ঢাকা   বুধবার, ০৪ অক্টোবর ২০২৩ | ২০ আশ্বিন ১৪৩০
বাগান মালিকরা বিপাকে

রাজশাহীতে তীব্র তাপদাহে ঝড়ে পড়ছে আম

Daily Inqilab রেজাউল করিম রাজু, রাজশাহী থেকে

০৪ জুন ২০২৩, ১০:২০ পিএম | আপডেট: ০৫ জুন ২০২৩, ১২:০০ এএম

একেই বলে আম পাকা গরম। আমের এই ভর মওসুমে রাজশাহী অঞ্চলের উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তীব্র তাপাদহ। যার প্রভাব পড়েছে আমের উপর। আম পাড়ার মওসুম শুরু হওয়ায় পর্যায়ক্রমে বাজারে আসতে শুরু করেছে বনেদী জাতের আম। শুরু হয়েছে গুটি দিয়ে আর গোপালভোগ, ক্ষিরসাপাতি রানীপছন্দ, লক্ষণভোগ আর ল্যাংড়া। গাছে আম ধরে রাখা যাচ্ছেনা। তাপাদহে ঝড়ে পড়ছে আম। আবার একেবারে বেশি করে আমপাড়া যাচ্ছেনা। রাখলেই ঘরে পেকে যাচ্ছে। বিশেষ করে আড়ত গুলোয়। সকাল বেলায় আম আড়তে নিয়ে এলে রাত পোহালে নীচের দিকে থাকা আম পেকে যাচ্ছে। বাড়িতে বেশি আম কিনে রাখা যাচ্ছেনা। দ্রুত পেকে পচে যাচ্ছে। আম বাগান মালিক আর ব্যবসায়ীরা পড়েছে বিপাকে। ক্ষিরসাপাতি, ল্যাংড়া আম আকার ভেদে মনপ্রতি বিক্রি হচ্ছে দু’থেকে আড়াই হাজার টাকার মধ্যে। এবার তাপাদহের কারণে আমের আকার ছোট হয়েছে। তবে মিষ্টতা রয়েছে বেশি। আকার ভেদে দামের কম বেশি। কৃষি দফতর সূত্রে জানা যায়, এবার রাজশাহী অঞ্চলে (রাজশাহী, নবাবগঞ্জ, নওগা, নাটোর) আমের আবাদ হয়েছে তিরানব্বই লাখ হেক্টর জমিতে। সেখান থেকে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এগারো লাখ মেট্রিকটন। আম বিদেশেও স্বল্প পরিসরে পাড়ি দেয়া শুরু হয়েছে।

রাজশাহী অঞ্চলে প্রতি বছর চার পাঁচ হাজার হেক্টর করে আমের জমি বাড়ছে। বিশেষ করে নওগা অঞ্চলে। দেশের ষাট ভাগ আম উৎপন্ন হচ্ছে রাজশাহী অঞ্চলে। এখানকার আম অর্থনীতির আকারও বাড়ছে। এবার মওসুমের চার মাসে দশ হাজার কোটি টাকার বেশি আম বাণিজ্য হবে। হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হবে পরিবহন খাতে। আর লাখ চারেক মানুষ যুক্ত থাকবে আম পাড়া, প্যাকিং, পরিবহনসহ নানা কাজে। এখন সময় বদলেছে আগে বাঁশের তৈরী ঝুরিতে আম যেত এখন সে স্থানে জায়গা করে নিয়েছে প্লাষ্টিকের ক্যারেট। এসবের চাহিদা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে দাম। আগে একটি ক্যারেট নব্বই একশো টাকায় বিক্রি হলেও এখন দেড়শো টাকার নীচে নয়। অবশ্য আমের ঝুড়ির চেয়ে ক্যারেটে আম পাঠানো নিরাপদ। পরিবহন খরচ বাড়ছে। আগে যেখানে মনপ্রতি আম পরিবহন করা হতো তিনশো টাকায়। এখন সেখানে চার থেকে সাড়ে চারশো টাকা। এক মন আম হাজার দুয়েক টাকায় কিনে স্বজনদের বাড়ি পাঠাতে কুরিয়ার সার্ভিস প্যাকিং এ খরচ হচ্ছে পাঁচ ছয়শো টাকা। এ যেন খাজনার চেয়ে বাজনা বেশী। যদিও ম্যাঙ্গো স্পেশাল ট্রেনে কেজি প্রতি এক টাকা সাইত্রিশ পয়সা। এদিকে প্রচন্ড তাপাদহের কারনে আম দ্রুত পেকে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে আম ব্যবসায়ীরা। পাকা আম বাইরেও পাঠানোর উপযুক্ত নয়। আবার ঘরে রাখা যাচ্ছেনা। শেষ বিকেলে রাজশাহী সাহেব বাজার মনিচত্বরের রাস্তার ধারে বসা আম বিক্রেতারা পাকা আম প্রকার ভেদে দশ থেকে পনের টাকায় কেজিতে বিক্রি করতে দেখা যায়। সাধারণ মানুষ আমের স্বাদ নেবার জন্য এই আম দিয়ে রসনা মেটাচ্ছে। অনেকে এসব পেকে যাওয়া আম কিনছেন আমস্বত্ব করার জন্য।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

