সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে সম্মত সউদী-ইরান

Daily Inqilab ইনকিলাব ডেস্ক

১০ মার্চ ২০২৩, ০৮:১১ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৩৯ পিএম

 

সউদী আরব এবং ইরান একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে যা সাত বছরের বিভক্তির পরে কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার পথ প্রশস্ত করেছে, দেশদুইটি শুক্রবার এক যৌথ বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। এটি হবে আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে একটি বড় পুনর্গঠন।

সরকারী সউদী প্রেস এজেন্সি দ্বারা প্রকাশিত বিবৃতি অনুসারে, সউদী ও ইরানের কর্মকর্তারা এ সপ্তাহে চীনে অনুষ্ঠিত আলোচনার পর চুক্তির ঘোষণা দেন, যার মাধ্যমে উভয় দেশ পররস্পরের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রাখবে। ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমও একটি চুক্তির কথা ঘোষণা করেছে।

সউদী আরব এবং ইরান দুই মাসের মধ্যে একে অপরের দেশে দূতাবাস পুনরায় খুলবে এবং উভয় রাষ্ট্রই নিশ্চিত করেছে ‘জাতির সার্বভৌমত্বের প্রতি তাদের সম্মান এবং তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করা,’ বিবৃতিতে বলা হয়েছে। দুই দেশ একটি বিলম্বিত নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি পুনঃসক্রিয় করতেও সম্মত হয়েছে।

বছরের পর বছর আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বিতার পর, সউদী আরব ২০১৬ সালে ইরানের সাথে তার সম্পর্ক সম্পূর্ণভাবে ছিন্ন করে, যখন সউদী আরব একজন বিশিষ্ট শিয়া ধর্মগুরুর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার পরে বিক্ষোভকারীরা তেহরানে সউদী দূতাবাসে হামলা চালায়। ইয়েমেনেও দুই দেশ মুখোমুখি হয়েছে, যেখানে সউদী নেতৃত্বাধীন জোট ইরান সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

সউদী কর্মকর্তারাও বারবার ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এবং বলেছেন যে তারা ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের জন্য অগ্রণী লক্ষ্য হবে। যাইহোক, গত কয়েক বছর ধরে, তারা ইরানের প্রতিনিধিদের সাথে ধারাবাহিক আলোচনায় নিযুক্ত হয়েছে, উভয় পক্ষই উত্তেজনা কমানোর আশা করছে। সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস।

 


বিভাগ : আন্তর্জাতিক


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

গাজায় শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকতে চাইছে না কাতার?

গাজায় শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকতে চাইছে না কাতার?

মণিপুরী ছাত্র‌দের জন্য একটি আলাদা হোস্টেল তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

মণিপুরী ছাত্র‌দের জন্য একটি আলাদা হোস্টেল তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেন সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

আবুধাবীতে চালু হলো ইউএস বাংলার ফ্লাইট

আবুধাবীতে চালু হলো ইউএস বাংলার ফ্লাইট

বিশ্বকে বাঁচাতে জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধের দাবি তরুণদের

বিশ্বকে বাঁচাতে জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধের দাবি তরুণদের

ইরানের হামলার বিষয়ে প্রশ্ন এড়িয়েই যাচ্ছেন ব্লিনকেন

ইরানের হামলার বিষয়ে প্রশ্ন এড়িয়েই যাচ্ছেন ব্লিনকেন

রাজশাহী পবায় ট্রাক চাপায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত ৩

রাজশাহী পবায় ট্রাক চাপায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত ৩

নিউইয়র্কে সোনালী এক্সচেঞ্জের গ্রাহক সমাবেশ ও ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্কে সোনালী এক্সচেঞ্জের গ্রাহক সমাবেশ ও ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

বিমানবন্দর এলাকায় বাসের ধাক্কায় এক প্রকৌশলী নিহত

বিমানবন্দর এলাকায় বাসের ধাক্কায় এক প্রকৌশলী নিহত

ফিলিস্তিন জাতিসংঘের সদস্য না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ আরব দেশগুলোর

ফিলিস্তিন জাতিসংঘের সদস্য না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ আরব দেশগুলোর

সুনামগঞ্জের দেখার হাওরে কৃষকদের নিয়ে ধান কাটলেন কৃষিমন্ত্রী

সুনামগঞ্জের দেখার হাওরে কৃষকদের নিয়ে ধান কাটলেন কৃষিমন্ত্রী

সিলেটের উপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে ৬০ কি:মি বেগে বজ্র বৃষ্টি সহ দমকা হাওয়া !

সিলেটের উপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে ৬০ কি:মি বেগে বজ্র বৃষ্টি সহ দমকা হাওয়া !

আনোয়ারায় হিট স্ট্রোকে শাহজাদা ছালেহ আহমদ (৭৪) শাহর মৃত্যু

আনোয়ারায় হিট স্ট্রোকে শাহজাদা ছালেহ আহমদ (৭৪) শাহর মৃত্যু

দুবাই পানিতে তলিয়ে যাবার কারণ ক্লাউড সিডিং?

দুবাই পানিতে তলিয়ে যাবার কারণ ক্লাউড সিডিং?

জার্মানির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ জেলেনস্কির

জার্মানির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ জেলেনস্কির

নেতানিয়াহুকে গ্রেপ্তারি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে আইসিসি, জরুরি বৈঠক তলব

নেতানিয়াহুকে গ্রেপ্তারি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে আইসিসি, জরুরি বৈঠক তলব

বান্দরবানে অপহৃত সেই ব্যাংক ম্যানাজার কে চট্টগ্রামে বদলী

বান্দরবানে অপহৃত সেই ব্যাংক ম্যানাজার কে চট্টগ্রামে বদলী

মূল্যস্ফীতিই অর্থনীতিতে বড় সমস্যা

মূল্যস্ফীতিই অর্থনীতিতে বড় সমস্যা

খাদের কিনারে মধ্যপ্রাচ্য

খাদের কিনারে মধ্যপ্রাচ্য

সেনাপ্রধান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদের প্রশংসনীয় বক্তব্য

সেনাপ্রধান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদের প্রশংসনীয় বক্তব্য

রাঙ্গুনিয়ায় বলি খেলায় বিজয়ী রুবেল

রাঙ্গুনিয়ায় বলি খেলায় বিজয়ী রুবেল