রোজার দিনসমূহের সীমারেখা

Daily Inqilab এ. কে. এম. ফজলুর রহমান মুন্শী

২৮ মার্চ ২০২৩, ১১:৩৮ পিএম | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩, ০৭:৪৭ এএম

ইসলাম বছরের বারো মাসের মধ্যে শুধু মাত্র একমাস সময়কে রোজার জন্য নির্ধারণ করেছে। এই একটি মাসের নির্ধারণ খুবই দরকারি ছিল। কারণ যাতে করে সকল উম্মতে মোহাম্মাদী (সা.) একই সময়ে এই ফরজ আদায় করে ইসলামী নিয়মতান্ত্রিকতার এক ও অভিন্ন রূপরেখাকে প্রত্যক্ষভাবে রক্ষা করতে পারে। এই বরকতময় মাসটি কুরআন নাজিল হওয়ার সাথে খুবই সম্পর্কযুক্ত ছিল। অর্থাৎ এই মাসটি ছিল রমজান মাস। সুতরাং রাসূলূল্লাহ (সা.) কুরআন নাজিলের এই মাসটি থেকে পরবর্তী যে কয় বছর জীবিত ছিলেন, তিনি এবং তাঁর সাহাবীগণ এই মাসে রোজা রেখেছেন এবং অদ্যাবধি সারা দুনিয়ার উম্মতে মোহাম্মাদী (সা.) এই মাসটিকেই রোজার মাস হিসেবে গণ্য করে আসছেন এবং পূর্ণ মাস ভর তাওফিক অনুযায়ী রোজা পালন করছেন।

যেহেতু রোজা সামাগ্রিকভাবে কষ্ট সংবরণ ও ধৈর্য ও সহিষ্ণুতার ইবাদাত, এজন্য আল কুরআনে এই মাসের ফরজ রোজা পালনের নির্দেশ পর্যায়ক্রমে অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে করা হয়েছে যেন মুমিন মুসলমানদের মন-প্রাণ ক্রমাগতভাবে এই ফরজ আদায়ের জন্য সামর্থ্য ও যোগ্যতা অর্জন করতে পারে এবং এই জিম্মাদারী পরিপূরকে যথেষ্ট তৎপর হতে সক্ষম হয়।

আল কুরআনে প্রাথমিক নির্দেশের প্রাক্কালে রোজার সময় নির্ধারণ ছাড়াই ঘোষণা করা হয়েছে : ‘হে ঈমানদার গণ! তোমাদের ওপর রোজা ফরজ করা হয়েছে’। এরপর তাদেরকে সান্তনা প্রদান করত, বলা হয়েছে, ‘রোজা কেবল তোমাদেরই ওপর ফরজ করা হয়নি, বরং তা তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর ফরজ করা হয়েছিল’। এই নির্দেশের মাঝে ও রোজার দিন নির্ধারণ করা হয়নি। এরপর আবারও নির্দেশ জারী করা হয়েছে কতিপয় সুনির্দিষ্ট দিন। এখানেও মুদ্দতের পরিপূর্ণ বিশ্লেষণ নেই।

মোটের উপর, উপরোক্ত আয়াত সমূহের নির্দেশাবলী মাঝে সিয়ামের দিন ও সময়কে অনুল্লেখ রাখা হয়েছে। যাতে করে এই নির্দেশ শ্রবণকারীদের ওপর কোনো রকম চাপের সৃষ্টি না হয়। তারপর অত্যন্ত নমনীয়ভাবে বলা হয়েছে যে, ‘কয়েকটি নির্দষ্ট দিন মাত্র’। এরপর আল কুরআনে রোজার সহজ-সরল অবস্থার কথা তুলে ধরা হয়েছে, যাতে সকল শ্রেণির লোকেরা এ সম্পর্কে ওয়াকেবহাল হতে পারে।

