ঢাকা   সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

কেন প্রতি বছর দশ লাখ আমেরিকান জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মেক্সিকো যায়?

Daily Inqilab ইনকিলাব ডেস্ক :

০৯ মার্চ ২০২৩, ০৮:০৪ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৪৩ পিএম

আমেরিকানরা প্রায়ই কম খরচে চিকিৎসা সেবার পাওয়ার জন্য মেক্সিকো ভ্রমণ করে। কিন্তু সেখানে স্বাস্থ্যসেবা পেতে যাওয়াটা ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। গত ৩ মার্চ কসমেটিক সার্জারির জন্য মেক্সিকোর উত্তর-পূর্ব রাজ্য তামাউলিপাসের মাতামোরোসে চার মার্কিন নাগরিককে অপহরণ করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে দু’জনের মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে, এবং বাকি দু’জন বেঁচে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরতে পেরেছে। মাতামোরোসে মতো সীমান্ত শহরগুলো মেক্সিকোর মধ্যে সবচেয়ে বিপজ্জনক। সেখানকার ড্রাগ কার্টেলগুলো তামাউলিপাস রাজ্যের বড় অঞ্চলগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং প্রায়শই স্থানীয় আইন প্রয়োগকারীর চেয়ে বেশি ক্ষমতা রাখে। কিন্তু এই শহরগুলো কয়েক হাজার আমেরিকানদের জন্য শীর্ষস্থানীয় চিকিৎসা পর্যটন গন্তব্য, যাদের অনেকেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্বাস্থ্যসেবা বহন করতে পারে না। মেডিকেল সেবা নিতে আগ্রহীরা, বিশেষ করে যারা এ অঞ্চলের সাথে পরিচিত, তারা মেক্সিকোতে তাদের গাড়ির নিবন্ধন করার মতো সতর্কতা অবলম্বন করতে শিখেছে। তারা তাদের গাড়িতে করে মেক্সিকোতে প্রবেশ করার পরে সে দেশের লাইসেন্স প্লেট লাগিয়ে নেয়, যাতে তাদেরকে সহজে আমেরিকান বলে চিহ্নিত করা না যায় এবং পায়ে হেঁটে শহরগুলোর চারপাশে ঘোরাফেরা করতে না হয়।

দাম এবং নৈকট্য মেক্সিকো আমেরিকানদের জন্য একটি শীর্ষ চিকিৎসা পর্যটন গন্তব্য করে তোলে। ‘এটি অর্থনীতি,’ অভিবাসন অধ্যয়ন বিশেষজ্ঞ এবং অস্টিনের টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানের অধ্যাপক নেস্টর রদ্রিগেজ বলেছেন, ‘মেক্সিকোতে ওষুধ এবং পরিষেবাগুলি সস্তা, বিশেষ করে দাঁতের চিকিৎসা। আপনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যে খরচ করবেন তার একটি ভগ্নাংশ দিয়ে আপনি আপনার দাঁত পরিষ্কার বা ইমপ্লান্ট করতে পারেন।’ মেক্সিকান কাউন্সিল ফর দ্য মেডিকেল ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রির মতে, প্রতি বছর প্রায় দশ লাখ আমেরিকান মেক্সিকোতে চিকিৎসা সেবার জন্য ভ্রমণ করে। মেক্সিকান বংশোদ্ভ‚ত মার্কিন নাগরিক তাইদে রামিরেজ (৫৮) তার হাইপোথাইরয়েডিজমের জন্য সস্তা চিকিৎসা পেতে এক দশকেরও বেশি সময় ধরে সান আন্তোনিওতে তার বাড়ি থেকে ঈগল পাস/পিড্রাস নেগ্রাস পর্যন্ত আড়াই ঘন্টার পথ পাড়ি সীমান্ত অতিক্রম করছেন। তিনি বিবিসিকে বলেছিলেন যে, তিনি সাধারণত একটি পুরো দিন ভ্রমণের জন্য উৎসর্গ করেন এবং দক্ষিণে তার রুটে কখনও কোনও সমস্যার সম্মুখীন হননি। তবুও, নিরাপত্তার জন্য তিনি রাতে সীমান্ত অতিক্রম করেন না এবং অবিলম্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যাওয়ার আগে তিনি সরাসরি তার অ্যাপয়েন্টমেন্টে চলে যান। ‘আমি কখনই একা যাই না। আমি সবসময় আমার বোনকে বা আমার ছেলেকে সাথে নিয়ে যাই,’ তিনি যোগ করেন। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের সর্বশেষ উপদেষ্টা অপরাধ এবং অপহরণের কারণে তামাউলিপাসে ভ্রমণের বিরুদ্ধে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন যে, যাত্রীবাহী বাস এবং ব্যক্তিগত যানবাহন প্রায়শই লক্ষ্যবস্তু হতে পারে। অন্যান্য মেক্সিকো সীমান্ত রাজ্যগুলিতেও ভ্রমণ সতর্কতা রয়েছে। যদিও কিছু সীমান্ত শহর বিশেষ করে অভিবাসী এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টাকারী আশ্রয়প্রার্থীদের জন্য প্রতিক‚ল হয়ে উঠেছে, তবে ওই অঞ্চলে আমেরিকানদের বিরুদ্ধে সহিংসতা এখনও বিরল। রদ্রিগেজ বলেছেন, চার আমেরিকানকে অপহরণ এবং পরবর্তীতে দুজনকে হত্যা করা ‘আদর্শের বাইরে’। কিন্তু এটি একটি অনুস্মারক যে, সীমান্ত সত্যিই নিরাপদ নয়, রদ্রিগেজ বলেছেন, ‘আমি আর কখনোই যাব না।’ সূত্র : বিবিসি নিউজ।


