করোনা সনদ নিয়ে আলোচিত ডা. সাবরিনা বইমেলায়

Daily Inqilab রাহাদ উদ্দিন

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৪ এএম | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৪ এএম

মহামারী করোনার সময়ে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করে ভুয়া সনদ প্রদানের অভিযোগে চিকিৎসক ডা. সাবরিনা হুসেন মিষ্টি হয়ে ওঠেন ‘টক অফ দ্য কান্ট্রি’। এক মামলায় জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান এই চিকিৎসককে তখন তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। কারাজীবনের অন্ধকার তিন বছর পর মুক্ত হয়ে এখন তিনি লেখনীর মাধ্যমে আলো ছড়াচ্ছেন বইমেলায়। তবে পুরনো বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছেন না এই চিকিৎসকের। গত রোববার বইমেলায় দর্শনার্থীদের ‘ভুয়া ভুয়া’ দুয়োধ্বনিতে হেনস্তা হতে হয়েছে এই চিকিৎসককে। সমালোচনা ও ঘৃণার মধ্যেও এদিন মেলায় স্টক আউট হয় তার লেখা বই। যেন অতিউৎসাহী জনতার ঘৃণাকে ছাপিয়ে বাজিমাত করেছেন তিনি।

করোনা কালের আলোচিত সমালোচিত এই চিকিৎসক নিজের তিন বছরের কারা জীবনের অন্ধকার দিনগুলো নিয়ে লিখেছেন ‘বন্দিনী’ নামে একটি বই। মেলায় এসে দর্শনার্থীদের ভুয়া ভুয়া দুয়োধ্বনিতে মন খারাপ হলেও অস্বাভাবিকভাবে ইতমধ্যেই তার বইটি ‘স্টক আউট’ হয়েছে। গতকাল সোমবার ‘স্টক আউটের’ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বইটির প্রকাশ প্রতিষ্ঠান আহমদ পাবলিশিং হাউজের পরিচালক মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ।

মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ডা. সাবরিনার লেখা ‘বন্দিনী’ বইটি এক হাজার কপি ছাপানো হলেও সব বই গত শনিবার স্টক আউট হয়েছে। অনেক পাঠক আসছেন বইটি নিতে কিন্তু আমরা দিতে পারছি না। আমরা বইটি নিয়ে কাজ করছি। দুই একদিনের মধ্যেই আরো নতুন বই আসবে। গতকাল সোমবারও নতুন ৫০ টি বই এসেছে।

মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, বই তো যে কেউ লিখতে পারে, স্বাধীন কিংবা বন্দী থেকেও। একজন প্রকাশক হিসেবে আমি দেখি বইয়ের মান। কে লিখেছে তা মুখ্য নয়, কী লিখেছে সেটাই মুখ্য বিষয়। তিনি বলেন, আমি বইটি পড়েছি , এখানে কারাবন্দীদের জেল জীবনের নারকীয় বর্ণনা ফুটে উঠেছে। যা অনেক পাঠকের আগ্রহ তৈরিতে সহায়ক হবে বলে প্রত্যাশা করেছিলাম। বইটিতে উঠে এসেছে জেলখানার উচ্চবিত্ত-নিম্নবিত্ত বন্দীর পার্থক্য, ক্ষমতার দাপট, ঝগড়া-বিবাদ, খুনসুটি, চাপা কান্না, মান-অভিমানসহ যাপিত জীবনের এক অদ্ভুত সত্য। গ্রন্থটি পড়ে পাঠক শুধু সমৃদ্ধই হবেন না, মুগ্ধ হবেন, বিস্মিত হবেন। আমি যে বইটি প্রকাশ করেছি তা পাঠক প্রিয়তা পাচ্ছেন, প্রকাশক হিসেবে এখানেই আমার সফলতা।

আহমেদ বলেন, আলোচিত সমালোচিত ব্যক্তি বলেই হয়তো না ওবার বই পাঠক বেশি কিনছেন। তবে এমন কিছু আমি প্রকাশক হিসেবে ভাবিনি। আমি প্রত্যাশা করিনি এত বেশি বই পাঠক নিবেন। অপ্রত্যাশিত কাটতিতে প্রকাশক হিসেবে আমি আনন্দিত।

এদিকে গতকাল মেলার ১২তম দিনে নতুন বই এসেছে ১১৫টি। বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় জন্মশতবার্ষিক শ্রদ্ধাঞ্জলি হেনা দাস শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জোবাইদা নাসরীন। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ঝর্না রহমান এবং ফওজিয়া মোসলেম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। আলোচকবৃন্দ বলেন, বিপ্লবী হেনা দাস ছাত্রজীবন থেকেই আন্দোলন-সংগ্রামের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে ছিলেন। নারী আন্দোলন, শিক্ষক আন্দোলন ও সামাজিক আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় মানুষের মধ্যে থেকে আজীবন তিনি বিপন্ন মানুষের কল্যাণ ও মুক্তির জন্য সংগ্রাম করেছেন। কোনো বাধাই তাঁকে দাবিয়ে রাখতে পারেনি। সব বাধা উপেক্ষা করে দৃঢ়চিত্তে নিজের আদর্শের পথে অগ্রসর হয়েছেন হেনা দাস। বিপ্লবী চেতনার পাশাপাশি তিনি ছিলেন সৃজনশীল মননের অধিকারী একজন মানুষ।
সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর শিরীণ আখতার বলেন, বিপ্লবী হেনা দাস অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার থেকেছেন সারাটি জীবন। তার প্রতিটি কাজে দৃঢ় মনোবল ও সংগ্রামী আদর্শের প্রতিফলন আমরা দেখতে পাই। আমাদের জীবনে, মননে এবং সুন্দর সমাজ গড়ার আন্দোলনে বিপ্লবী হেনা দাস সবসময় স্মরণীয় ও অনুকরণীয় হয়ে থাকবেন। ‘আজ লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন কথাসাহিত্যিক সালমা বাণী, কবি ফারহানা রহমান, গবেষক মিলটন কুমার দেব এবং কথাসাহিত্যিক ইকবাল খন্দকার।’
এদিকে আজ মঙ্গলবার একুশে বইমেলার ১৩তম দিন। মেলা শুরু হবে বিকেল ৩টায় এবং চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত।বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে স্মরণ: সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন আহমাদ মোস্তফা কামাল। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন হরিশংকর জলদাস এবং ফারজানা সিদ্দিকা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম।