ইরশাদ হয়েছে : ‘তোমাদের মাঝে যারা রুগ্ন অথবা সফরের হালতে আছে, তারা অন্যান্য দিনে রোজা আদায় করবে’। কিন্তু এই আয়াতের বর্ণনা বিন্যাস এবং ব্যবহারিক দিকের প্রতি লক্ষ্য করলে বুঝা যাবে যে, অবশ্যই এই রোজা কোনো একটি নির্দিষ্ট সময়েই ফরজ হবে। এবং অবশ্যই সে দিনগুলো গণিত বা সুনির্দিষ্ট হবে। অন্যথায় মাদুদাত বা ‘গণিত দিন’ বলার কোনো আবশ্যক হত না।

তারপর আল কুরআনে ঘোষণা করা হয়েছে : ‘এবং যে ব্যক্তি অতি কষ্টে রোজা রাখতে পারে কিন্তু রাখে না, সে একজন মিসকীনের খাদ্য ফেদিয়া স্বরূপ দিতে পারবে’। এতে তার কোনো অপরাধ হবে না। এমতাবস্থায় কেউ যদি কষ্ট করে রোজা রাখে, তবে এটাও তার জন্য উত্তম আমল বলে বিবেচিত হবে। এই আয়াতসমূহের প্রতি লক্ষ্য করলে দেখা যায় যে, কাজা এবং কাফফারা আদায় করার অনুমতি সত্ত্বেও রোজা রাখাকে উত্তম বলে নির্দেশ করা হয়েছে এবং একই সাথে রোজা রাখার গুরুত্বকে বিকশিত করে তোলা হয়েছে।

আরও লক্ষণীয় যে, আল কুরআনে রোজার নির্দেশকে অত্যন্ত হালকা ও সহজ করে উপস্থাপন করা হয়েছে এবং বলা হয়েছে ‘আইয়্যামিন মাদুদাতিন’, অর্থাৎ গণিত কয়েকটি দিন। তবে, একথা সহজেই বলা যায় যে, সারা বছরের তিনশ’ পয়ষট্টি দিনের মাঝে উনত্রিশ বা ত্রিশ দিনকে রোজার জন্য গণিত বা নির্ধারিত দিন মনে করা খুবই যুক্তিযুক্ত।

আল কুরআনে সুস্পষ্টভাবে ইরশাদ হয়েছে : ‘রমজান মাস ওই মাস, যাতে কুরআন নাজিল করা হয়েছে। এতে বুঝা যায় যে, ‘গণিত দিন সমূহের রোজা’ রমজান মাসেই রাখতে হবে। এ বিষয়টিকে আরও পরিষ্কারভাবে তুলে ধরে আল কুরআনে ইরশাদ হয়েছে : ‘তোমাদের মাঝে যে এই মাসটি পাবে সে যেন মাসভর রোজা রাখে’।

এই নির্দেশের আওতায় পুরো রমজানমাসকে রোজা পালনের জন্য নির্ধারিত করা হয়েছে এবং এর দ্বারা ‘গণিত দিনগুলো’ সম্বলিত নির্দেশের ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণ ও পরিসমাপ্ত করা হয়েছে। এতে একমাস রোজা পালন করতে হবে এই পথটি চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়ার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।

মোটকথা, আল কুরআনে পুরো রমজান মাস রোজা রাখার হুকুম জারি হয়েছে। যেহেতু এতে মাস শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে, যেহেতু মাসের প্রারম্ভ হতে শেষ দিনটি পর্যন্ত রোজা পালন করতে হবে। আরবি মাস গণনার হিসেব মতে চান্দ্র মাস উনত্রিশ দিনে বা ত্রিশ দিনে হয়। রমজান মাস ও এই দিনগুলোকেই বলা হয়।


বিভাগ : শান্তি ও সমৃদ্ধির পথ ইসলাম


মন্তব্য করুন

HTML Comment Box is loading comments...

