বিএনপিও পেছনের দরজা পছন্দ করে : সাংবাদিকদের ড. হাছান মাহমুদ

Daily Inqilab স্টাফ রিপোর্টার

২৭ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৪৪ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১১:১৬ পিএম

তথ্য ও স¤প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, আওয়ামী লীগ অন্য কোনো শক্তিকে বিশ্বাস করে না। আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় গেছে, জনগণের ওপর ভর করেই জনগণের সমর্থন নিয়ে গেছে। তারা (বিএনপি) ক্ষমতায় গেছে পেছনের দরজা দিয়ে। পেছনের দরজা দিয়ে অবৈধভাবে দল গঠিত হয়েছে। সুতরাং তারা পেছনের দরজাটা খুব পছন্দ করে। হায়েনা যখন শিকার করে, তখন পেছনের দিকে কামড় দেয়। বিএনপিও পেছনের দরজা পছন্দ করে।
গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে তথ্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ‘বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লব ও বাকশাল’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ও সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমরা জনগণের শক্তিকে বিশ্বাস করি। আওয়ামী লীগ জনগণের শক্তিতে বলীয়ান। বিএনপির নেতারা গতকাল বলেছেন শিগগিরই তারা নতুন কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে নামবেন, যা আওয়ামী লীগের জন্য অশনিসংকেত হবে এমন প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি রাজপথে বিভিন্ন সময় নতুন কর্মসূচি, পুরোনো কর্মসূচির কথা বলে। আমরা আগে দেখেছি, বিএনপি হাঁটা শুরু করেছিল, এবার হামাগুড়ি দেবে কি না, আমি জানি না। বিএনপি দাবি করেছে, প্রধানমন্ত্রী চতুর্থবার ক্ষমতায় আসার জন্য বিভিন্ন দেশ সফর করে সমর্থন যোগাচ্ছেন। এ বিষয়ে মতামত জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেখুন, রাত-বিরাতে কারা বিদেশিদের কাছে যায়, আর কারা বিদেশিদের দাওয়াত খাওয়ায়, সেটা তো পত্রপত্রিকায়, টিভিতে প্রচারিত ও প্রকাশিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর এ সফর হলো রাষ্ট্রীয় সফর। জাপান সরকারের আমন্ত্রণে তিনি সেখানে গেছেন রাষ্ট্রীয় সফরে।
তিনি বলেন, তিনি বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্টের আমন্ত্রণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গেছেন। যে বিশ্বব্যাংক আমাদের পদ্মা সেতু থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল, অপবাদ দেওয়ার চেষ্টা করেছিল, আন্তর্জাতিক আদালতে হেরে গিয়েছিল, সেই বিশ্বব্যাংক প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আমরা বিশ্ব ব্যাংককে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিজের টাকায় পদ্মা সেতু করেছি। সে কারণে তিনি সেখানে গেছেন। এ ছাড়া সেখানে অন্যান্য সরকারি মিটিং অবশ্যই হবে। প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্য যাচ্ছেন রাজা চার্লসের অভিষেক অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য। এগুলো রাষ্ট্রীয় সফর। হাছান মাহমুদ বলেন, বাকশাল ব্যবস্থার সুফলও আমরা পেতে শুরু করেছিলাম। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৯.৫ শতাংশে উন্নীত হয়েছিলো এবং ১৯৭৫ সালে ১০ হাজার মেট্রিক টন অতিরিক্ত খাদ্যশস্য উৎপাদনের ফলে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেছিলাম। চাল এবং অন্যান্য পণ্যের দাম যেটি বেড়েছিলো সেটি কমে এসেছিলো। এবং বাকশালের অধীনে দেশে গণতান্ত্রিক চর্চা ভালো হয়েছে। সে সময় ময়মনসিংহের একটি উপনির্বাচনে প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নজরুল ইসলামের ছোট ভাই সৈয়দ ওয়াহিদুল ইসলাম প্রতিদ্ব›িদ্বতা করে পরাজিত হয়েছিলেন। তার প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী জয়লাভ করেছিল।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাকশাল প্রতিষ্ঠার পর চারটি পত্রিকা ছাড়া অন্য পত্রিকা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিলো এটা সঠিক কিন্তু কোনো পত্রিকার কোনো সাংবাদিক বেকার থাকেননি। বঙ্গবন্ধু সাংবাদিক এনায়েতুল্লাহ খান, গিয়াস কামাল চৌধুরীসহ পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছিলেন। সেই কমিটির সুপারিশে তথ্য অধিদফতর, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর, কাস্টমস, জুট মিল, বস্ত্র কর্পোরেশনে সব সাংবাদিকের চাকরি হয়েছিলো।##

 


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

ফের পুতিনের বিরুদ্ধে আপত্তিকর বক্তব্য বাইডেনের

ফের পুতিনের বিরুদ্ধে আপত্তিকর বক্তব্য বাইডেনের

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ : বন্ধ হলো বরিশাল বিমানবন্দরের সব কার্যক্রম

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ : বন্ধ হলো বরিশাল বিমানবন্দরের সব কার্যক্রম

হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ

হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ

রয়েল এয়ার ফোর্সের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

রয়েল এয়ার ফোর্সের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলগুলোকে আশ্রয়স্থল হিসাবে খুলে দেয়া হয়েছে

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলগুলোকে আশ্রয়স্থল হিসাবে খুলে দেয়া হয়েছে

রাজকোটে গেমিং জোন অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৩২

রাজকোটে গেমিং জোন অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৩২

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে রেড অ্যালার্ট জারি

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে রেড অ্যালার্ট জারি

উপকূলে রেমালের প্রভাব, আতঙ্ক জনমনে

উপকূলে রেমালের প্রভাব, আতঙ্ক জনমনে

যশোরে 'রেমাল' মোকাবিলায় ২২৪৫ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

যশোরে 'রেমাল' মোকাবিলায় ২২৪৫ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

উখিয়ায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথসহ ১ রোহিঙ্গা যুবক আটক

উখিয়ায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথসহ ১ রোহিঙ্গা যুবক আটক

নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

গরমে সিদ্ধ হচ্ছে উত্তর ভারত, তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই

গরমে সিদ্ধ হচ্ছে উত্তর ভারত, তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই

সিদ্ধিরগঞ্জে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতী নারী নিহত

সিদ্ধিরগঞ্জে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতী নারী নিহত

চিনে রাষ্ট্রিয়ভাবে মসজিদের আকৃতিকে প্যাগোডার আকৃতিতে বদলে ফেলা হয়

চিনে রাষ্ট্রিয়ভাবে মসজিদের আকৃতিকে প্যাগোডার আকৃতিতে বদলে ফেলা হয়

আজ গুলশানে দেখা মিলবে তুর্কি অভিনেতা বুরাকের

আজ গুলশানে দেখা মিলবে তুর্কি অভিনেতা বুরাকের

অর্ধশত শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, শিক্ষক গ্রেপ্তার

অর্ধশত শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, শিক্ষক গ্রেপ্তার

বাস্তবতার ভিত্তিতে ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনা করবে রাশিয়া: পুতিন

বাস্তবতার ভিত্তিতে ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনা করবে রাশিয়া: পুতিন

যুক্তরাষ্ট্রে চীনা গাড়ির উপর অতিরিক্ত শুল্কের বিরোধিতা ইলন মাস্কের

যুক্তরাষ্ট্রে চীনা গাড়ির উপর অতিরিক্ত শুল্কের বিরোধিতা ইলন মাস্কের