জাপানি বিনিয়োগকারীদের আরো বেশি বিনিয়োগের আহবান

সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ : শেখ হাসিনা

Daily Inqilab হাসান সোহেল, টোকিও (জাপান) থেকে :

২৭ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৪৪ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১১:১৬ পিএম

সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের দিকে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার কথা তুলে ধরে জাপানি ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশের উন্নয়ন এবং অর্জনের অংশীদার হওয়ার আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাপানি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা চাই আপনারা (জাপানি বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ী) সবাই আমাদের উন্নয়ন ও অর্জনের অংশীদার হোন। সবাইকে বাংলাদেশে এসে ব্যবসা ও বিনিয়োগের সম্ভাবনা অন্বেষণ করুন। গতকাল বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকালে টোকিও’র একটি হোটেলে ‘বাংলাদেশ বিনিয়োগ সম্মেলন› উদ্বোধনকালে তিনি আমন্ত্রণ জানান। বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ নিয়ে আসার আহŸান জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগ করুন। আমরা নিশ্চিত আপনাদের বিনিয়োগ আপনাদের ব্যাপক সাফল্য এনে দিবে।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাপানের অর্থনীতি, বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী নিশিমুরা ইয়াসুতোশি, জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের (জেইটিআরও) চেয়ারম্যান ইশিগুরো নোরিহিকো, জাপান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (জেসিসিআই) চেয়ারম্যান কেন কোবায়াশি।
বাংলাদেশ ও জাপানি কোম্পানির যৌথ উদ্যোগের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা জাপানি উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে আরও বিনিয়োগ প্রত্যাশা করি, বিশেষ করে আড়াইহাজারে জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চলে। জাপানে বসবাসরত অনাবাসী বাংলাদেশিদের অবদানের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, জাপানে বসবাসরত অনাবাসী বাংলাদেশি (এনআরবি) এবং বাংলাদেশি বংশোদ্ভ‚ত মানুষের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ছে। তারা তাদের রেমিটেন্সের মাধ্যমে বাংলাদেশে অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন।
জাপানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জাপানি বন্ধুদের সঙ্গে ব্যবসায়িক উদ্যোগ এবং যৌথ উদ্যোগে সম্পৃক্ত হওয়ার আহŸান জানান তিনি। বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান অর্থনীতিতে আইসিটি, ইলেকট্রনিক্স, অবকাঠামো, চামড়া, টেক্সটাইল, আতিথেয়তা ও পর্যটন, ভারী শিল্প, রাসায়নিক ও সার এবং এসএমইর মতো বিভিন্ন খাতে সুযোগ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি এবং বিনিয়োগ সম্ভবনার কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
দেশি-বিদেশি বিনিয়োগের জন্য সারা দেশে অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং হাই-টেক পার্ক স্থাপনের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল, হাই-টেক এবং সফ্টওয়্যার পার্ক তৈরি করছি; যেখানে বিদেশি বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। ব্যবসা সহজ করতে সরকারের নানা উদ্যোগ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকার ব্যবসা করার মসৃণ, সহজ এবং দক্ষ উপায়গুলিকে সহজতর করতে যা যা করা যায় সবই করছে। জাপানি বিনিয়োগকারীদের আশ্বস্ত করে করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ তাদের জন্য প্রস্তুত এবং সেখানে গেলে তাদের দারুণ অভিজ্ঞতা হবে। তিনি বলেন, আপনাদের ব্যবসার সুবিধার্থে সমস্ত প্রয়োজনীয় সংস্থা এবং কাঠামোগত সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে।
বাংলাদেশের অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভিশন-২০২১ এবং রূপকল্প-২০৪১ অনুযায়ী তার সরকার দেশের জনগণের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করে চলেছেন। বাংলাদেশকে এখন উন্নয়নের রোল মডেল বলা হয়। দারিদ্র বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, ডিজিটালাইজেশন, খাদ্য উৎপাদন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দৃষ্টান্ত স্থাপণ করেছে।
