বকেয়া টাকা দাবি করায় ক্যান্টিন মালিকের দাড়ি ছিঁড়লেন ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা

Daily Inqilab বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৪ এএম | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৪ এএম

বকেয়া টাকা দাবি করায় ক্যান্টিন মালিকের দাড়ি ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মাস্টার দ্য সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে। আজ সোমবার দুপুরে হলের ক্যান্টিনে এ ঘটনা ঘটে।
অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতার নাম আরাফাত হোসাইন অভি। তিনি হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী। ভুক্তভোগী ক্যান্টিন মালিকের নাম ফাহিম হোসেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায় , ক্যান্টিনে দুপুরে খাবার খেতে গেলে বকেয়া টাকা চান ক্যান্টিন মালিক ফাহিম। এটা শুনেই ক্ষেপে গিয়ে ক্যান্টিন মালিক ফাহিমকে কিল ঘুষি মারেন এবং দাড়ি ছিঁলে ফেলেন আরাফাত। পরে হলের শিক্ষার্থী এবং ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ ঘটনায় ছিঁড়া দাঁড়ি হাতে নিয়ে হল প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ক্যান্টিন মালিক।

ক্যান্টিন মালিক ফাহিম বলেন, দুপুরে খাবার শেষে আমি আরাফাতকে বললাম ভাই বিলটা দেন। এর আগেরও কিছু বিল আছে। এরপর সে কইতাছে, পরে দিমু তোমারে, লিখা রাখো। পরে আমি কইছি, আচ্ছা লিখা রাখতেছি। এরপর তার সাথে আমার কথা শেষ। এটা ম্যানেজারকে লিখতে বলতেছি যে, ৬টা খানার সাথে এই বিলটা লেখ। পরবর্তীতে উনি আর বাকী খাইবো না। এরপর দুই-তিন মিনিট চইলা গেছে। তখন আইসা বলতাছে, এই ফাহিম এদিকে আয়। পরে গেছি। যাওয়ার পর কইতাছে, কার লগে কীভাবে কি কইতে হয় জানস না? তখন আমি বললাম, আমি কি কইছি ভাই? আমি তো বিলটা চাইলাম খালি। আমি কইছি না, বিল আমি পরে দিমু। এটা বলেই সে আমার দাঁড়িতে ধইরা এক মুঠ দাড়ি ছিড়ে ফেলছে। তখন যা মুখে আসছে তাই বলে গালি দিছে আর আমাকে ও ম্যানেজারকে কিল, ঘুষি, লাথি দেওয়া শুরু করলো।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা ইনকিলাবকে বলেন, আমার বিকাশে সমস্যা থাকায় টাকা তুলতে পারছিলাম না। তার প্রমাণও আমি দেখিয়েছি। কিন্তু ফাহিম বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করে ম্যানেজারকে বললেন আমাকে যেন নেক্সট টাইম খাবার না দেয়। এটা শুনে আমি তাকে বললাম ভাই আপনি এটা কীভাবে করতে পারলেন? আমি তো বললাম আমার বিকাশে সমস্যা হচ্ছে, ঠিক হলে টাকা উঠিয়ে দিয়ে দিব। আমি তো অপরিচিত কেউ না। তারপর তিনি আমাকে হাত দিয়ে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেন। তখন আমি রেগে যাই কারণ তিনি তো একজন শিক্ষার্থীর সাথে এমন ব্যবহার করতে পারেন না। তারপর তিনি আমার টিশার্ট ধরলে আমিও তার জামা ধরি। পাতলা কাপড় হওয়ায় তার জামা ছিঁড়ে যায় এবং ধাক্কাধাক্কির এক পর্যায়ে আমার হাত লেগে তার দাড়ি ছিঁড়ে যায়।

সূর্য সেন হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. জাকির হোসেন ভূইয়া ইনকিলাবকে বলেন, এ বিষয়ে আমরা লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষক ও সূর্যসেন হলের সিনিয়র হাউজ টিউটর আজহারুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে তিন দিনের মধ্যে তাদেরকে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

