

১০ মার্চ ২০২৩, ১২:৫০ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৪০ পিএম

গবেষণা গোষ্ঠী এক্সসেপ্ট-এর ২০২২ সালের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, তালেবান সরকারের অধীনে পাকিস্তানে কয়লা রপ্তানি সম্ভবত দ্বিগুণ হয়েছে এবং আফগানিস্তান ১৬ কোটি ডলারের ট্যাক্স অর্জন করেছে – যা আগের প্রশাসনের তুলনায় তিনগুণ।

পাকিস্তান এমন এক সময়ে ইউক্রেনের যুদ্ধের কারণে সৃষ্ট বৈশ্বিক শক্তি সঙ্কটের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যখন একটি অর্থনৈতিক সঙ্কট তার ডলারের রিজার্ভ কমিয়ে গেছে। তাই তারা দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ইন্দোনেশিয়ার সাধারণ সরবরাহকারীদের বাদ দিয়ে আফগানিস্তানের সাথে নিজস্ব মুদ্রায় কয়লার মূল্য পরিশোধ করার জন্য একটি চুক্তি করে।

২০২১ সালে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর থেকে আফগানিস্তান চরম অর্থনৈতিক সঙ্কটে থাকলেও এখন পরিস্থিতি আস্তে আস্তে পাল্টাচ্ছে। তালেবান প্রশাসন কর সংগ্রহে পারদর্শী প্রমাণিত হচ্ছে এবং আপাতদৃষ্টিতে আগের প্রশাসনের মতো তারা কোন দুর্নীতির সাথে জড়িত নয়। সীমান্তের তোরখামে, একজন ট্রাকচালক এএফপিকে বলেছেন যে, পুরানো শাসনামলে তিনি মাজার-ই-শরিফের ৬২০ কিলোমিটার (৩৮০ মাইল) পথ পাড়ি দেয়ার সময় অবৈধ চেকপয়েন্টগুলিতে ২৫ হাজার আফগানি (২৮০ ডলার) প্রদান করতেন। ‘এখন আমরা দিনরাত যাতায়াত করি, এবং কেউ আমাদের টাকা দিতে বলে না,’ ৩০ বছর বয়সী ড্রাইভার নজিবুল্লাহ বলেন।

জানুয়ারির শেষের দিকে, বিশ্বব্যাংক ২০২২ সালের প্রথম নয় মাসে আফগানিস্তানে ১৩৬ বিলিয়ন আফগানি টাকা (১৫০ কোটি ডলার) রাজস্ব সংগ্রহ হয়েছে বলে রিপোর্ট করেছে, যা মার্কিন-সমর্থিত সরকারের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। আফগানিস্তানের একটি বিদেশী সংস্থার একজন কর্মকর্তা এএফপিকে বলেছেন, ‘এটি বেশ ধারাবাহিকভাবে রিপোর্ট করা হয়েছে যে তারা রাজস্বের ক্ষেত্রে বেশ ভাল করছে এবং এটিও ঘটছে যখন তাদের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বেশ স্তব্ধ।’ সূত্র: ট্রিবিউন।


বিভাগ : আন্তর্জাতিক


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

গাজায় শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকতে চাইছে না কাতার?

গাজায় শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকতে চাইছে না কাতার?

মণিপুরী ছাত্র‌দের জন্য একটি আলাদা হোস্টেল তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

মণিপুরী ছাত্র‌দের জন্য একটি আলাদা হোস্টেল তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

আবুধাবীতে চালু হলো ইউএস বাংলার ফ্লাইট

আবুধাবীতে চালু হলো ইউএস বাংলার ফ্লাইট

বিশ্বকে বাঁচাতে জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধের দাবি তরুণদের

বিশ্বকে বাঁচাতে জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধের দাবি তরুণদের

ইরানের হামলার বিষয়ে প্রশ্ন এড়িয়েই যাচ্ছেন ব্লিনকেন

ইরানের হামলার বিষয়ে প্রশ্ন এড়িয়েই যাচ্ছেন ব্লিনকেন

রাজশাহী পবায় ট্রাক চাপায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত ৩

রাজশাহী পবায় ট্রাক চাপায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত ৩

নিউইয়র্কে সোনালী এক্সচেঞ্জের গ্রাহক সমাবেশ ও ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্কে সোনালী এক্সচেঞ্জের গ্রাহক সমাবেশ ও ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

বিমানবন্দর এলাকায় বাসের ধাক্কায় এক প্রকৌশলী নিহত

বিমানবন্দর এলাকায় বাসের ধাক্কায় এক প্রকৌশলী নিহত

ফিলিস্তিন জাতিসংঘের সদস্য না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ আরব দেশগুলোর

ফিলিস্তিন জাতিসংঘের সদস্য না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ আরব দেশগুলোর

সুনামগঞ্জের দেখার হাওরে কৃষকদের নিয়ে ধান কাটলেন কৃষিমন্ত্রী

সুনামগঞ্জের দেখার হাওরে কৃষকদের নিয়ে ধান কাটলেন কৃষিমন্ত্রী

সিলেটের উপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে ৬০ কি:মি বেগে বজ্র বৃষ্টি সহ দমকা হাওয়া !

সিলেটের উপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে ৬০ কি:মি বেগে বজ্র বৃষ্টি সহ দমকা হাওয়া !

আনোয়ারায় হিট স্ট্রোকে শাহজাদা ছালেহ আহমদ (৭৪) শাহর মৃত্যু

আনোয়ারায় হিট স্ট্রোকে শাহজাদা ছালেহ আহমদ (৭৪) শাহর মৃত্যু

দুবাই পানিতে তলিয়ে যাবার কারণ ক্লাউড সিডিং?

দুবাই পানিতে তলিয়ে যাবার কারণ ক্লাউড সিডিং?

জার্মানির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ জেলেনস্কির

জার্মানির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ জেলেনস্কির

নেতানিয়াহুকে গ্রেপ্তারি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে আইসিসি, জরুরি বৈঠক তলব

নেতানিয়াহুকে গ্রেপ্তারি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে আইসিসি, জরুরি বৈঠক তলব

বান্দরবানে অপহৃত সেই ব্যাংক ম্যানাজার কে চট্টগ্রামে বদলী

বান্দরবানে অপহৃত সেই ব্যাংক ম্যানাজার কে চট্টগ্রামে বদলী

মূল্যস্ফীতিই অর্থনীতিতে বড় সমস্যা

মূল্যস্ফীতিই অর্থনীতিতে বড় সমস্যা

খাদের কিনারে মধ্যপ্রাচ্য

খাদের কিনারে মধ্যপ্রাচ্য

সেনাপ্রধান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদের প্রশংসনীয় বক্তব্য

সেনাপ্রধান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদের প্রশংসনীয় বক্তব্য

রাঙ্গুনিয়ায় বলি খেলায় বিজয়ী রুবেল

রাঙ্গুনিয়ায় বলি খেলায় বিজয়ী রুবেল