এই বিভাগের আরও

নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ উৎপাদনে এবং কার্বন নিঃসরণ হ্রাসকরণে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ : প্রধানমন্ত্রী
স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য স্মার্ট সাংবাদিকতা জরুরি : স্পিকার
বাংলাদেশে ‘ম্যাগনিটস্কি নিষেধাজ্ঞা’ দেয়ার দাবি
চারদিনের ব্যবধানে ফের কমল সোনার দাম
আইনের রাজনৈতিক ব্যাখ্যা করছেন আইনমন্ত্রী : কায়সার কামাল
আরও

আরও পড়ুন

জালিয়াতি মামলায় কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা নেত্রী গ্রেফতার

জালিয়াতি মামলায় কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা নেত্রী গ্রেফতার

নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ উৎপাদনে এবং কার্বন নিঃসরণ হ্রাসকরণে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ : প্রধানমন্ত্রী

নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ উৎপাদনে এবং কার্বন নিঃসরণ হ্রাসকরণে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ : প্রধানমন্ত্রী

স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য স্মার্ট সাংবাদিকতা জরুরি : স্পিকার

স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য স্মার্ট সাংবাদিকতা জরুরি : স্পিকার

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আ.লীগ নেতাদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে : ডা. শাহাদাত

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আ.লীগ নেতাদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে : ডা. শাহাদাত

বাংলাদেশে ‘ম্যাগনিটস্কি নিষেধাজ্ঞা’ দেয়ার দাবি

বাংলাদেশে ‘ম্যাগনিটস্কি নিষেধাজ্ঞা’ দেয়ার দাবি

ডিবি পরিচয়ে কমলনগরের যুবক অপহরণ, ১৬ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি

ডিবি পরিচয়ে কমলনগরের যুবক অপহরণ, ১৬ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি

সদরপুরের চাঞ্চল্যকর মান্নান হত্যার পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

সদরপুরের চাঞ্চল্যকর মান্নান হত্যার পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

উদ্বোধনী ম্যাচে ‘বিপজ্জনক’ ইংল্যান্ডের সামনে নিউজিল্যান্ড

উদ্বোধনী ম্যাচে ‘বিপজ্জনক’ ইংল্যান্ডের সামনে নিউজিল্যান্ড

কাপাসিয়ার বাস চাপায় মাদরাসা শিক্ষক নিহত

কাপাসিয়ার বাস চাপায় মাদরাসা শিক্ষক নিহত

পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলতে ভারত যাচ্ছে জাতীয় টার্গেটবল দল

পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলতে ভারত যাচ্ছে জাতীয় টার্গেটবল দল

সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় হাসপাতালের বাবুর্চি স্ট্যান্ড রিলিজ

সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় হাসপাতালের বাবুর্চি স্ট্যান্ড রিলিজ

চারদিনের ব্যবধানে ফের কমল সোনার দাম

চারদিনের ব্যবধানে ফের কমল সোনার দাম

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করছে: সালমান এফ রহমান

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করছে: সালমান এফ রহমান

জাতীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে

জাতীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে

নিরপেক্ষ সরকারের অধীন ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না

নিরপেক্ষ সরকারের অধীন ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না

বেতের নামাজ না পড়া প্রসঙ্গে।

বেতের নামাজ না পড়া প্রসঙ্গে।

নিরাপত্তা হুমকির কারণেই বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিল!

নিরাপত্তা হুমকির কারণেই বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিল!

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মিলিয়ে দেবে নানা-নাতনিকে

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মিলিয়ে দেবে নানা-নাতনিকে

নীতি পুলিশের নিগ্রহ, কোমায় ১৬ বছরের কিশোরী! ফের উত্তপ্ত ইরান

নীতি পুলিশের নিগ্রহ, কোমায় ১৬ বছরের কিশোরী! ফের উত্তপ্ত ইরান

বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. বিমান বিহারী বোস মারা গেছেন

বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. বিমান বিহারী বোস মারা গেছেন