শিক্ষার্থীদের সঠিক মূল্যায়নের জন্য প্রয়োজন দক্ষ শিক্ষকঃ গবেষণা

শিক্ষার্থীদের সঠিক মূল্যায়নের জন্য প্রয়োজন দক্ষ শিক্ষকঃ গবেষণা

দূষণজনিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী

দূষণজনিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী

কুমিল্লায় দুগ্ধপোষ্য শিশু চুরির অপরাধে এক নারীর দশ বছরের কারাদণ্ড

কুমিল্লায় দুগ্ধপোষ্য শিশু চুরির অপরাধে এক নারীর দশ বছরের কারাদণ্ড

ভি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন এনেছে ভিভো

ভি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন এনেছে ভিভো

অ্যাপলকে ১৮০ কোটি ইউরো জরিমানা করেছে ইইউ

অ্যাপলকে ১৮০ কোটি ইউরো জরিমানা করেছে ইইউ

গ্রুমিং সচেতনতার জন্য বিয়ার্ডো ও লিভনের স্পেশাল এডিশন ‘স্টাইলিং সল্যুশন’

গ্রুমিং সচেতনতার জন্য বিয়ার্ডো ও লিভনের স্পেশাল এডিশন ‘স্টাইলিং সল্যুশন’

মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং দেশের শান্তি- শৃঙ্খলা রক্ষায় আল্লাহর রহমত কামনা করে মোকামিয়ার দুই দিনব্যাপী মাহফিল সম্পন্ন

মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং দেশের শান্তি- শৃঙ্খলা রক্ষায় আল্লাহর রহমত কামনা করে মোকামিয়ার দুই দিনব্যাপী মাহফিল সম্পন্ন

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭, সাধারণ কেন্দ্রে থাকবে ১৬ জনের ফোর্স

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭, সাধারণ কেন্দ্রে থাকবে ১৬ জনের ফোর্স

হিলি সীমান্ত পরিদর্শনে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর প্রতিনিধি দল

হিলি সীমান্ত পরিদর্শনে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর প্রতিনিধি দল

আড়াই ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আসেনি চিনি মিলের আগুন

আড়াই ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আসেনি চিনি মিলের আগুন

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভূমিকা রাখবেন স্মার্ট ইমামরা-সিকৃবি ভিসি

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভূমিকা রাখবেন স্মার্ট ইমামরা-সিকৃবি ভিসি

প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর বাড়িতে পুলিশের অভিযান, সমালোচনার মুখে পাকিস্তানের সরকার

প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর বাড়িতে পুলিশের অভিযান, সমালোচনার মুখে পাকিস্তানের সরকার

সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ২১৪ জনকে সহায়তা দেয়া হয়েছে : ওবায়দুল কাদের

সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ২১৪ জনকে সহায়তা দেয়া হয়েছে : ওবায়দুল কাদের

ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ

ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ

শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় চিরবিদায় নিলেন শেরপুরের প্রবীণ সাংবাদিক তালাত মাহমুদ

শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় চিরবিদায় নিলেন শেরপুরের প্রবীণ সাংবাদিক তালাত মাহমুদ

এখানে এলেই মনটা ভারী হয়ে যায় : প্রধানমন্ত্রী

এখানে এলেই মনটা ভারী হয়ে যায় : প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতি মামলায় খালাস পেলেন থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতি মামলায় খালাস পেলেন থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী

পাকিস্তানের ২৪তম প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিলেন শেহবাজ শরিফ

পাকিস্তানের ২৪তম প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিলেন শেহবাজ শরিফ

আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশ, ব্যারিস্টার গোহর পিটিআই চেয়ারম্যান নির্বাচিত

আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশ, ব্যারিস্টার গোহর পিটিআই চেয়ারম্যান নির্বাচিত

চট্টগ্রামে এস আলম গ্রুপের চিনির কারখানায় আগুন

চট্টগ্রামে এস আলম গ্রুপের চিনির কারখানায় আগুন