শেখ হাসিনা বলেন, আশা নিয়ে বাংলাদেশের মানুষ এখন ২০২৬ সালের মধ্যে স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের অপেক্ষায় আছে। তিনি বলেন, আমাদের যাত্রা এখন ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত, সমৃদ্ধ জ্ঞান ভিত্তিক ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’।মহান মুক্তিযুদ্ধের সেই দুঃসময়ে যারা বাংলাদেশের পাশে ছিলেন তাদের অবদানের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, আমরা কখনো আমাদের বন্ধুদের ভুলি না।
স্থানীয় সময় বিকেলে টোকিও’র জাপানের রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন আকাসাকা প্যালেসে মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখা চার জাপানি নাগরিককে ‘ফ্রেন্ডস অব লিবারেশন ওয়ার অনার’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, আমার মনে হয়, বাংলাদেশই বোধ হয় একমাত্র দেশ মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যারা আমাদের পাশে ছিলেন, যারা আমাদের সহযোগিতা করেছেন, আমি সরকারে আসার পর থেকে তাদের খোঁজ করেছি, খুঁজে বের করেছি এবং আমাদের সাধ্যমতো সবাইকে আমরা সম্মান করার চেষ্টা করেছি, সম্মান দিয়েছি। তিনি বলেন, সেই সময় (১৯৭১) যারা আমাদের পাশে ছিলেন, তাদের কখনো আমরা ভুলতে পারি না; তাদের অবদান আমরা ভুলতে পারি না। মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখা ব্যক্তিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বাঙালি, আমাদের স্বাধীনতা অর্জন করেছি অনেক রক্তের বিনিময়ে। কিন্তু আমাদের পাশে থেকে যারা সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতার শেষ নেই।
সম্মাননা প্রাপ্ত ৪ জাপানি নাগরিকের অবদানের কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ আজকে আরও চারজন মহান বন্ধুকে সম্মান জানিয়েছে, যারা আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। তারা আমাদের অসহায় মানুষদের জন্য মানবিক ত্রাণ, চিকিৎসা সুবিধা পাঠিয়েছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখায় ইতোপূর্বে সম্মাননা পাওয়া ৮ জন জাপানি নাগরিকের কথাও স্মরণ করেন তিনি।
শেখ হাসিনা বলেন, যুদ্ধের ওই সঙ্কটময় মুহ‚র্তে, জাপানি বন্ধুরা আমাদের দুর্দশা বুঝতে পেরেছিল এবং মানবতার জন্য এগিয়ে গিয়েছিলেন। এজন্য তারা (জাপানিরা) অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছিলেন, কিন্তু পিছিয়ে পড়েননি। তাদের নিঃস্বার্থ ভালোবাসা আমাদের আত্মাকে পুনরুজ্জীবিত করেছিল। সবচেয়ে অবিস্মরণীয় ছিল জাপানি স্কুলের বাচ্চাদের কথা, যারা আমাদের সাহায্য করার জন্য তাদের টিফিনের অর্থ সঞ্চয় এবং দান করেছিল।
জাপানের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাপান-বাংলাদেশ বন্ধুত্ব অটুট থাকুক। আমরা শুধুমাত্র আমাদের বন্ধুদের সম্মান করি না, জাপানের সঙ্গে বন্ধুত্বের বন্ধনও উদযাপন করি।
জাপানের সঙ্গে গত ৫০ বছর ধরে চলে আসা বন্ধুত্ব আগামী প্রজন্ম আরও এগিয়ে নিবে প্রত্যাশা করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমি নিশ্চিত, জাপানের জনগণ অতীতের মতো ভবিষ্যতেও আমাদের পাশে থাকবে। গত পঞ্চাশ বছর ধরে চলে আসা আমাদের দীর্ঘস্থায়ী বন্ধুত্ব ও অংশীদারিত্ব আগামী বছরগুলিতেও দুই দেশের নতুন প্রজন্ম সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে।
সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য জাপানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিশ্বাস জাপান অতিতের মতো আমাদের পাশে থাকবে। অতিতের মতো আমাদের প্রয়োজনে জাপান সরকার সব সময় আমাদের পাশে থাকবে।
টোকিওর হোটেল ওয়েস্টিনে আয়োজিত এ বাংলাদেশ বিনিয়োগ সম্মেলনে কয়েকশ’ জাপানি ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা অংশগ্রহণ করেন। এ বিনিয়োগ সম্মেলনে বাংলাদেশে বিনিয়োগ সম্ভাবনা, বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উদার নীতি, বাংলাদেশের ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ, জ্বালানি ও অবকাঠামোগত সুবিধার কথা তুলে ধরা হয়। এ অনুষ্ঠানে দুই দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১১টি সমঝোতা স্মারক সই হয়। ###

 

 


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

ইণ্ডিগো এয়ারলাইনসের স্বেচ্ছাচারিতা

ইণ্ডিগো এয়ারলাইনসের স্বেচ্ছাচারিতা

বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠিয়ে নিজে সম্মানিত হোন দেশকেও সম্মানিত করুন

বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠিয়ে নিজে সম্মানিত হোন দেশকেও সম্মানিত করুন

বাংলাদেশে এখন আর স্বাধীন সাংবাদিকতা নেই: রিজভী

বাংলাদেশে এখন আর স্বাধীন সাংবাদিকতা নেই: রিজভী

এক দশক পর চ্যাম্পিয়ন কলকাতা

এক দশক পর চ্যাম্পিয়ন কলকাতা

জেমস বন্ডের থিম সং লিখেছিলেন লানা দেল রে, তবে মনোনীত হয়নি

জেমস বন্ডের থিম সং লিখেছিলেন লানা দেল রে, তবে মনোনীত হয়নি

খালেদ মুন্নার ফোক ম্যাশআপ

খালেদ মুন্নার ফোক ম্যাশআপ

চেম্বার আদালতে আপিল করলেন ডিপজল

চেম্বার আদালতে আপিল করলেন ডিপজল

‘অ্যানিমেল’ সিক্যুয়েলে রণবীরের প্রতিপক্ষ ভিকি

‘অ্যানিমেল’ সিক্যুয়েলে রণবীরের প্রতিপক্ষ ভিকি

গানে ফিরছেন সঙ্গীতশিল্পী রিংকু

গানে ফিরছেন সঙ্গীতশিল্পী রিংকু

কোক স্টুডিও বাংলায় ওয়ারফেজের গান

কোক স্টুডিও বাংলায় ওয়ারফেজের গান

উন্নয়ন সম্ভাবনায় দক্ষিণের জনপদ

উন্নয়ন সম্ভাবনায় দক্ষিণের জনপদ

নদী রক্ষায় বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হয়েছে, এ যুদ্ধে আমরা বিজয়ী হব : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

নদী রক্ষায় বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হয়েছে, এ যুদ্ধে আমরা বিজয়ী হব : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাতিল দাবি, ইবি শিক্ষকদের মানববন্ধন

সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাতিল দাবি, ইবি শিক্ষকদের মানববন্ধন

বাসের ওপর উল্টে গেল ট্রাক, ১১ জনের মৃত্যু

বাসের ওপর উল্টে গেল ট্রাক, ১১ জনের মৃত্যু

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

গুগল ম্যাপ দেখে গাড়ি চালিয়ে পানিতে পড়লেন ৪ পর্যটক

গুগল ম্যাপ দেখে গাড়ি চালিয়ে পানিতে পড়লেন ৪ পর্যটক

পৃথিবীর কাছাকাছি বাসযোগ্য নতুন গ্রহ আবিষ্কার

পৃথিবীর কাছাকাছি বাসযোগ্য নতুন গ্রহ আবিষ্কার

বাইডেন ও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতায় ফাটল ধরানোর অভিযোগ কেনেডির

বাইডেন ও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতায় ফাটল ধরানোর অভিযোগ কেনেডির

ভারতে ধনীদের ওপর সম্পদ করারোপ প্রস্তাব

ভারতে ধনীদের ওপর সম্পদ করারোপ প্রস্তাব

নিউইয়র্ক-লন্ডনের তুলনায় এশিয়ায় বাড়ছে আবাসন মূল্য

নিউইয়র্ক-লন্ডনের তুলনায় এশিয়ায় বাড়ছে আবাসন মূল্য