সড়ক পথে ভারত গেল অনূর্ধ্ব-২১ হকি দল

যুব বিশ্বকাপের স্বপ্ন বাংলাদেশের

Daily Inqilab স্পোর্টস রিপোর্টার

২৭ এপ্রিল ২০২৩, ১০:০০ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ০৭:১৩ পিএম

ওমানের সালালায় আগামী ২৩ মে থেকে ১ জুন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে জুনিয়র এশিয়া কাপ হকি টুর্নামেন্টের নবম আসরের খেলা। দশ দলের এই টুর্নামেন্টের ‘এ’ গ্রুপে খেলবে ভারত, পাকিস্তান, জাপান, থাইল্যান্ড ও চাইনিজ তাইপে। ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ হিসেবে থাকছে দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, স্বাগতিক ওমান ও উজবেকিস্তান। এই টুর্নামেন্টে ভালো ফলাফল করে আসন্ন যুব বিশ্বকাপ হকিতে খেলার স্বপ্ন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২১ জাতীয় দলের। স্বপ্নপূরণে তারা বেশ কিছুদিন ধরেই দেশের মাটিতে নিবিড় অনুশীলনে মগ্ন রয়েছে। এবার দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও কন্ডিশনিং ক্যাম্প করতে গেল লাল-সবুজের যুব হকি দল। এ লক্ষ্যে তারা গতকাল মধ্যরাতে ভারতের উদ্দেশ্যে সড়ক পথে ঢাকা ছেড়েছে। কন্ডিশনিং ক্যাম্পের পাশাপাশি ভারতে বেশ কিছু প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ যুব হকি দল। এই সফরকে সামনে রেখে কাল বিকালে মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামস্থ বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের (বাহফে) সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাহফের সহ-সভাপতি জাকি আহমেদ রিপন, সাধারণ সম্পাদক একেএম মমিনুল হক সাঈদ, যুগ্ম-সম্পাদক কামরুল ইসলাম কিসমত, কোষাধক্ষ্য হাজী মো. হুমায়ুন ও অনূর্ধ্ব-২১ জাতীয় হকি দলের প্রধান কোচ মামুন-উর রশিদ।

জুনিয়র এশিয়া কাপে অন্তত সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে পারলেই আসন্ন যুব বিশ্বকাপ হকিতে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে লাল-সবুজরা। যে কারণে ওমানের টুর্নামেন্টকে গুরুত্ব দিচ্ছে ফেডারেশন। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ কোচ মামুন-উর রশিদ বলেন,‘ওমানে অনুষ্ঠেয় জুনিয়র এশিয়া কাপের শেষ চারে খেলতে পারলেই যুব বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করবে বাংলাদেশ। সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা ভারতে কন্ডিশনিং ক্যাম্প করে ওমানে যুব এশিয়া কাপ খেলতে যাবো।’ তিনি আরও বলেন, ‘ওমানে আমাদের ব্যাক টু ব্যাক দুই দিনে দুটি ম্যাচ খেলতে হবে। সেই ধারা বজায় রাখতেই প্রস্তুতি ম্যাচও দুই দিনে দুটি করে রাখা হয়েছে। এতে ছেলেদের ম্যাচ টেম্পারমেন্ট বাড়বে।’ অধিনায়ক প্রিন্স লাল সামন্তের কথা, ‘গত জানুয়ারিতে ওমানে গিয়ে আমরা এএইচএফ কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়ে এসেছি। সেই ধারাবাহিকতায় যুব এশিয়া কাপেও ভাল করতে চাই। ভারতে প্রস্তুতি আমাদের জন্য অনেক ভাল হবে। আশাকরি যুব বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করতে পারবো আমরা।’

ওমানের জুনিয়র এশিয়া কাপের জন্য গত ৩৬ জন খেলোয়াড় নিয়ে ৬ মার্চ থেকে মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে শুরু হয় জাতীয় যুব দলের অনুশীলন ক্যাম্প। পারফরম্যান্সের বিচারে পর্যায়ক্রমে খেলোয়াড় সংখ্যা কমিয়ে ২৩ জনের দল করা হয়। এ দলটিকে নিয়েই কাল রাতে সড়ক পথে ভারতে গেছেন বাহফের কর্তারা। ঢাকা থেকে বাসযোগে কলকাতা, এরপর ট্রেনযোগে দিল্লি হয়ে ফের বাসযোগে হরিয়ানায় যাবে বাংলাদেশ যুব হকি দল। সেখানে ছয়টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন যুবারা। এর মধ্যে চারটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ১, ২, ৪ ও ৫ মে হরিয়ানা স্টেট দলের বিপক্ষে। বাংলাদেশ দল ৭ ও ৯ মে দুটি ম্যাচ খেলবে ভগত সিং একাডেমির বিপক্ষে। সেখান থেকে জলান্ধরে গিয়ে আরও চারটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন লাল-সবুজের যুবারা। এর মধ্যে ১০ ও ১৪ মে লাভলি প্রফেশনাল বিশ্ববদ্যালয় এবং ১২ ও ১৩ মে দুটি স্থানীয় একাডেমির বিপক্ষে খেলবে প্রিন্স লাল সামন্ত বাহিনী।