বিভাগ : আন্তর্জাতিক


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

এই বিভাগের আরও

এডেন উপসাগরে তেলবাহী মার্কিন ট্যাংকারে হুথিদের হামলা
র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্রের ৫ পর্যবেক্ষণ
চালক ছাড়া ৭০ কিলোমিটার চলল ট্রেন, আতঙ্কে মানুষের ছোটাছুটি
যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনা করতে দোহায় যাচ্ছে ইসরাইলের প্রতিনিধিদল
ভারতের সড়ক দুর্ঘটনায় ২২জন নিহত ও ১০জন আহত
আরও

আরও পড়ুন

শবে বরাতে আল্লাহর কাছে হাত তুলে চাইছেন মাগফেরাত

শবে বরাতে আল্লাহর কাছে হাত তুলে চাইছেন মাগফেরাত

জাবিতে প্রক্সিকাণ্ডে আটক ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী, ১ বছরের কারাদণ্ড

জাবিতে প্রক্সিকাণ্ডে আটক ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী, ১ বছরের কারাদণ্ড

স্বেচ্ছাসেবক দলের জুলফিকারকে জনসম্মুখে হাজির করার দাবি রিজভীর

স্বেচ্ছাসেবক দলের জুলফিকারকে জনসম্মুখে হাজির করার দাবি রিজভীর

জয়পুরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ভ্যানচালক মৃত্যু

জয়পুরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ভ্যানচালক মৃত্যু

ঢাকাস্থ পাকিস্তান হাইকমিশন প্রথম মিয়া সুলতান খান দাবা টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছে

ঢাকাস্থ পাকিস্তান হাইকমিশন প্রথম মিয়া সুলতান খান দাবা টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছে

সম্পর্কের নতুন অধ্যায় নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে মার্কিন প্রতিনিধি দলের বিস্তারিত আলোচনা

সম্পর্কের নতুন অধ্যায় নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে মার্কিন প্রতিনিধি দলের বিস্তারিত আলোচনা

পিলখানার হত্যাকাণ্ডের জন্য আওয়ামী লীগ দায়ী

পিলখানার হত্যাকাণ্ডের জন্য আওয়ামী লীগ দায়ী

এডেন উপসাগরে তেলবাহী মার্কিন ট্যাংকারে হুথিদের হামলা

এডেন উপসাগরে তেলবাহী মার্কিন ট্যাংকারে হুথিদের হামলা

ঢাবির হলে ৩ দিন আটকে রেখে নির্যাতন, ছাত্রলীগের ৩ নেতা গ্রেপ্তার

ঢাবির হলে ৩ দিন আটকে রেখে নির্যাতন, ছাত্রলীগের ৩ নেতা গ্রেপ্তার

সুশীল সমাজের সঙ্গে বৈঠক করেছে মার্কিন প্রতিনিধিদল

সুশীল সমাজের সঙ্গে বৈঠক করেছে মার্কিন প্রতিনিধিদল

র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্রের ৫ পর্যবেক্ষণ

র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্রের ৫ পর্যবেক্ষণ

ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নফাঁসের হোতাসহ গ্রেপ্তার ২

ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নফাঁসের হোতাসহ গ্রেপ্তার ২

প্রথম কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি কুমিল্লা-রংপুর

প্রথম কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি কুমিল্লা-রংপুর

আওয়ামী লীগ পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দায় এড়াতে পারে না : রাশেদ খান

আওয়ামী লীগ পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দায় এড়াতে পারে না : রাশেদ খান

পিলখানা হত্যাকাণ্ড কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়: জামায়াত

পিলখানা হত্যাকাণ্ড কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়: জামায়াত

এনজিওর ঋণের চাপে দুই সন্তানকে হত্যা করে মার আত্মহত্যা।

এনজিওর ঋণের চাপে দুই সন্তানকে হত্যা করে মার আত্মহত্যা।

নিজ চোখেই কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে অনিয়ম দেখলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজ চোখেই কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে অনিয়ম দেখলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

পটুয়াখালীতে রাস্তার পাশের ঝোপ থেকে নবজাতক উদ্ধার

পটুয়াখালীতে রাস্তার পাশের ঝোপ থেকে নবজাতক উদ্ধার

সম্পর্ক এগিয়ে নিতে মার্কিন প্রতিনিধিদলের ঢাকা সফর : এইলিন লুবাখার

সম্পর্ক এগিয়ে নিতে মার্কিন প্রতিনিধিদলের ঢাকা সফর : এইলিন লুবাখার

হঠাৎ কাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করলেন পরীমনি!

হঠাৎ কাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করলেন পরীমনি!