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

এই বিভাগের আরও

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন অধ্যাপক মোসলেমা খাতুন
ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের সমস্যার মূলে সিএমসি
পল্টনে পুলিশ হত্যা মামলার আসামি নীলফামারীতে গ্রেফতার
গত বছরের জুন পর্যন্ত মেট্রোরেলে আয় ১৮,২৮,০৬,৫১৪ টাকা
১ লাখ টন চিনি পুড়ে ছাই, এখনো জ্বলছে আগুন
আরও

আরও পড়ুন

ভাঙ্গা থেকে পায়রা হয়ে কুয়াকাটা পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হবে

ভাঙ্গা থেকে পায়রা হয়ে কুয়াকাটা পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হবে

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন অধ্যাপক মোসলেমা খাতুন

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন অধ্যাপক মোসলেমা খাতুন

একুশে গ্রন্থমেলায় বিক্রয় শীর্ষে এম মিরাজ হোসেনের নতুন দুই বই

একুশে গ্রন্থমেলায় বিক্রয় শীর্ষে এম মিরাজ হোসেনের নতুন দুই বই

ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের সমস্যার মূলে সিএমসি

ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের সমস্যার মূলে সিএমসি

পল্টনে পুলিশ হত্যা মামলার আসামি নীলফামারীতে গ্রেফতার

পল্টনে পুলিশ হত্যা মামলার আসামি নীলফামারীতে গ্রেফতার

গত বছরের জুন পর্যন্ত মেট্রোরেলে আয় ১৮,২৮,০৬,৫১৪ টাকা

গত বছরের জুন পর্যন্ত মেট্রোরেলে আয় ১৮,২৮,০৬,৫১৪ টাকা

টিকিটের দাম ২ কোটিরও বেশি! বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে তুঙ্গে উত্তেজনা

টিকিটের দাম ২ কোটিরও বেশি! বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে তুঙ্গে উত্তেজনা

মনিপুর স্কুলকে গ্রাস করার অপচেষ্টা চলছে: সংবাদ সম্মেলনে অভিভাবকদের অভিযোগ

মনিপুর স্কুলকে গ্রাস করার অপচেষ্টা চলছে: সংবাদ সম্মেলনে অভিভাবকদের অভিযোগ

১ লাখ টন চিনি পুড়ে ছাই, এখনো জ্বলছে আগুন

১ লাখ টন চিনি পুড়ে ছাই, এখনো জ্বলছে আগুন

রুশ ও মার্কিন নভোচারী নিয়ে স্পেসএক্স এর যাত্রা

রুশ ও মার্কিন নভোচারী নিয়ে স্পেসএক্স এর যাত্রা

লাক্ষাদ্বীপে কেন দ্বিতীয় সামরিক নৌঘাঁটি তৈরি করছে ভারত?

লাক্ষাদ্বীপে কেন দ্বিতীয় সামরিক নৌঘাঁটি তৈরি করছে ভারত?

কুসিক উপনির্বাচন : সংখ্যালঘু নতুন ও দক্ষিনের ভোটার জয়-পরাজয়ে ফ্যাক্টর

কুসিক উপনির্বাচন : সংখ্যালঘু নতুন ও দক্ষিনের ভোটার জয়-পরাজয়ে ফ্যাক্টর

সিরাজগঞ্জে ‘শিক্ষকের গুলিতে’ মেডিক্যাল কলেজ শিক্ষার্থী আহত

সিরাজগঞ্জে ‘শিক্ষকের গুলিতে’ মেডিক্যাল কলেজ শিক্ষার্থী আহত

বাংলাদেশকে কঠিন লক্ষ্য দিল শ্রীলঙ্কা

বাংলাদেশকে কঠিন লক্ষ্য দিল শ্রীলঙ্কা

সুগার মিলের আগুন নিয়ন্ত্রণে নৌবাহিনী

সুগার মিলের আগুন নিয়ন্ত্রণে নৌবাহিনী

টেকসই ভবিষ্যতের লক্ষ্যে পরিবেশবান্ধব জ্বালানিতে গুরুত্ব দিচ্ছে গ্রামীণফোন

টেকসই ভবিষ্যতের লক্ষ্যে পরিবেশবান্ধব জ্বালানিতে গুরুত্ব দিচ্ছে গ্রামীণফোন

মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম গন্তব্য আবুধাবীতে ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা

মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম গন্তব্য আবুধাবীতে ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা

ওয়ারীর ১৪ রেস্টুরেন্টে অভিযান, আটক ১৬

ওয়ারীর ১৪ রেস্টুরেন্টে অভিযান, আটক ১৬

শিক্ষার্থীদের সঠিক মূল্যায়নের জন্য প্রয়োজন দক্ষ শিক্ষকঃ গবেষণা

শিক্ষার্থীদের সঠিক মূল্যায়নের জন্য প্রয়োজন দক্ষ শিক্ষকঃ গবেষণা

দূষণজনিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী

দূষণজনিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী