Header Ad

এক্সপ্রেসওয়েতে দুর্ঘটনা : কবে নিরাপদ হবে সড়ক-মহাসড়ক?

Daily Inqilab ইনকিলাব

২০ মার্চ ২০২৩, ০৭:৫৫ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ০১:৩৭ এএম

দেশের সবচেয়ে ব্যয়বহুল, সবচেয়ে দৃষ্টিনন্দন, সব চেয়ে ভালো মহাসড়ক ঢাকা-ভাঙ্গা একপ্রেসওয়েতে এক সড়ক দুর্ঘটনায় ২০ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন। রাজধানী ও পদ্মাসেতুর মধ্যে সংযোগস্থাপনকারী এই মহাসড়কের শিবচরের কুতুবপুরে ইমাদ পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়া থেকে মনে হয়, বাসটি নির্ধারিত গতিসীমার চেয়ে অধিকগতিতে চলছিল। চালকের বিষয়ে জানা গেছে, ঘুম ঘুম চোখে সে গাড়ি চালাচ্ছিল। খবরে বলা হয়েছে, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ৩০ ঘণ্টা বাস চালিয়ে চালক ক্লান্ত ছিল। দুর্ঘটনায় তারও মৃত্যু হয়েছে। বাসের বিষয়ে জানা গেছে, বাসটির রেজিস্ট্রেশন ছিল না, চলাচলের অনুমোদন ছিল না। রুট পারমিট ও রেজিস্ট্রেশন গত নভেম্বরে স্থগিত করা হয়। বাসটি ওই মাসে এক দুর্ঘটনায় পতিত হয়, যাতে তিনজন নিহত হয়। বাসের ফিটনেস সার্টিফিকেট ছিল না; অনেক আগেই তার মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে। এও জানা গেছে, বাসে ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী ছিল। দেখা যাচ্ছে, এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার জন্য বর্ণিত একটি কারণই যথেষ্ট। এখানে তো সব কারণই মজুদ। মালিক ও বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ-কেউই এই দুর্ঘটনার দায় এড়াতে পারবে না। কীভাবে রেজিস্ট্রেশনহীন, ফিটনেসবিহীন, রুটপারমিট বহির্ভূত একটি বাস রাস্তায় চলাচল করতে পারে, তার জবাব মালিক ও বিআরটিএকেই দিতে হবে। পুলিশও দায়মুক্ত থাকতে পারবে না। ট্রাফিক বা হাইওয়ে পুলিশের দেখভাল ও তত্ত্বাবধান করার দায়িত্ব রয়েছে। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়, কোনো সড়ক দুর্ঘটনারই সুষ্ঠু বিচার ও দায়ীদের শাস্তি হয় না। বিচার-শাস্তি না হওয়ায় দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। গত ফেব্রুয়ারিতে ৩০৮টি সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ৩০৩ জনের এবং আহত হয়েছে ৪১৬ জন। গত বছর দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ৭১০ জনের।

দেশে সড়ক-মহাসড়কের সংখ্যা কম নয়। সবচেয়ে ব্যয় বহুল ও আন্তর্জাতিক মানের সড়কও আছে। যেমন, ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে। কিন্তু এসব সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনা প্রায় নিত্যদিনের ঘটনায় পরিণত হয়েছে। পদ্মাসেতু চালু হওয়ার পর থেকে ঢাকা-ভাঙ্গা-এক্সপ্রেসওয়ে চালু হয়েছে। চালু হওয়ার পর থেকে প্রায়ই এই মহাসড়কে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটছে। পথচারি চাপা দেওয়ার ঘটনা বেশি। এছাড়া বাসের সংঘর্ষ, দ্রুতগতির যানবাহনের সঙ্গে কমগতির যানবাহনের সংঘর্ষ ইত্যাদিতে প্রাণহানি হচ্ছে। এক্সপ্রেসওয়েতে যানবাহনের গতিসীমা কত হবে তা বেঁধে দেয়া আছে; কিন্তু অধিকাংশ যানবাহনই তা মানে না। এই সড়কে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ না হলেও নিরুৎসাহিত করার জন্য পদ্মাসেতুতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তা সত্ত্বে এক্সপ্রেসওয়েতে মোটরসাইকেল চলাচল করছে এবং প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। দ্রুতগতির যানবাহনের সঙ্গে কমগতির যানবাহনও চলাচল করেছে। বিশেষজ্ঞ-পর্যবেক্ষকদের মতে, ব্যবস্থাপনাগত দুর্বলতার কারণে সবচেয়ে প্রশস্ত ও নিরাপদ মহাসড়কে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি সাধারণ ঘটনায় পরিণত হয়েছে।

