ঢাকা   বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০

সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা, ইমরানকে গ্রেপ্তারে মরিয়া সরকার

Daily Inqilab ইনকিলাব ডেস্ক

২০ মার্চ ২০২৩, ০১:৪১ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১০:২৩ পিএম

 

যেনতেন প্রকারে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে গ্রেপ্তার করতে আরও মরিয়া পাকিস্তানের সরকার। রোবার তার বিরুদ্ধ সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়ের করার পর রাত থেকেই বাড়ির সামনে অবস্থান নেয় শত শত পুলিশ। লাহোরের জামান পার্কে ইমরানের বাড়িতে ফের বড়সড় অপারেশন চালাতে চলেছে পুলিশ। তবে এই বাড়িতে ইমরান খান আদৌ রয়েছেন কি না, তা নিয়ে সংশয় আছে।

তোষাখানা মামলায় আদালতে হাজিরা দেয়ার দিনই ইমরান অনুগামীদের ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে পড়ে পুলিশ। আদালত চত্বরেই পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ান তারা। রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে আদালত চত্বর। তোষাখানা মামলাটি খারিজ হয়ে যায় আদালতের নির্দেশে। এরপর রোববার রাতেই ফের ইমরান খানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়ের করে পাকিস্তানের পুলিশ। তাতে নতুন করে বিপাকে পড়েন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

রোববার মামলা দায়েরের পর স্থানীয় সময় রাত ৩টা নাগাদই ইমরানের জামান পার্কের বাড়ির সামনে পৌঁছে যায় পুলিশের দল। পুলিশের দাবি, ওই দিন আদালত চত্বরে যারা অশান্তি বাঁধিয়েছিল, তারা আসলে জঙ্গি। বালোচিস্তানের আওরন জেলায় মূলত সক্রিয়তা রয়েছে এদের। ইমরানের অনুগামী হয়ে সেদিন আদালত চত্বরে ঢুকে নাশকতার ছক ছিল। তবে পুলিশ কঠোর থাকায় শুধুমাত্র সংঘর্ষ ছাড়া কিছু করতে পারেনি। পুলিশের অনুমান, ইমরানের বাসভবন থেকেই আওরনের জঙ্গিরা মদতপুষ্ট হচ্ছে। সেই কারণে সন্ত্রাস দমন আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে সবাইকে খোঁজা হচ্ছে।

আর এ বিষয়ে পুলিশ অত্যন্ত কড়া। জামান পার্কের বাড়ির সামনে রীতিমতো অপারেশন চালানোর প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যারা সেখানে পৌঁছতে পারেননি, তাদের সাসপেনশনের মুখে পড়তে হতে পারে বলে খবর। ওই চত্বরে আইনশৃঙ্খলা আরও কড়া হয়েছে। সবমিলিয়ে অপারেশন ইমরান খান নিয়ে পাকিস্তানের পুলিশের তৎপরতা তুঙ্গে। সূত্র: টাইমস নাউ।


বিভাগ : আন্তর্জাতিক


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

এই বিভাগের আরও

সংক্ষিপ্ত বিশ্বসংবাদ
নামাজের সময় মসজিদে হামলা নিহত বহু মুসল্লি
জেড খনির দখল নিয়ে তীব্র যুদ্ধ
ট্রাম্প ফিরছেন আরো শক্তিশালী হয়ে
অ্যান্টার্কটিকায় ভয়াবহ বার্ড ফ্লু
আরও

আরও পড়ুন

বলসুন্দরি কুল চাষে লাভবান কৃষক

বলসুন্দরি কুল চাষে লাভবান কৃষক

শেরপুরে আগুনে মহিলা মেম্বারসহ নিহত ২

শেরপুরে আগুনে মহিলা মেম্বারসহ নিহত ২

পঞ্চগড়ে বরেন্দ্র অফিসের নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ

পঞ্চগড়ে বরেন্দ্র অফিসের নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ

টেকনাফে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু।

টেকনাফে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু।

টেকনাফে ছুরিকাঘাতে এক রোহিঙ্গাকে হত্যা।

টেকনাফে ছুরিকাঘাতে এক রোহিঙ্গাকে হত্যা।

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি কতটা যৌক্তিক

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি কতটা যৌক্তিক

হিব্রু বাইবেলের গণহত্যার নির্দেশ এবং জাতিসংঘের জেনোসাইড কনভেনশন : পশ্চিমা প্রশাসনের সমর্থন কোন দিকে?

হিব্রু বাইবেলের গণহত্যার নির্দেশ এবং জাতিসংঘের জেনোসাইড কনভেনশন : পশ্চিমা প্রশাসনের সমর্থন কোন দিকে?

যুক্তরাষ্ট্রকে দ্বৈত নীতি পরিহার করতে হবে

যুক্তরাষ্ট্রকে দ্বৈত নীতি পরিহার করতে হবে

লাভের লোভে ‘বিষবৃক্ষ’ চাষ

লাভের লোভে ‘বিষবৃক্ষ’ চাষ

প্রতিদিনই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা

প্রতিদিনই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা

মহিপুরে ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে জখম

মহিপুরে ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে জখম

জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় দেশসেরা চাটমোহরের তমজিত

জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় দেশসেরা চাটমোহরের তমজিত

উদ্ধারের দাবিতে শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

উদ্ধারের দাবিতে শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

বেলকুচিতে স্যালাইন খেয়ে শিশুর মৃত্যু

বেলকুচিতে স্যালাইন খেয়ে শিশুর মৃত্যু

চিনিকল অবসরপ্রাপ্তকর্মীদের বকেয়া পাওনার দাবি

চিনিকল অবসরপ্রাপ্তকর্মীদের বকেয়া পাওনার দাবি

ঘাটাইলে পাহাড়ের লাল মাটি কাটায় ২ জনের কারাদন্ড

ঘাটাইলে পাহাড়ের লাল মাটি কাটায় ২ জনের কারাদন্ড

বিনা অনুমতিতে সরকারি গাছ কর্তন

বিনা অনুমতিতে সরকারি গাছ কর্তন

ফটিকছড়িতে শিশুদের মাঝে কুরআন বিতরণ

ফটিকছড়িতে শিশুদের মাঝে কুরআন বিতরণ

ভুট্টাখেতের আড়ালে আফিম চাষ

ভুট্টাখেতের আড়ালে আফিম চাষ

অবশেষে সুন্দরবনে হারিয়ে যাওয়া ৩১ পর্যটককে উদ্ধার

অবশেষে সুন্দরবনে হারিয়ে যাওয়া ৩১ পর্যটককে উদ্ধার