ঢাকা থেকে বাসযোগে কলকাতা হয়ে ট্রেনযোগে দিল্লি, তারপর ফের বাসযোগে হরিয়ানা। সব মিলিয়ে প্রায় এক দিনেরও বেশি সময় ভ্রমণেই লেগে যাবে বাংলাদেশ দলের। হকি দলের সড়ক পথের এই সফরকে নিয়ে ইতোমধ্যে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনেও ঘুরে ফিরে এসেছে খেলোয়াড়দের ভ্রমণক্লান্তি ও পৃষ্ঠপোষকের বিষয়াদি। বাহফের সাধারণ সম্পাদক একেএম মমিনুল হক সাঈদ ভ্রমণক্লান্তির ব্যাখ্যা দেন এভাবে,‘কলকাতা থেকে ভালোমানের ট্রেনে করেই দিল্লি যাবে খেলোয়াড়রা। স্লিপিং কোচে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুমিয়ে ভ্রমণ করবে তারা। তাছাড়া দিল্লি থেকে বাসে ভ্রমণ করতেই হতো।’ তবে তিনি জানান পৃষ্ঠপোষকতার অভাবেই ঢাকা থেকে দল সড়ক পথে কলকাতা গেছে। ভারত থেকেই ওমানে যাবে বাংলাদেশ দল। ভারতে আসা-যাওয়া, ওমানের বিমান খরচ সব মিলিয়ে খরচ হবে প্রায় কোটি টাকা। এ প্রসঙ্গে সাঈদ বলেন,‘সত্যিকার অর্থে আমাদের কোনো বাজেট নেই। নির্দিষ্ট আয় থাকলে বাজেট হতে পারে। সরকার কিংবা আন্তর্জাতিক সংস্থা কোনো মাধ্যমে আমরা অর্থ পাই না। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ আমাদেরকে যে অনুদান দেয়, সেই অনুদানের অর্থ ফেডারেশনের স্টাফদের পেছনেই ব্যয় হয়। বর্তমানে কোনো প্রতিষ্ঠান আমাদেরকে পৃষ্ঠপোষকতা করছে না। ফলে চরম আর্থিক সংকটে থেকেই আসন্ন জুনিয়র এশিয়া কাপে খেলতে যাচ্ছে দল।’ তিনি যোগ করেন, ‘আমরা ৩৬ জনকে নিয়ে ক্যাম্প শুরু করেছিলাম। ভারতে যাচ্ছে ২৩ জন। কন্ডিশনিং ক্যাম্প শেষে ১৮ জন ওমান যাবে ১৭ মে। বাকি পাঁচজন দেশে ফিরে আসবে।’

 

 


বিভাগ : জাতীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

ইণ্ডিগো এয়ারলাইনসের স্বেচ্ছাচারিতা

ইণ্ডিগো এয়ারলাইনসের স্বেচ্ছাচারিতা

বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠিয়ে নিজে সম্মানিত হোন দেশকেও সম্মানিত করুন

বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠিয়ে নিজে সম্মানিত হোন দেশকেও সম্মানিত করুন

বাংলাদেশে এখন আর স্বাধীন সাংবাদিকতা নেই: রিজভী

বাংলাদেশে এখন আর স্বাধীন সাংবাদিকতা নেই: রিজভী

এক দশক পর চ্যাম্পিয়ন কলকাতা

এক দশক পর চ্যাম্পিয়ন কলকাতা

জেমস বন্ডের থিম সং লিখেছিলেন লানা দেল রে, তবে মনোনীত হয়নি

জেমস বন্ডের থিম সং লিখেছিলেন লানা দেল রে, তবে মনোনীত হয়নি

খালেদ মুন্নার ফোক ম্যাশআপ

খালেদ মুন্নার ফোক ম্যাশআপ

চেম্বার আদালতে আপিল করলেন ডিপজল

চেম্বার আদালতে আপিল করলেন ডিপজল

‘অ্যানিমেল’ সিক্যুয়েলে রণবীরের প্রতিপক্ষ ভিকি

‘অ্যানিমেল’ সিক্যুয়েলে রণবীরের প্রতিপক্ষ ভিকি

গানে ফিরছেন সঙ্গীতশিল্পী রিংকু

গানে ফিরছেন সঙ্গীতশিল্পী রিংকু

কোক স্টুডিও বাংলায় ওয়ারফেজের গান

কোক স্টুডিও বাংলায় ওয়ারফেজের গান

উন্নয়ন সম্ভাবনায় দক্ষিণের জনপদ

উন্নয়ন সম্ভাবনায় দক্ষিণের জনপদ

নদী রক্ষায় বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হয়েছে, এ যুদ্ধে আমরা বিজয়ী হব : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

নদী রক্ষায় বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হয়েছে, এ যুদ্ধে আমরা বিজয়ী হব : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাতিল দাবি, ইবি শিক্ষকদের মানববন্ধন

সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাতিল দাবি, ইবি শিক্ষকদের মানববন্ধন

বাসের ওপর উল্টে গেল ট্রাক, ১১ জনের মৃত্যু

বাসের ওপর উল্টে গেল ট্রাক, ১১ জনের মৃত্যু

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপে গলা বদলে ৭ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

গুগল ম্যাপ দেখে গাড়ি চালিয়ে পানিতে পড়লেন ৪ পর্যটক

গুগল ম্যাপ দেখে গাড়ি চালিয়ে পানিতে পড়লেন ৪ পর্যটক

পৃথিবীর কাছাকাছি বাসযোগ্য নতুন গ্রহ আবিষ্কার

পৃথিবীর কাছাকাছি বাসযোগ্য নতুন গ্রহ আবিষ্কার

বাইডেন ও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতায় ফাটল ধরানোর অভিযোগ কেনেডির

বাইডেন ও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতায় ফাটল ধরানোর অভিযোগ কেনেডির

ভারতে ধনীদের ওপর সম্পদ করারোপ প্রস্তাব

ভারতে ধনীদের ওপর সম্পদ করারোপ প্রস্তাব

নিউইয়র্ক-লন্ডনের তুলনায় এশিয়ায় বাড়ছে আবাসন মূল্য

নিউইয়র্ক-লন্ডনের তুলনায় এশিয়ায় বাড়ছে আবাসন মূল্য