শুধু ঢাকা-ভাঙ্গা-এক্সপ্রেসওয়ে নয়, দেশের কোনো সড়ক-মহাসড়কই দুর্ঘটনামুক্ত নয়। ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-আরিচা, ঢাকা-টাঙ্গাইল প্রভৃতি মহাসড়কে ছোটখাটো দুর্ঘটনা তো আছেই, কখনো কখনো বড় ধরনের দুর্ঘটনাও ঘটতে দেখা যায়। দক্ষ ও প্রশিক্ষিত চালক যানবাহন চালালে, যানবাহনের কাগজপত্র ও কন্ডিশন ঠিক থাকলে, ট্রাফিকবিধি মেনে যানবাহন চলাচল করলে এবং যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ ও তত্ত্বাবধানে ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশ দায়িত্বশীল হলে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি অনিবার্যভাবেই কমতে বাধ্য। স্বীকার করতে হবে, রাস্তা ব্যবস্থাপনা ও যানবাহন ব্যবস্থাপনা বলতে যা বুঝায়, আমাদের দেশে তার অভাব বা ঘাটতি আছে। একারণে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির দিক থেকে আমাদের দেশ এখনো বিশ্বে শীর্ষে অবস্থান করছে। ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলন চলছে দীর্ঘদিন। অথচ, সড়ক নিরাপদ হচ্ছে না। বরং দিনকে দিন আরো অনিরাপদ হয়ে পড়ছে। দুর্ঘটনা বন্ধ বা কম হলেই সড়ক নিরাপদ বলে সাব্যস্ত হবে না। নিরাপদ সড়ক মানে সড়কে সব ধরনের উপদ্রব বন্ধ হওয়া। চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, রাহাজানি, মালামাল লোপাটÑ এসব বন্ধ হলে সড়কে নির্ভয় পরিবেশ প্রতিষ্ঠিত হবে। ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়েসহ সব সড়ক-মহাসড়ক নিরাপদ করতে সড়ক-সেতু কর্তৃপক্ষ, পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ইত্যাদি স্টেক হোল্ডারকে একসঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত ও যৌথ কার্যব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সড়ক-দুর্ঘটনা, প্রাণহানি ও বহু মানুষের রোনাজারি বন্ধ হোক, আমরা এই কামনা করি।


বিভাগ : সম্পাদকীয়


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

নতুন জঙ্গি সংগঠন হিন্দাল শারক্বীয়ার অর্থ শাখার প্রধানসহ গ্রেপ্তার ৩

নতুন জঙ্গি সংগঠন হিন্দাল শারক্বীয়ার অর্থ শাখার প্রধানসহ গ্রেপ্তার ৩

পাকিস্তানের মিডিয়ায় ইমরানের নাম-উচ্চারণ-ছবিও প্রদর্শন নিষিদ্ধ

পাকিস্তানের মিডিয়ায় ইমরানের নাম-উচ্চারণ-ছবিও প্রদর্শন নিষিদ্ধ

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টকে আম পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টকে আম পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে আজ থেকে কোরিয়ান রেকে চলবে সুবর্ন এক্সপ্রেস

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে আজ থেকে কোরিয়ান রেকে চলবে সুবর্ন এক্সপ্রেস

আল হিলাল নয়,মেসিকে বার্সালোনায় দেখতে চান তার বাবা

আল হিলাল নয়,মেসিকে বার্সালোনায় দেখতে চান তার বাবা

টেকনাফে বিজিবির অভিযানে চার আসামীসহ ২.১১৭ কেজি ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার, ৪০০ বস্তা সিমেন্ট ও একটি কাঠের বোট জব্ধ

টেকনাফে বিজিবির অভিযানে চার আসামীসহ ২.১১৭ কেজি ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার, ৪০০ বস্তা সিমেন্ট ও একটি কাঠের বোট জব্ধ

প্রতিশোধ নিতেই গতিতে ভর

প্রতিশোধ নিতেই গতিতে ভর

রুবাইয়ার ফিফটির ‘হ্যাটট্রিক’

রুবাইয়ার ফিফটির ‘হ্যাটট্রিক’

Header Ad
হার্ভার্ড শিক্ষিকাকে কোরআন শরীফ উপহার রিজওয়ানের

হার্ভার্ড শিক্ষিকাকে কোরআন শরীফ উপহার রিজওয়ানের

চিটাগাং মাস্টার্সের শিরোপা অক্ষুণœ

চিটাগাং মাস্টার্সের শিরোপা অক্ষুণœ

আফগানদের বিধ্বস্ত করল শ্রীলঙ্কা

আফগানদের বিধ্বস্ত করল শ্রীলঙ্কা

বেনজেমার রিয়াল অধ্যায়ের ইতি

বেনজেমার রিয়াল অধ্যায়ের ইতি

বাঁচতে চান তারকা গোলরক্ষক মহসিন

বাঁচতে চান তারকা গোলরক্ষক মহসিন

অদম্য আলকারাজ

অদম্য আলকারাজ

বিদায় বলে দিলেন ফুটবলের বিস্ময়

বিদায় বলে দিলেন ফুটবলের বিস্ময়

টিভিতে দেখুন

টিভিতে দেখুন

খাইবার পাখতুনখোয়ায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ২ সেনা নিহত

খাইবার পাখতুনখোয়ায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ২ সেনা নিহত

বিদ্যুৎ বিপর্যয় সঙ্কটে শিল্পখাত

বিদ্যুৎ বিপর্যয় সঙ্কটে শিল্পখাত

আগামী নির্বাচন একটা চ্যালেঞ্জ : শেখ হাসিনা

আগামী নির্বাচন একটা চ্যালেঞ্জ : শেখ হাসিনা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা ৭০০১টি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা ৭০০১টি