মাঠ প্রশাসনে আতঙ্ক

হঠাৎ সচিবদের বৈঠক নিয়ে কৌতূহল

Daily Inqilab স্টাফ রিপোর্টার

২৪ জুলাই ২০২৩, ১১:৪৪ পিএম | আপডেট: ২৫ জুলাই ২০২৩, ১২:০৮ এএম

জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ঘোলাটে। নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের বিষয়ে মাঠের বিরোধী দলখ্যাত বিএনপিসহ অনেকগুলো রাজনৈতিক দলগুলো এক দফার আন্দোলনে মাঠে নেমেছেন। আবার সরকারের পক্ষ থেকে সংবিধানের বাইরে নির্দলীয় সরকারের নির্বাচনে যাবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়া হয়েছে। এ পরিস্থিতির মধ্যেই প্রশাসনের বড় বড় কর্মসচিব সভাটি হচ্ছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে মাহবুব হোসেন দায়িত্ব নেওয়ার পর সচিব সভার প্রতি তিনি তেমন আগ্রহ দেখাননি বলে জানা গেছে।

জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে আজকের বৈঠকে কেন্দ্রীয় ও মাঠ প্রশাসনের প্রস্তুতি, দেশজুড়ে চলমান মেগা প্রকল্পগুলোর কার্যক্রম, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অধীনে দপ্তর-সংস্থারগুলোর শূন্য পদ পূরণের অগ্রগতির বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। এ ছাড়া জাতীয় নির্বাচনের তপশিল ঘোষণার আগে যেসব উন্নয়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন করার লক্ষ্য নির্ধারণ করা আছে, সেগুলোতে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জাননা গেছে। এদিকে হঠাৎ সচিবদের বৈঠক নিয়ে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সভাপতিত্বে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভাটিকে ভিন্ন আঙ্গিকের ‘সচিব সভা’ বলে অভিহিত করছেন সংশ্লিষ্টরা। দায়িত্বশীল একাধিক কর্মকর্তা বৈঠকের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন ইনকিলাবকে বলেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু বাংলাদেশ সচিবালয়ে সিনিয়র সচিব ও সচিবদের নিয়ে এক সভা আয়োজন নিয়ে বিশেষ কৌতূহল তৈরি হয়েছিল। তবে সেই বৈঠক বিশেষ কোনো সভা ছিল না। সভা শেষে বেলা সোয়া ১টার দিকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পড়েন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এটি বিশেষ কোনো মিটিং না। আমরা যে নিয়মিত মিটিং করি সেই মিটিং। এটি আগামীকাল ছিল, ওই সময় আমার অন্য একটি প্রোগ্রাম পড়েছে। সেজন্য মিটিং একদিন আগে করেছি। এ মিটিংয়ে কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়েছি কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের তরফ থেকে বিশেষ কোনো নির্দেশনা ছিল না। আমরা এই মিটিংয়ে সাধারণত যে জিনিসটা আলোচনা করি সেটাই ছিল। আমাদের অনেকগুলো প্রস্তাব ছিল। আমাদের কিছু নিয়োগবিধি ছিল, অর্গানোগ্রাম অ্যাপ্রুভ করার বিষয় ছিল সেগুলো আমরা আলোচনা করেছি। আমাদের যে সরকারি হাসপাতাল ছিল সেই হাসপাতালের নিয়োগবিধিটা আমরা করে দিয়েছি। নির্বাচনের আগে মাঠ পর্যায়ে প্রশাসন কীভাবে কাজ করবে সে বিষয়ে কোনো নির্দেশনা ছিল কি নাএমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, না, না। এরকম কিছু না।স্কুল সরকারিকরণের বিষয় ছিল কি না- জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, সেটি আমাদের প্রতিটি মিটিংয়ে সাবজেক্ট থাকে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সূত্রে জানা গেছে,সচিবসভায় সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। বিশেষ করে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে মাঠ প্রশাসনের প্রস্তুতির বিষয়ে আলোচনা হবে। এ ছাড়া সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প, বিদ্যুৎ, জ্বালানি, শূন্য পদসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। বর্তমানে সচিব পদমর্যাদার কর্মকর্তা রয়েছেন ৮৫ জন। প্রশাসনিক উন্নয়নসংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠকে মোট ছয়টি প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য উত্থাপন করা হবে, যার মধ্যে সবচেয়ে বড় প্রস্তাব হচ্ছে সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরকারীকরণের আগে কর্মরত শিক্ষক–কর্মচারীদের আত্তীকরণের লক্ষ্যে ৭০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য ৩ হাজার ২৭৬টি পদ সৃষ্টি করা। সাধারণত এ ধরনের বৈঠকের আগে নির্ধারিত এজেন্ডা দিয়ে সচিবদের চিঠি দেওয়া হয়। এবার সে রকম কোনো এজেন্ডা দেওয়া হয়নি। তাই সংশ্লিষ্টরা ধারণা করছেন, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে আজকের বৈঠকে কেন্দ্রীয় ও মাঠ প্রশাসনের প্রস্তুতি, দেশজুড়ে চলমান মেগা প্রকল্পগুলোর কার্যক্রম, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অধীনে দপ্তর-সংস্থারগুলোর শূন্য পদ পূরণের অগ্রগতির বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। এ ছাড়া জাতীয় নির্বাচনের তপশিল ঘোষণার আগে যেসব উন্নয়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন করার লক্ষ্য নির্ধারণ করা আছে, সেগুলোতে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার নির্দেশনা দিতে পারেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। এর বাইরে উপস্থিত সচিবদের কাছ থেকে তাদের পরামর্শও চাওয়া হবে, যাতে সামনের দিনের যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার কৌশল নির্ধারণে আগাম প্রস্তুতি থাকে।

বিশেষ করে আগের দুই মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সময় পরপর তিনটি সচিব সভা অনুষ্ঠিত হওয়ায় তিনি একটু বিরতি দিয়ে বসতে চেয়েছেন। এরই মধ্যে নির্বাচন সামনে রেখে স্বাভাবিকের চেয়ে কাজের চাপ বেড়ে যাওয়ায় হঠাৎ সবাইকে নিয়ে সভায় বসার সিদ্ধান্ত হয়। উল্লেখ্য, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন আগামী ১৩ অক্টোবর স্বাভাবিক অবসরে যাবেন। প্রশাসনের আরেক শীর্ষ পদধারী প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবকে ইতোমধ্যে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ মাহবুব হোসেনও পেতে পারেন।

নতুন মন্ত্রিপরিষদ সচিব দায়িত্ব নেওয়ার পর সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবদের নিয়ে সভা ডাকেন। সেখানে নতুন নেতৃত্বের জায়গা থেকে প্রশাসনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নির্দেশনা দেন। এ ছাড়া কোনো কোনো বছর সচিব সভায় সরকারপ্রধান উপস্থিত থেকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেন। সেই সঙ্গে সচিবদের কাছ থেকে সরাসরি পরামর্শ এবং তাদের চাওয়া-পাওয়ার কথা শোনেন।

প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটি’র বৈঠক মাসের বিভিন্ন সময়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এই মাসে এ-সংক্রান্ত বৈঠকের তারিখ নির্ধারণ ছিল আগামীকাল মঙ্গলবার। হঠাৎ সেই তারিখ পরিবর্তন করে আজ সোমবার এগিয়ে আনা হয়েছে। সেই সঙ্গে বৈঠকে সব মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ও সচিবদের বিশেষ আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবসহ ১৫ জন উপস্থিত থাকেন। সেই সঙ্গে বৈঠকের এজেন্ডা-সংক্রান্ত মন্ত্রণালয়ের সচিবরা আমন্ত্রণ পান।

এবারের বৈঠকের জন্য দেওয়া চিঠিতে কমিটির সদস্যদের বাইরে প্রস্তাবক মন্ত্রণালয়ের তিন সচিবকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। তবে গতকাল রোববার সংশোধিত চিঠিতে বিশেষ আমন্ত্রণে সব সিনিয়র সচিব ও সচিবদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। গতকালের প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির এজেন্ডায় তেমন কিছু রাখা হয়নি। সংক্ষেপে নিয়মিত বৈঠকের কাজ শেষ করে ‘ভিন্ন আঙ্গিক’এর সচিব সভা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক কর্মকর্তা অতিরিক্ত সচিব জানান, প্রথমে সচিবসভা হবে। পরে প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠক হবে। মঙ্গলবার প্রশাসনিক উন্নয়নসংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। সেখানে মোট ছয়টি আলোচসূচি ছিল। সাধারণত, যেসব মন্ত্রণালয়ের বিষয় থাকে, সেসব মন্ত্রণালয়ের সচিবেরা এই বৈঠকে উপস্থিত থাকেন। গতকাল বিকেলে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়। তাতে প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠক পরিবর্তন করে সোমবার আনা হয়। একই সময়ে সচিবসভাও অনুষ্ঠিত হয়।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : সব মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : সব মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

ফের পুতিনের বিরুদ্ধে আপত্তিকর বক্তব্য বাইডেনের

ফের পুতিনের বিরুদ্ধে আপত্তিকর বক্তব্য বাইডেনের

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ : বন্ধ হলো বরিশাল বিমানবন্দরের সব কার্যক্রম

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ : বন্ধ হলো বরিশাল বিমানবন্দরের সব কার্যক্রম

হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ

হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ

রয়েল এয়ার ফোর্সের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

রয়েল এয়ার ফোর্সের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলগুলোকে আশ্রয়স্থল হিসাবে খুলে দেয়া হয়েছে

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলগুলোকে আশ্রয়স্থল হিসাবে খুলে দেয়া হয়েছে

রাজকোটে গেমিং জোন অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৩২

রাজকোটে গেমিং জোন অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৩২

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে রেড অ্যালার্ট জারি

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে রেড অ্যালার্ট জারি

উপকূলে রেমালের প্রভাব, আতঙ্ক জনমনে

উপকূলে রেমালের প্রভাব, আতঙ্ক জনমনে

যশোরে 'রেমাল' মোকাবিলায় ২২৪৫ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

যশোরে 'রেমাল' মোকাবিলায় ২২৪৫ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

উখিয়ায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথসহ ১ রোহিঙ্গা যুবক আটক

উখিয়ায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথসহ ১ রোহিঙ্গা যুবক আটক

নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

গরমে সিদ্ধ হচ্ছে উত্তর ভারত, তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই

গরমে সিদ্ধ হচ্ছে উত্তর ভারত, তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই

সিদ্ধিরগঞ্জে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতী নারী নিহত

সিদ্ধিরগঞ্জে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতী নারী নিহত

চিনে রাষ্ট্রিয়ভাবে মসজিদের আকৃতিকে প্যাগোডার আকৃতিতে বদলে ফেলা হয়

চিনে রাষ্ট্রিয়ভাবে মসজিদের আকৃতিকে প্যাগোডার আকৃতিতে বদলে ফেলা হয়

আজ গুলশানে দেখা মিলবে তুর্কি অভিনেতা বুরাকের

আজ গুলশানে দেখা মিলবে তুর্কি অভিনেতা বুরাকের

অর্ধশত শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, শিক্ষক গ্রেপ্তার

অর্ধশত শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, শিক্ষক গ্রেপ্তার

বাস্তবতার ভিত্তিতে ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনা করবে রাশিয়া: পুতিন

বাস্তবতার ভিত্তিতে ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনা করবে রাশিয়া: পুতিন