আরও পড়ুন

আমি কখনো মাথা নত করব না: ইমরান খান

আমি কখনো মাথা নত করব না: ইমরান খান

এনার্জিপ্যাকের “এসডিজি ব্র্যান্ড চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ডস ২০২৩” অর্জন

এনার্জিপ্যাকের “এসডিজি ব্র্যান্ড চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ডস ২০২৩” অর্জন

বাংলাদেশি নাগরিকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে মার্কিন প্রশাসন

বাংলাদেশি নাগরিকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে মার্কিন প্রশাসন

আমান দম্পতি ও টুকুর সাজা বহাল, আত্মসমর্পণের নির্দেশ

আমান দম্পতি ও টুকুর সাজা বহাল, আত্মসমর্পণের নির্দেশ

নতুন দুই সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ সাইমন

নতুন দুই সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ সাইমন

আল্লাহ ভীতি মানুষকে ইহকাল পরকালে সম্মানিত করে

আল্লাহ ভীতি মানুষকে ইহকাল পরকালে সম্মানিত করে

মাঝরাতে রাজের আইডি থেকে ভিডিও ফাঁস, পরীমনিকে দুষছেন সুনেরাহ

মাঝরাতে রাজের আইডি থেকে ভিডিও ফাঁস, পরীমনিকে দুষছেন সুনেরাহ

সেই মোতালেবের পেট থেকে আরও ৮টি কলম বের হলো

সেই মোতালেবের পেট থেকে আরও ৮টি কলম বের হলো

এরদোগানের মতো আবারো ক্ষমতায় আসতে পারেন শেখ হাসিনা ও মোদি: দ্য ইকনোমিস্ট

এরদোগানের মতো আবারো ক্ষমতায় আসতে পারেন শেখ হাসিনা ও মোদি: দ্য ইকনোমিস্ট

কাশ্মিরে পর্যটকবাহী বাস খাদে, নিহত ১০

কাশ্মিরে পর্যটকবাহী বাস খাদে, নিহত ১০

বোনের বিয়েতে গিয়ে বয়ফ্রেন্ডসহ মারধরের শিকার অভিনেত্রী

বোনের বিয়েতে গিয়ে বয়ফ্রেন্ডসহ মারধরের শিকার অভিনেত্রী

স্ত্রী গৌরীর বিরুদ্ধে শাহরুখ খানের অভিযোগ

স্ত্রী গৌরীর বিরুদ্ধে শাহরুখ খানের অভিযোগ

মহিপুরে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার

মহিপুরে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার

কয়লা সংকটে বন্ধ পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের একটি ইউনিট

কয়লা সংকটে বন্ধ পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের একটি ইউনিট

টাঙ্গাইলে কাভার্ডভ্যান কেড়ে নিল ঘুমন্ত মা মেয়ের প্রাণ, বাবা আহত

টাঙ্গাইলে কাভার্ডভ্যান কেড়ে নিল ঘুমন্ত মা মেয়ের প্রাণ, বাবা আহত

নতুন সংসদ ভবনের দেয়ালে খচিত ‘অখণ্ড ভারতের’ মানচিত্র

নতুন সংসদ ভবনের দেয়ালে খচিত ‘অখণ্ড ভারতের’ মানচিত্র

নিজ বাসভুমে পরবাসী স্থানীয়রা-ব্যবসা ও শ্রম বাজার দখলে নিচ্ছে রোহিঙ্গারা

নিজ বাসভুমে পরবাসী স্থানীয়রা-ব্যবসা ও শ্রম বাজার দখলে নিচ্ছে রোহিঙ্গারা

যুক্তরাষ্ট্রে ব্যস্ত রাস্তায় মুহুর্মুহু গুলি, হতাহত ৭

যুক্তরাষ্ট্রে ব্যস্ত রাস্তায় মুহুর্মুহু গুলি, হতাহত ৭

ভারতে মুসলিমদের ঘৃণা করা ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে : নাসিরুদ্দিন শাহ

ভারতে মুসলিমদের ঘৃণা করা ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে : নাসিরুদ্দিন শাহ

এরদোগান কেন পাশ্চাত্যের দেশগুলোর কাছে গুরুত্বপূর্ণ

এরদোগান কেন পাশ্চাত্যের দেশগুলোর কাছে গুরুত্বপূর্ণ